ঢাকা, ২০২০-০৫-২৮ | ১৪ জ্যৈষ্ঠ,  ১৪২৭

মৃত-শনাক্ত কমছে যুক্তরাষ্ট্রে

প্রকাশিত: ২১:৫৮, ১৫ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ২১:৫৮, ১৫ এপ্রিল ২০২০

ইউরোপে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমে আসায় একের পর এক দেশ লকডাউন অব্যাহত রেখে সীমিত পরিসরে কর্মকান্ড চালু করছে। করোনাভাইরাস শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যায় নিম্নগতির খবর মিলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকেও। আমেরিকায় যেখানে প্রতিদিনের শনাক্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ছাড়িয়ে যাচ্ছিল তা এখন অনেকটা নিচে নেমে এসেছে। মৃত্যুর সংখ্যা যেখানে দিনপ্রতি ২ হাজারের ওপর উঠে গিয়েছিল তা এখন মোটামুটি দেড় হাজারের ঘরে ওঠানামা করছে। তবে শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যায় সবাইকে ছাড়িয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল রাত সাড়ে ১১টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত বেড়ে হয়েছে ৬ লাখ ১৯ হাজার ৩৩১ এবং মৃত ২৭ হাজার ৮৬ জন। সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরে গেছেন ৪৭ হাজার ৬৯ জন। এদিকে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে শনাক্তের সংখ্যা ২০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। গত ৩১ ডিসেম্বর প্রাদুর্ভাবের পর শনাক্তের সংখ্যা ১০ লাখে পৌঁছাতে সময় নিয়েছিল ৯৩ দিন, সেখানে মাত্র ১৩ দিনে তা দ্বিগুণ হয়ে ২০ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। গতকাল শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মোট শনাক্তের সংখ্যা ছিল ২০ লাখ ৩৫ হাজার ৭৩৭ জন। মোট মৃত ১ লাখ ৩০ হাজার ৮০২ এবং সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফেরা মানুষের সংখ্যা ৫ লাখ ৩ হাজার ৩৮৬ জন। গতকাল এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি ১ হাজার ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদিন মৃতদের তালিকায় আরো রয়েছে- যুক্তরাজ্যে ৭৬১, ইতালিতে ৫৭৮, স্পেনে ৩২৪, বেলজিয়ামে ২৮৩, হল্যান্ডে ১৮৯, সুইডেনে ১৭০, যুক্তরাষ্ট্রে ১১৭, জার্মানিতে ৯৭, ইরানে ৯৪, মেক্সিকোতে ৭৪, ব্রাজিলে ৫৮, সুইজারল্যান্ডে ৫২, কানাডায় ৫১, পর্তুগালে ৩২, রাশিয়ায় ২৮, ফিলিপাইনে ১৪, ভারত ও হাঙ্গেরীতে ১২, রোমানিয়া ও পাকিস্তানে ১১, ইন্দোনেশিয়া, ইউক্রেন ও ডেনমার্কে ১০ জন করে। মৃত্যুর মিছিল ইতালিতে শুরু হলেও তা এখন যুক্তরাষ্ট্রে। সর্বোচ্চ ২৭ হাজার ৮৬ জন সেখানে মারা গেছে যাদের অর্ধেকের বেশিই নিউইয়র্কে। এছাড়া ইতালিতে ২১ হাজার ৬৪৫, স্পেনে ১৮ হাজার ৫৭৯, ফ্রান্সে ১৫ হাজার ৭২৯ এবং যুক্তরাজ্যে ১২ হাজার ৮৬৮ জন মারা গেছে। রাশিয়ার করোনাভাইরাস রেসপন্স সেন্টার জানিয়েছে, দেশটিতে গতকাল নতুন আরো ৩,৩৮৮ জন শনাক্ত হয়েছে। ফলে বৃদ্ধি পেয়ে এর সার্বিক দেশব্যাপী সংখ্যা ২৪,৪৯৯-এ পৌঁছেছে। এতে বলা হয়েছে, গতকাল আরো ২৮ জনের মৃত্যু হওয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯৮ জন। সূত্র : রয়টার্স।
সর্বশেষ
জনপ্রিয়