ঢাকা, ২০২২-০৬-২৬ | ১২ আষাঢ়,  ১৪২৯
সর্বশেষ: 
উবার ও লিফট ড্রাইভারদের বেতন বৃদ্ধি নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত আমেরিকা -চিকেন ফার্মে বার্ড ফ্লু আতঙ্ক মেডিকেইড হারাচ্ছেন লাখো আমেরিকান পাল্টে যাচ্ছে রাজনীতির হিসাব-নিকাশ! অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় হস্তক্ষেপ না করার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্র বিচার ১২৩ বছর আগে গ্রেপ্তার গাছ, শেকলে বন্দি আজো ফ্রান্স প্রেসিডেন্টকে চড় মারার মাশুল কতটা? কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

আমি নাকি ‘স্বেচ্ছা-নির্বাসিত’ বা সেলফ-এক্সাইল্ড!

আমি নাকি ‘স্বেচ্ছা-নির্বাসিত’ বা সেলফ-এক্সাইল্ড!

যদিও সাংবাদিকদের বাকস্বাধীনতার পক্ষে  আমি ঝড় বাদল তুচ্ছ করে দাঁড়াই, সাংবাদিকদের বড় একটি অংশ কিন্তু আকাট মূর্খ অথবা মহা ধুরন্ধর। আঠাশ বছর আগে বাংলাদেশের সরকার আমাকে দেশ থেকে জোরপূর্বক বের করেছে এবং আজও দেশে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না, সব জানার পরও আমাকে নিয়ে খবর করতে গিয়ে আমার নামের আগে লেখে, ‘স্বেচ্ছা-নির্বাসিত’ সেলফ- এক্সাইল্ড। কখনও কোনও গণ্ডমূর্খ এই শব্দটি আমার নামের আগে বসিয়েছিল হয়তো, সেই থেকে তার উত্তরসূরিরা কপি করে চলছে।

বৃহস্পতিবার, ৯ জুন ২০২২, ০১:৫৪

পুরুষ পশুর স্তর থেকে ঠিক উঠতে পারেনি

পুরুষ পশুর স্তর থেকে ঠিক উঠতে পারেনি

যৌন পীড়নের বর্ণনায় পুরুষ উত্তেজনা পায়। পোশাকের উপর থেকে শরীর দেখেও পুরুষ উত্তেজনা পায়। নারীর খোলা বুকে পুরুষ উত্তেজনা পায়। অথচ সেইটা তার জন্মখাবার। নারীর শরীরজুড়েই পুরুষের জন্মের ইতিহাস। ঈশ্বরের পর পুরুষের দ্বিতীয় প্রার্থনার সম্মানে নারীর অধিকার। মায়ের সম্মান দিয়ে ধর্মগ্রন্থগুলাও এইটাই বলতে চেয়েছে। পুরুষ নারী ধর্ষণ করে। পুরুষ পুরুষকেও ধর্ষণ করে। উত্তেজনার জন্য তাদের ভালোবাসার প্রয়োজন হয় না। তাই যেকোনো নারীর নগ্ন দেহে, বা নারীর মতো কোমল পুরুষের দেহেও কেবল যৌনতাই খোঁজে। পুরুষ পশুর স্তর থেকে ঠিক উঠতে পারেনি। সন্তান নারী ধারণ করবে, বুকের দুধও নারী খাওয়াবে। আবার লালন-পালনও নারীই করবে। এখানে পুরুষ কই, তার কাজ কী? একদিন বা পাঁচদিনের যৌনতা ছাড়া জন্ম প্রক্রিয়ায় তার আর কোনো ভূমিকা নেই।

মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ০২:৪৫

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী: সন্তানকে নিয়ে কাজে ফিরলেন তিশা

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী: সন্তানকে নিয়ে কাজে ফিরলেন তিশা

  তিশা যেদিন জানতে পারে ও কনসিভ করেছে তার কয়দিন পরেই ওর কাছে কল আসে বিশাল ভরদ্বাজের কাস্টিং ডিরেক্টরের কাছ থেকে। ঐ ছবিটার জন্যে যেটা নিয়ে পরে তারা আরো বেশ কিছু বাংলাদেশী অভিনেত্রীর সাথে কথা বলেছে, এবং যেটা নিয়ে নানা নিউজও হয়েছে। যাই হোক উনি জানান যে তিশাকে কাস্ট করতে চান তারা। শুটিংয়ের সময় জানিয়ে দিয়ে তারা জানায় তিশা আগ্রহী হলে তারা পরবর্তী বিষয়গুলো ঠিক করবে।

তিশা স্কুল জীবন থেকে কাজ করছে। আগাগোড়া কাজ অন্তপ্রাণ একজন মানুষ কিভাবে এই বিষয়টাকে ডিল করে সেটা নিয়ে আমি ভাবতেছিলাম। কিন্তু তিশার যে কোনো সিদ্ধান্ত যেহেতু ও স্বাধীনভাবেই নেয়, আমি ওর সাথে এটা নিয়ে আগ বাড়িয়ে কিছু বলছিলাম না। আমি দেখলাম ও বেশ শান্ত ভাবে দ্বিতীয় দিন কাস্টিং ডিরেক্টরকে বুঝিয়ে বলে যে, সে কাজটা করতে পারছে না কারণ এই মুহুর্তে ও কোথাও মুভ করতে চাচ্ছে না, এই মুহুর্তে সে একটু নিরিবিলি থাকতে চায় কারন সে কনসিভ করেছে। কোন রকম দোটান ছাড়াই ও ছেড়ে দেয় ঐ সুযোগটা।

ঐ যে শুরু, তারপর দেখে আসছি একের পর এক তিশাকে ছেড়ে দিতে হয়েছে ঘুম, পছন্দের খাওয়া, নিজের জন্য রাখা সময়। আমি মোটামুটি চেষ্টা করি সব সময়ই তিশার পাশে থাকতে, এক সাথে ইলহামকে বড় করতে। তবুও সবসময় আমি ভুমিকা রাখার সুযোগ পাই না। কারন তিশা কিছু কাজের ব্যাপারে এতোই স্পর্শকাতর যে আমার হাতেও ছাড়তে রাজী না। ডায়পার পরানো, বা অন্যান্য কাজ আমার হাতে মাঝে মধ্যে ছাড়লেও গোসল করানোটা আমার হাতে ছাড়তে চায় না। তবুও আমি লেগেই থাকি। চেষ্টা করি যতোখানি সম্ভব দায়িত্ব ভাগ করে নিতে। ধরা যাক ও ডাবিংয়ে গেলো, আমি বেবি সিটার হিসাবে ওর সাথে গিয়ে বসে থাকলাম দূরে কোথাও। কিন্তু একজন মাকে সন্তানের জন্য যা যা করতে হয়, যা যা জীবন থেকে ছাড়তে হয়, বাবারা চব্বিশ ঘন্টা সময় দিলেও মায়ের যে স্ট্রেস, যে কন্ট্রিবিউশন তার ধারে কাছেও যাইতে পারবে না।

এই কথাগুলা আমরা সবাই জানি। আমিও জানতাম, থিওরেটিক্যালি। কথাগুলোর অর্থ কি সেটা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছি বাবা হওয়ার পর, বাবা হয়ে সন্তানের মায়ের পাশে থাকার পর।

আমি কখনো এই সব নানাবিধ দিবস টিবস পালন করি না। কিন্তু এবারের মা দিবসের উসিলাটা কাজে লাগাইয়া আমি তিশাকে এই কথাগুলা বলতে চাইছি। ডুব ছবিতে একটা সিন আছে না, সাবেরি মাকে সামনাসামনি ধন্যবাদ দিতে পারে না তাই একটু আড়ালে গিয়ে ফোন দিয়ে বলে? আমার অবস্থাও সেইরকম। মধ্যবিত্ত আড়ষ্টতায় সামনাসামনি ধন্যবাদ দিতে না পারার কারনে ফেসবুকে লিখে দিচ্ছি। লিখতে গিয়ে হচ্ছে আরেক বিপদ। একটু পর পর তিশা এসে বসে পাশে, কখনো ইলহাম খেলা করতে চায়। ফলে গতকাল শুরু করা লেখাটা আজকে এসে শেষ হইলো। বিলম্বিত মা দিবসের শুভেচ্ছার এই হেতু। ফেসবুক থেকে

মঙ্গলবার, ১০ মে ২০২২, ০১:১০

তসলিমা নাসরিন: শেষ পর্যন্ত নরম রুটি বানাতে পেরেছি

তসলিমা নাসরিন: শেষ পর্যন্ত নরম রুটি বানাতে পেরেছি

রুটিখোরদের ইউটিউব ভিডিও দেখে রুটি বানাতে গিয়ে দেখি রুটি শক্ত হচ্ছে। পশ্চিমবংগের বাংগালিরাও একই উপদেশ দিল।  ঠান্ডা জলে আটা গুলে কিছুক্ষণ ডলে পিষে ১৫/২০ মিনিট  রেখে দেবে, তারপর রুটি বানাও, রুটি নরম  হবে। আটার গোলাটায় একটু তেল মাখিয়ে রাখলে রুটি নরম হবে, ঢেকে রাখলে হবে, তাওয়ায় সামান্য ভেজে নিয়ে তারপর সরাসরি আগুনের ওপর  ভাজবে ইত্যাদি ইত্যাদি।  সব উপদেশ কঠোরভাবে মেনে দেখেছি রুটি নরম হওয়ার লক্ষণ নেই।

সোমবার, ৯ মে ২০২২, ০১:৫৪

আমি চাই আমার মৃত্যুর খবর প্রচার হোক চারদিকে: তসলিমা নাসরিন

আমি চাই আমার মৃত্যুর খবর প্রচার হোক চারদিকে: তসলিমা নাসরিন

আমি চাই আমার মৃত্যুর খবর প্রচার হোক চারদিকে। প্রচার হোক যে আমি আমার মরণোত্তর দেহ দান করেছি হাসপাতালে, বিজ্ঞান গবেষণার কাজে। কিছু অঙ্গ প্রতিস্থাপনে কারও জীবন বাঁচুক। কারও চোখ আলো পাক। প্রচার হোক, কিছু মানুষও যেন প্রেরণা পায় মরণোত্তর দেহ দানে।

মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৫৩

পিতার চোখের মনি

পিতার চোখের মনি


একটি উপস্থাপিত স্বপ্ন প্রস্তাবনার পরিকল্পিত মৃত্যুর কথা উঠে আসবে এখন। আর শুরুটা করতে চাই ১৯৬২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর দিয়ে। সামরিক তৎকালীন শাসক জেনারেল আইয়ুব খানের চাপিয়ে দেওয়া গণবিরোধী ‘জাতীয় শিক্ষানীতি’ বাতিল করে সবার জন্য শিক্ষার অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং একটি গণমুখী, বিজ্ঞানমনস্ক ও অসাম্প্রদায়িক শিক্ষাব্যবস্থা অর্জনের লক্ষ্যে ছাত্রসমাজ অপ্রতিরোধ্য আন্দোলন গড়ে তুলেছিল। সেসময়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন শেখ ফজলুল হক মনি।

শনিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:২৯

তিরিশ বছরের স্মৃতিগাঁথা

তিরিশ বছরের স্মৃতিগাঁথা

বাংলাদেশের গৌরবময় অমর একুশে ১৯৯৯ সাল থেকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃত। একুশের আন্তর্জাতিকরণের সর্বশেষ স্বীকৃতি ২০০১ সালে জাতিসংঘ কর্তৃক অনুমোদন। এই প্রাপ্তি সকল বাংলাভাষাভাষীর অহঙ্কারের। বাঙালির এই অহঙ্কার আজ বিশ্বজনীন। পৃথিবীর অনেক দেশের ভিন্ন ভাষাভাষী সাধারণ নাগরিকও জানে বাংলা নামে একটি ভাষা আছে। সেই ভাষার জন্য একটি দেশের মানুষ যুদ্ধ করেছে। সেই দেশের নাম বাংলাদেশ। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে, এসব বীরত্বের কাহিনী জানার আগ্রহ জন্মেছে। মানুষ সার্চ করছে বিভিন্ন ওয়েব সাইট। ২০০৭ সালের পরিসংখ্যানে দেখা যায় বাংলা হলো পৃথিবীর চতুর্থ বৃহত্তম ভাষা।

শনিবার, ৩০ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৫৩

রুখে দাঁড়াও!
প্রসঙ্গ: বাংলাদেশ

রুখে দাঁড়াও!

এসব কী হচ্ছে বাংলাদেশে? যে অসাম্প্রদায়িকতা বাংলাদেশের গর্বের বিষয়, যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নিয়ে আমরা বড়াই করি, কোথায় সে সম্প্রীতি আজ? দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে দেশে যা ঘটছে তা কি সম্প্রীতির নিদর্শন? এসব ঘটনা তো আমাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ভাবমূর্তিকে ধসিয়ে দিচ্ছে। বিভিন্ন স্থানে মন্ডপে মন্ডপে হামলা, প্রতিমা ভাঙচুর, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, তাদের ওপর আক্রমণ, এসব তো আমাদের অসাম্প্রদায়িক চেতনার পরিচয়কে কালিমালিপ্ত করে দিচ্ছে। আমাদের মাথা হেঁট করে দিচ্ছে।

শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৩

পরীমনির ঘটনা পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বহিঃপ্রকাশ

পরীমনির ঘটনা পুরুষতান্ত্রিক সমাজের বহিঃপ্রকাশ

একজন মানুষ হিসেবে আজ আমি খুব আতঙ্কিত! কারণ যতটা ভাবার চেষ্টা করি সমাজ সামনে এগিয়ে যাচ্ছে, কিন্তু এই ধরনের পরিস্থিতি মনে করিয়ে দেয়- এই সমাজে নারীর অবস্থান কোথায়?

বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট ২০২১, ০৩:১৭

নাহিদা নিশি : নারী মানেই নারীর বন্ধু না, নারীও হতে পারে নারীবিদ্

নাহিদা নিশি : নারী মানেই নারীর বন্ধু না, নারীও হতে পারে নারীবিদ্

ব্যক্তির মেজাজের পেছনে হরমোনের প্রভাব থাকলেও, কেউ সেটার ধার ধারে না। সমাজে প্রতিষ্ঠিত সত্য হলো, ‘পুরুষের মেজাজ হবে আক্রমণাত্মক, অন্যদিকে নারী হবে আবেগপ্রবণ, দুর্বল, কোমল’। কিন্তু সত্যি কি তাই?

রোববার, ৩০ মে ২০২১, ০৪:১১

করোনা কোত্থেকে এলো
তসলিমা নাসরিন

করোনা কোত্থেকে এলো

বৃহস্পতিবার, ২৭ মে ২০২১, ০৪:০১

কর্ম হারানোর ঝুঁকিতে দুই কোটি মানুষ

কর্ম হারানোর ঝুঁকিতে দুই কোটি মানুষ

সিপিডিসহ দেশের বিভিন্ন সংস্থার জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশে দেড় থেকে ২ কোটি মানুষ কর্ম হারানোর ঝুঁকির মধ্যে আছে বলে মন্তব্য করেছেন সিপিডি বিশেষ ফেলো এবং এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফরমের আহ্বায়ক ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, যুবদের সংখ্যা পরিমাণে বাড়লেও গুণগত মান বাড়েনি। তাই আগামী বাজেটে যুব ভাতা চালুর দাবি জানান তিনি। গতকাল এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফরম, বাংলাদেশ-এর আয়োজনে এবং অ্যাকশনএইড বাংলাদেশ-এর সহযোগিতায় ‘এসডিজি বাস্তবায়নে জবাবদিহিতা: স্থানীয় প্রেক্ষিত ও যুব সমাজ’ শীর্ষক একটি ভার্চ্যুয়াল সংলাপে তিনি এসব কথা বলেন।

সোমবার, ২৪ মে ২০২১, ০৫:১৭

প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি

প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি

বঙ্গবন্ধুকে আমরা ভালবাসি, আপনাকেও আমরা ভালোবাসি- এই ভালবাসা দেশের জন্য, আদর্শের জন্য। আমাদের ভালবাসার পরিসরটি আরো বড়। আমরা ভালবাসি আমাদের পরিবার স্বজন বন্ধু সতীর্থদেরকেও। কিন্তু এই দুই ভালোবাসায় যখন সংঘাত তৈরী হয়, তখন অন্যায় অবিচারের বিপক্ষে আর সত্য ন্যায়ের পক্ষে গভীরতম ফাটল সৃষ্টি হয়। সেই ফাটল একদিনে যেমন বৃহৎ হয় না, তেমনি একদিনে অন্যায়কারী পক্ষকে প্রতিরোধে সম্মিলিত শক্তি সঞ্চিত হয় না। আজ আমাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। আমাদের বেঁচে থাকাই কঠিন হয়ে উঠেছে। প্রতিরোধ না করাটাই এখন চরমতম অন্যায়।

শনিবার, ২২ মে ২০২১, ০৩:১৩

সাংবাদিক নয় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে জাতি উপকৃত হবে
মাহবুব-উল আলম হানিফ

সাংবাদিক নয় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে জাতি উপকৃত হবে

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে হেনস্তার ঘটনায় মঙ্গলবার (১৮ মে) নিজের ফেসবুক পেজে স্ট্যাটাসে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলার বিষয়ে দ্বিমত প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। তিনি দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার আহ্বান জানান।

বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০২:৫৪

খুব ভালো হতো যদি এক বছর সবাই হাত পা গুটিয়ে বসে থাকতে পারতাম, ড.
ড. নাজনীন আহমেদ

খুব ভালো হতো যদি এক বছর সবাই হাত পা গুটিয়ে বসে থাকতে পারতাম, ড.

  বেশিরভাগ মানুষের হয়তো ভালো লাগবে না, কিন্তু আবারও এরকম একটা পোস্ট দিতে হচ্ছে। দয়াকরে পুরাটা পড়ে মন্তব্য করবেন। দুদিন ধরে বেশ সমালোচনা দেখছি, কেন মানুষ দোকানপাটে কেনাকাটা করতে যাচ্ছেন তা নিয়ে। আচ্ছা ধরে নিন কেউ কেনাকাটা করতে গেল না। সবাই এবার ঠিক করল ঈদে কোন কেনাকাটা করবে না। আমাদের কী ধারণা আছে কত হাজার কোটি টাকার লেনদেন হয় এই ঈদের সময়? কত লক্ষ মানুষের খাওয়া পড়া, ছেলেমেয়েদের লেখাপড়ার খরচ আসে এই দোকানপাট গুলো চলে বলে?

মঙ্গলবার, ২৭ এপ্রিল ২০২১, ০২:১৪

ইতিহাসের গতি পাল্টে দেয়া সেই মেঠোপথটি এখন স্বাধীনতা সড়ক হতে যাচ্ছ

ইতিহাসের গতি পাল্টে দেয়া সেই মেঠোপথটি এখন স্বাধীনতা সড়ক হতে যাচ্ছ

ইতিহাসের গতি পাল্টে দেয়া সেই মেঠোপথটি এখন স্বাধীনতা সড়ক হতে যাচ্ছে। উপরের ছবিটি ৫০ বছর আগের। নীচেরটি প্রায় এক দশক আগে সপরিবারে আমার মুজিবনগর সফরের সময়ের। ছবির মূল বিষয় হচ্ছে, মাটির রাস্তাটি। কয়েকদিনের মধ্যে এটি ইতিহাসের অংশ হতে যাচ্ছে। এর নাম হবে ‘‘স্বাধীনতা সড়ক”।

বুধবার, ৩১ মার্চ ২০২১, ০৩:১২

আনিস, জোসেফ, টিটু, হারিছের অজানা গল্প

আনিস, জোসেফ, টিটু, হারিছের অজানা গল্প

নিঝুম মজুমদার: জোসেফ-হারিস-আনিস-আজিজ-টিপু সাহেব কিংবা তাঁদের ৩ বোন অথবা তাঁদের বাবা ওয়াদুদ সাহেব এবং মা রেনুজা বেগমের জীবনটাই শুরু হয়েছে এই তিলোত্তমা ঢাকায় এক দুঃস্বপ্ন দিয়ে।

ওয়াদুদ সাহেব বাংলাদেশ বিমানের উর্ধতন কর্মচারী ছিলেন। হাউজ বিল্ডিং থেকে ঋণ নিলেন, গ্রামের কিছু যায়গা জমি বিক্রি করলেন। ঢাকার মোহাম্মদপুরে একটা দোতলা বাড়ী কিনলেন পুরো পরিবার নিয়ে থাকবার জন্য। এই গল্প ৮০-এর দশকের শেষ কিংবা ৯০ এর দশকের শুরুর।

শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৪:৪২

কি আছে বাইডেনের ইমিগ্রেশন বিলে?
২০২১ এর জানুয়ারি পর্যন্ত সুযোগ

কি আছে বাইডেনের ইমিগ্রেশন বিলে?

গত চার বছরে রাষ্ট্র ও আন্তঃরাষ্ট্রীয় পর্যায়ে যে ক্ষতি হয়েছে এখনই তার রাশ টেনে ধরতে হবে। তা না হলে বিশ্বসভায় নেতৃত্বের আসন হাতছাড়া হয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের। তাই জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ডোনাল্ড ট্রাম্পের কিছু উল্লেখযোগ্য নীতি পাল্টে দেয়ার কাজ শুরু করেন। যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ক্ষতিকর আগের আদেশগুলো নির্বাহী নির্দেশের মাধ্যমে বদলানো শুরু হয়েছে বাইডেনের প্রথম দিন থেকেই।

শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:৪৩

ঐক্যের ডাক দেওয়া বাইডেনের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ

ঐক্যের ডাক দেওয়া বাইডেনের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ

জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়ে জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন এমন সময়ে, যখন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি এবং সমাজে বিভক্তি অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি। কিন্তু তার চেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রই এক বড় সংকটে উপনীত হয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের চার বছরে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের পশ্চাৎযাত্রার সবচেয়ে বড় প্রমাণ হচ্ছে ৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উসকানিতে তাঁর সমর্থকদের ক্যাপিটলে সশস্ত্র হামলা। তাই জো বাইডেন তাঁর ভাষণে যখন বলেন যে, গণতন্ত্র মূল্যবান, গণতন্ত্র ভঙ্গুর, এই মুহূর্তে গণতন্ত্রই বিজয়ী হয়েছে, তখন তা পরোক্ষভাবে মার্কিনিদের স্মরণ করিয়ে দেয় যে, গণতন্ত্র রক্ষা করার দায়িত্ব তাঁদের।

বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৮:২২

বিয়ের সম্পর্ক যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের নয়:মিজানুর রহমান আজহারী

বিয়ের সম্পর্ক যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের নয়:মিজানুর রহমান আজহারী

‘সময়ের কাজ সময়ে করতে হয়। বিয়ের সম্পর্ক যৌবনের সাথে, ক্যারিয়ারের সাথে নয়। ক্যারিয়ার গড়ার জন্য পড়ে রয়েছে সারা জীবন। মৌলিক এই চাহিদা মেটানোর বৈধ উপায় যেহেতু রুদ্ধ, তাই অবৈধ উপায়গুলো সেই স্থান দখল করে নিবে, এটাই তো স্বাভাবিক। ফলে হারাম রিলেশনশিপ, পর্ণগ্রাফি উপভোগ এবং ধর্ষণের মত জঘন্য ঘটনাও আজ দেশের রুটিন নিউজে পরিণত হয়েছে। তাই, নতুন প্রজন্মকে এই ধ্বংস আর অবক্ষয় থেকে রক্ষা করতে, অভিবাবকদের আরো দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে’।

সোমবার, ১১ জানুয়ারি ২০২১, ০১:৫৩

আরিফুজ্জামান তুহিন: শিক্ষিত সমাজই দেশ ও দুনিয়ার চৌদ্দটা বাজিয়েছে

আরিফুজ্জামান তুহিন: শিক্ষিত সমাজই দেশ ও দুনিয়ার চৌদ্দটা বাজিয়েছে

‘বই পড়ে কেউ খারাপ মানুষ হয় না’- এই বাক্যটি নিরেট মূর্খদের দ্বারাই বলা সম্ভব। দুনিয়া যারা নষ্ট করছে, সারা দুনিয়ার জন্য যারা ত্রাসে পরিণত হয়েছে তারা সবাই বইপড়া মানুষ। ফলে কি বই পড়লে মানুষ মানুষে পরিণত হবে তার কোনো সার্বজনীন শিক্ষা নেই। ফলে বইপূজার বিরোধিতা করুন।শিক্ষিত সমাজই দেশ ও দুনিয়ার চৌদ্দটা বাজিয়েছে। পিকে হালদাররা কেউ মুর্খ মানুষ না।

শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৩৩

বিএনপি নিয়ে কিছু প্রশ্ন কিছু উত্তর

বিএনপি নিয়ে কিছু প্রশ্ন কিছু উত্তর

বিএনপি কেন আন্দোলন করছে না? বিএনপি কি আদৌ আন্দোলন করবে? করলে সেটা কবে? বিএনপি নতুন নির্বাচন কেন চাচ্ছে? নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনার পরও বিএনপি কেন সংসদে গেল? বিএনপি একটির পর একটি নির্বাচনে কেন অংশ নিচ্ছে? বিএনপি কি সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছে? বিএনপি কি মিডিয়াকেন্দ্রিক রাজনীতি করছে? সরকারের সব কাজের সমালোচনা করা বিএনপি কি সরকারের উন্নয়ন দেখতে পায় না? বিএনপি কার নির্দেশে পরিচালিত হয়?

রোববার, ২২ নভেম্বর ২০২০, ০৪:০০

ধর্ষণ নিয়ে মিজানুর রহমান আজহারীর পোস্ট

ধর্ষণ নিয়ে মিজানুর রহমান আজহারীর পোস্ট

দেশে ধর্ষণের মচ্ছব চলছে তো চলছেই। বাংলাদেশে প্রায় প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ধর্ষণ হচ্ছে। নারীকে বিবস্ত্র করা হচ্ছে। ধর্ষণ বিস্তারে দিশেহারা জাতিকে দিশা দিতে একটি পোষ্ট করেছেন সময়ের আলোচিত ইসলামি বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী।

সোমবার, ১২ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৪৪

আর কত সইতে হবে অনিয়ম আর দুর্নীতি

আর কত সইতে হবে অনিয়ম আর দুর্নীতি

চেনা জানা পরিচিতজনরা এখন আর অসুস্থতার কথা বলতে চায় না। কিন্তু অনেকেই জ্বর কাশিসহ অন্য অসুখে আক্রান্ত হচ্ছে। চিকিৎসা সেবার অব্যবস্থাপনার কারণে হাসপাতালে যায় না। যার ফলে ঘরে থেকে চিকিৎসা করে সুস্থ হলেও জানা সম্ভব হচ্ছে না তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে কিনা। কারণ মানুষ টেস্টের ভোগান্তি পোহাতে নারাজ। আবার টেস্ট পজিটিভ এ বিষয় জানাজানি হলে হাসপাতালে যাওয়া নিয়ে শুরু হয় আরেক হয়রানি। হাসপাতালে চিকিৎসা ব্যবস্থার সংকটের কারণে রোগ নিয়ে ঘুরতে হয় হাসপাতালে হাসপাতালে। অক্সিজেন আর আইসিইউ না পেয়ে মৃত্যুর করুন চিত্র প্রতিনিয়ত দেখছে মানুষ। এসব কারণে  মানুষ চিন্তা করে মরতে হলে ঘরে মরবে তবু হাসপাতালে যাব না। এমনকি পরিবার পরিজনরাও চায় না রোগীকে  সহজে  হাসপাতালে দিতে। এ কথাগুলো হয়ত নতুন কিছু নয়। কিন্তু যখন দেখা যায় কোভিড১৯ টেস্টের নামে মিথ্যা রিপোর্ট দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে ; তখন মানসিক ভাবে নিজেকে ঠিক রাখা অসম্ভব হয়। মানুষ রুপী  এ অমানুষ গুলো সমাজের অভিশাপ। 

শুক্রবার, ২৬ জুন ২০২০, ০৩:৫৩

আমার বাবা শান্তি কমিটিতে ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ছিলেন

আমার বাবা শান্তি কমিটিতে ছিলেন, মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ছিলেন

আমার জীবনের সবচেয়ে বড় দুঃখ ও কষ্ট এটি, ৭১ সালে আমার বয়স যখন এগার, সেই ছোট্ট আমিও বুঝতাম, স্বজনদের কথায় শুনতাম, বাবা শত্রু পক্ষে।

৮ ডিসেম্বর ১৯৭১ যেদিন কুমিল্লা শহর হানাদার মুক্ত হয়, বিজয়ী মুক্তিযোদ্ধারা শহরে ঢোকে, সেদিনই আমাদের বাগিচাগাঁওয়ের বাসায় শহরের সুশোভিত সেরা বাগানের মাঝখানটায় বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়ে বাবার রাজনীতির বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিদ্রোহ ঘোষণা করি। বাবা নিজেও সেদিন দূরে দাঁড়িয়ে নিঃশব্দে পরাজয় মেনে নেন। 

মঙ্গলবার, ২৩ জুন ২০২০, ০২:১৪

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আজগুবি ডিপার্টমেন্ট: এমপি একরাম

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আজগুবি ডিপার্টমেন্ট: এমপি একরাম

সামাজিকমাধ্যম ফেস বুকে এক ভিডিও বার্তায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে আজগুবি ডিপার্টমেন্ট বলে মন্তব্য করেছেন নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ একরামুল করিম চৌধুরী। দেশের স্বাস্থ্যখাত নিয়ে আক্ষেপ করে এ মন্তব্য করেন তিনি।

 একরামুল করিমের ভিডিও বার্তাটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেছে। ভিডিওতে আওয়ামী লীগের এই নেতাকে অশ্রুসিক্ত চোখেও দেখা গেছে।

রোববার, ২১ জুন ২০২০, ০৪:০৫

আবার সকাল হবে

আবার সকাল হবে

জীবনের শেষ পরিণতি মৃত্যু। একটু জ্ঞান হওয়ার পর থেকেই কথাটা বুঝতে শিখেছি। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত সময়টাই একটি জীবের জীবন। আমার বয়স এখন চুয়াত্তর। সেই হিসাবে বাস্তবতা এবং অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে হয়, আমার জীবন আর বেশিদিন স্থায়ী হবে না। জীবনের শেষ প্রান্তে এসে দেখে গেলাম, পৃথিবীর মানুষ করোনাভাইরাসে কতটা অসহায় হয়ে গেছে। পৃথিবীকে এমন একটা হোঁচট খেতে দেখে খুব কষ্ট হচ্ছে। কীভাবে, কতদিন পরে আমার মৃত্যু হবে তা জানি না; তবে মৃত্যুর আগে কিছুটা দুর্বিষহ জীবন নিয়ে গেলাম। কোথাও কোনো আঘাত বা কাটাছেঁড়া হলে অনেক সময় অনেক যন্ত্রণা হয়। আমেরিকায় হার্টের রিং বসানোর সময় লেনোকসিল হাসপাতালে আমার শরীরে অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণ হয়েছিল। অনেক রক্ত জমে গিয়েছিল তলপেটে। মৃত্যুর হাত থেকে কোনোরকমে বেঁচে গিয়েছিলাম।

সোমবার, ১৫ জুন ২০২০, ০৭:৩৭

সম্মিলিত প্রচেষ্টাই পারে কোভিড যুদ্ধে জয়ী করতে : ডা. আঁখি

সম্মিলিত প্রচেষ্টাই পারে কোভিড যুদ্ধে জয়ী করতে : ডা. আঁখি

পরিবার রেখে হাসপাতালে কোভিড রোগিদের চিকিৎসা দিচ্ছেন ডা. মাকসুদা জাহান আঁখি। কর্মরত আছেন কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে। তিনি যেমন দেখছেন কোভিড নেগেটিভ হয়ে বাড়ি ফেরা রোগি, ঠিক তেমনি দেখছেন মৃত্যু। রোগিদের বাঁচাতেই পরিবার রেখে মাসের পর মাস কাজ করে যাচ্ছেন হাসপাতালে।

রোববার, ১৪ জুন ২০২০, ০৮:২৫

স্বপ্নের দেশ, দুঃস্বপ্নের দেশ

স্বপ্নের দেশ, দুঃস্বপ্নের দেশ

করোনার এই দুঃসময়ে খবর মানেই মন খারাপ করা খবর, সংবাদ মানেই দুঃসংবাদ। তার মাঝেই হঠাত্ করে সারা পৃথিবী থেকে একটা খবর নির্মল শীতল বাতাসের মতো এসে আমাদের সবার হূদয়কে জুড়িয়ে দিয়ে গেল। হঠাত্ করে আমরা আবার মানুষের ওপর বিশ্বাস ফিরে পেতে শুরু করেছি, অনুভব করতে শুরু করেছি আমার দেশ, মুখের ভাষা, গায়ের রং ভিন্ন হতে পারে কিন্তু সারা পৃথিবীতে আমরা সবার আগে এক জন মানুষ। এই পৃথিবীতে আমাদের সবার সমান অধিকার।

শুক্রবার, ১২ জুন ২০২০, ০২:০৯

সর্বশেষ
জনপ্রিয়