ঢাকা, ২০২০-০৫-২৮ | ১৪ জ্যৈষ্ঠ,  ১৪২৭

পৃষ্ঠপোষকদের ধরতে না পারলে অভিযানের শুদ্ধতা আসবে না, বললেন রুমিন ফারহানা

প্রকাশিত: ২১:৩৫, ২ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:৩৫, ২ অক্টোবর ২০১৯

বুধবার ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনে প্রচারিত ‘আজকের বাংলাদেশ’ অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘আমরা দেখেছি কি বিভৎস আকারে ক্যাসিনো ব্যবসা চলছে। একেকজন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন সেকেন্ড বা থারর্ড টায়ারের নেতা হাজার কোটি টাকা মালিক হয়েছেন। সিন্দুক মধ্যে টাকা রাখছেন কারণ এতো টাকা কিভাবে ব্যাংকে রাখবেন। কারো ঘরে ৭শ ২০ ভরি সোনাও পাওয়া গেছে কারণ জায়গা কম লাগে। ’ তিনি বলেন, ‘এখানে প্রশ্ন তাদেরকে কারা এতোদিন পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে লালন পালন করেছেন। তাদের তাহলে কি অবস্থা এবং পরের ধাপ এর মূল সংগঠনের নেতাদের কি অবস্থা। আওয়ামী লীগ আজকে ১০ বছর একচ্ছত্রভাবে বিনা ভোটে ক্ষমতায় টিকে আছে। তারপর এমপি, মন্ত্রীদের কি অবস্থা এ প্রশ্নগুলো ধাপে ধাপে চলে আসছে। ’ সংসদ সদস্য ব্যরিষ্টার রুমিন বলেন, একজন খালেদ, জিকে শামীম এবং স¤্রাট তারা কিন্তু অতি ক্ষুদ্র। তাদেরকে ধরে ব্যাপক যে চিত্র তার একটা ধারণা পাওয়া গেছে। কিন্তু এর সাথে যারা জড়িত, যারা তদেরকে তৈরি করেছে তাদের যদি ধরতে না পারেন তাহলে এই অভিযানের কোনো অর্থ দাঁড়ায় না। তিনি বলেন, একজন বা দুজনকে ধরে এটার যে পারপাস বলা হচ্ছে, শুদ্ধি অভিযান এতে শুদ্ধতা আসবে, না কারণ পুরো কাঠামোতে পচন ধরে গেছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নাকের ডগায় এ ঘটনাগুলো ঘটলো তারা এতোদিন কি করেছে। মতিঝিল থানা থেকে মাত্র কয়েকগজ দূরে ৫/৬ টা ক্যাসিনো চললো তারা কি জানে না। ক্যাসিনোর মেশিনগুলো খেলার সামগ্রী হিসেবে দেশে ঢুকে গেলো। এনবিআর বা শুল্ক কর্তৃপক্ষ এরা কি এগুলো দেখেনি।
সর্বশেষ
জনপ্রিয়