ঢাকা, ২০২১-১২-০৯ | ২৪ অগ্রাহায়ণ,  ১৪২৮
সর্বশেষ: 
অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় হস্তক্ষেপ না করার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্র বিচার ১২৩ বছর আগে গ্রেপ্তার গাছ, শেকলে বন্দি আজো ফ্রান্স প্রেসিডেন্টকে চড় মারার মাশুল কতটা? কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত
অডিও ফাঁসের ঘটনায় নায়ক ইমনকে র‌্যাবের ৫ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ

ডা. মুরাদ ও চিত্রনায়িকার সঙ্গে কথোপকথনের একটি ফোনকলের রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় চিত্রনায়ক ইমনকে ৫ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)। মঙ্গলবার (০৭ ডিসেম্বর) রাত ১১টার দিকে ইমন র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে বের হন।
 মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় ইমন র‍্যাব সদর দফতরে পৌঁছান। র‌্যাব সদর দফতরের মিডিয়া শাখার সহকারী পরিচালক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইমরান হেসেন বলেন, অডিও ক্লিপ ফাঁসের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নায়ক ইমনকে ডাকা হয়েছে। তাকে ৫ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

এর আগে, একই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে ইমনকে ডেকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) দুই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে। ডিবির যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানিয়েছেন, প্রয়োজনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সদ্য পদত্যাগপত্র জমা দেওয়া ডা. মুরাদ হাসানকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

চিত্রনায়ক ইমন এবং চিত্রনায়িকা মাহি দু’জনেই এই ফোনালাপ নিয়ে কথা বলেছেন। ইমন বলেন, একজন প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে তো অশালীনভাবে কথা বলতে পারি না। ওনার মতো এত বড় একজন মানুষ ফোন দিলে তো আমি একটু নার্ভাস থাকব, ঠিক না? আমার জায়গা থেকে আমি এটা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেছি।


ডা. মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রজ্ঞাপন

ডা. মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি, প্রজ্ঞাপন

তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) রাতে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

 এর আগে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ থেকে তার পদত্যাগ পত্রখানি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পাঠানো হয়।

 অশালীন ও শিষ্টাচারবহির্ভূত বক্তব্য দেওয়ায় তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

 উল্লেখ্য, সোমবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান- অশালীন, শিষ্টাচারবহির্ভূত ও নারীর প্রতি চরম অবমাননাকর বক্তব্য দেওয়ায় মুরাদ হাসানকে আজকের মধ্যে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:০৮

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ ছাত্রদল করতেন : মির্জা ফখরুল

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ ছাত্রদল করতেন : মির্জা ফখরুল

 তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ শাখা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক ছিল বলে জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
৯০’র ডাকসু ও সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্যের ব্যানারে আয়োজিত এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন তৎকালীন ডাকসুর ভিপি মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান।

ডা. মুরাদকে ভূইফোড় ডাক্তার দাবি করে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি ছাত্র লীগে যোগ দেন। শেম।

ডা. মুরাদ কয়েকদিন আগে ভয়াবহ বক্তব্য দিয়েছেন উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, সেদিন তিনি বলেছেন ‘আমি যা কিছু করছি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই করছি। প্রধানমন্ত্রী সবকিছু জানেন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্পষ্ট জানতে চাই, এই ভয়াবহ উক্তি যদি একজন মন্ত্রী করতে পারে, তাহলে আপনার সরকারের অবস্থান কী আমরা জানতে চাই। উত্তর দিতে হবে। কারণ আপনাকে জড়িয়ে কথা বলা হয়েছে। আমরা তীব্রভাবে এর প্রতিবাদ জানাই। ধিক্কার জানাই।  

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে এই সরকারের সাথে গণতন্ত্রের কোনো সম্পর্ক নেই। এই সরকার জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। যেহেতু তারা রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে। সে কারণে তারা সামাজিক মাধ্যমে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে অত্যন্ত জঘন্য নিকৃষ্ট প্রচার চালানো শুরু করেছে।

বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ফজলুল হক মিলনের পরিচালনায় আলোচনাসভায় আরও বক্তব্য দেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, বিএনপির বিশেষ সম্পাদক ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি ড. আসাদুজ্জামান রিপন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, ডাকসুর সাবেক জিএস বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাবেক ছাত্র নেতা জহির উদ্দিন স্বপন, মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, ডাকসুর সাবেক এজিএস বিএনপি নেতা নাজিম উদ্দিন আলম প্রমুখ।

মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৩৪

নায়ক ইমনকে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদ

নায়ক ইমনকে ডিবির জিজ্ঞাসাবাদ

চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ফোনালাপ ফাঁস হওয়ার ঘটনায় চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৩০

ঠিক কোন কারণে মন্ত্রিত্ব গেল মুরাদ হাসানের?

ঠিক কোন কারণে মন্ত্রিত্ব গেল মুরাদ হাসানের?

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে পদত্যাগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আর এ তথ্য জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বলা হচ্ছে, নৈতিক স্খলনের জন্য মন্ত্রিত্ব গেল তথ্য প্রতিমন্ত্রীর। বেশ কয়েক দিন ধরেই আলোচনার মধ্যে ছিলেন মুরাদ হাসান। সম্ভবত সামাজিক মাধ্যমে ভাইরালের নেশা তাঁকেও পেয়ে বসেছিল। ফলে ধারাবাহিকভাবে ভাইরাল হচ্ছিলেন।

মুরাদ হাসান অনেক ধরনের কথাই বলে আসছিলেন। এখন বড় প্রশ্ন, ঠিক কোন কথার জন্য আসলে তাঁর মন্ত্রিত্ব গেল। তাঁর কোন কথাটা আসলে নৈতিক স্খলনের সমতুল্য? এই প্রশ্ন নিয়ে বিস্তারিত আলোচনায় অবশ্য একটি সমস্যা আছে। তিনি যত ধরনের কথা বলেছেন, তার বড় অংশই প্রকাশযোগ্য নয়। তিনি প্রকাশ্যে, জেনেশুনে যে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, তার অনেক কিছু এতটাই অশ্লীল যে তা একেবারেই অপ্রকাশযোগ্য। আবার চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে যে টেলিফোন আলাপ ফাঁস হয়েছে, সেসব কথাবার্তা প্রকাশযোগ্য নয়। মুরাদ হাসান সেই বিরল ব্যক্তিদের একজন, যাঁর প্রকাশ্য বা গোপন কথাবার্তা, কোনোটাই জনসম্মুখে আনার মতো নয়। সুতরাং আলোচনায় কিছুটা রাখঢাক থাকবে।

১.
নাহিদ নামের এক উপস্থাপকের সঞ্চালনায় প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান বিএনপি নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, তারেক রহমান এবং তাঁর কন্যা জাইমা রহমানকে নিয়ে যা বলেছেন, তা কেবল শিষ্টাচারবহির্ভূত বলা ভুল হবে। বলা যায়, তা ছিল বিকৃত মানসিকতার প্রতিফলন। এই মানসিকতা কেবল যে বক্তা মুরাদ হাসান দেখিয়েছেন তা নয়, উপস্থাপক নাহিদও সমান দোষে দুষ্ট। প্রতিপক্ষ দলের শীর্ষ নেতা–নেত্রীকে বিষোদ্‌গার করা আমাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতির একটি অংশই হয়ে গেছে। কিন্তু সবকিছুকে ছাড়িয়ে গেছেন মুরাদ হাসান।

কিন্তু বিএনপি নেত্রী ও তাঁর পরিবার নিয়ে কথা বলার জন্য কারও পদ যাওয়ার ঘটনা খুবই বিরল। সুতরাং খালেদা জিয়া ও জাইমা রহমানকে নিয়ে মুরাদ হাসানের বক্তব্য নৈতিক স্খলনের মধ্যে পড়বে কি না, সে প্রশ্ন করাই যায়।

২.
চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে টেলিফোনে যে ভাষায় কথা বলেছেন, যেভাবে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, যেভাবে ভয় দেখিয়েছেন, যেসব ইচ্ছা ব্যক্ত করেছেন, তার সবটাকেই নৈতিক স্খলনের মধ্যে আনা যায়। বেশ কিছুদিন আগের এই টেলিফোন কথোপকথন ফাঁস হয়েছে গতকাল রাতে। শুরুতে কণ্ঠ শুনে ব্যক্তিদের পরিচয় অনুমান করতে হয়েছে। পরে অবশ্য অভিনেতা ইমন গণমাধ্যমে স্বীকার করেছেন যে এই কণ্ঠ তাঁর, মাহিয়া মাহি ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের।

সুতরাং সরকার থেকে যে নৈতিক স্খলনের কথা বলা হচ্ছে, সেটা কি এই টেলিফোন আলাপ? নাকি যে রাষ্ট্রীয় বাহিনীর নাম ব্যবহার করা হয়েছে তাদের কারণেই এই নির্দেশ?

৩.
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আজই এক সভায় বলেছেন, মুরাদ হাসান একসময় ছাত্রদল করতেন। পরে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন। বিএনপি বা জামায়াত থেকে ক্ষমতার লোভে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ার অভিযোগ বেশ পুরোনো। বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য ঠিক হলে এর সর্বশেষ সংযোজন মুরাদ হাসান। তাহলে এ কারণেই কি পদ গেল প্রতিমন্ত্রীর?

৪.
আবার ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া এবং শামসুন নাহার হলের ছাত্রলীগ নেত্রীদের সম্পর্কেও কথা বলতে শোনা গেছে। যেমন তিনি বলেছেন, ‘তারা শিষ্টাচারের সংজ্ঞাটা আমাদের শেখাতে চাচ্ছে। তসলিমা নাসরিনের মতো অনেক তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশ আছে, দুঃখ লাগে কোনটা জানেন? এরা আবার জয় বাংলার কথা বলে। এরা ছাত্রলীগ করছে নাকি, এরা আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছে, এরা নাকি আবার নেত্রী ছিল কোনো কোনো হলে। কিন্তু রাতের বেলা এরা নিজেদের হলে থাকতেন না, ঘুমাতেন হোটেলে হোটেলে। কারণ, ফাইভ স্টার হোটেলে থাকার মজা, আর রোকেয়া হল ও শামসুন নাহার হলে থাকাটা কি এক কথা? আমি এর চেয়ে বেশি বললে মিছিল শুরু হয়ে যেতে পারে। আমি আর বেশি কিছু বলব না।’

এই বক্তব্যে দলের নারীনেত্রীরাই ক্ষুব্ধ হয়েছেন, প্রতিবাদও করেছেন। নিজের দলের নেত্রীদের সম্পর্কেই যাঁর এই ধারণা ও মনোভাব, তাঁর সঙ্গে এক টেবিলে বসে দল করা অন্যদের জন্য বেশ কঠিন। এ কারণেই কি চাকরি গেল তথ্য প্রতিমন্ত্রীর?
এর বাইরেও রাষ্ট্রীয় ধর্ম থাকা না–থাকা, একাধিক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকাসহ নানা বিষয়ে ইদানীং অনেক কথা বলেছেন মুরাদ হাসান। এসবও কি কারণ ছিল মন্ত্রিত্ব যাওয়ার?

সুতরাং মুরাদ হাসানের নৈতিক স্খলনের সংজ্ঞাটা জানা যেমন জরুরি, তেমনি ঠিক কী কারণে পদ গেল, তা বোঝাটাও দরকার। নিশ্চয়ই সরকার তা জানাবে। আর এসব বক্তব্যের শাস্তি পদত্যাগের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে কি না, সেটাও জানা প্রয়োজন।প্রথম আলো

মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:২৪

মুরাদকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

মুরাদকে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অসৌজন্যমূলক বক্তব্য দেওয়ায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে আগামীকালের (মঙ্গলবার) মধ্যে মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তার বাসভবনে ডা. মুরাদ হাসানের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে এবং আমি আজ রাত ৮টায় প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে বার্তাটি পৌঁছে দিই।

সম্প্রতি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান এবং তার মেয়ে জাইমা রহমানকে নিয়ে একটি সাক্ষাৎকারে অসৌজন্যমূলক কথা বলেন। এছাড়া এর কিছু পরেই প্রতিমন্ত্রী মুরাদের একটি কথোপকথন ফাঁস হয়, যেখানে তিনি অশ্লীল ভাষায় চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে তার সঙ্গে দেখা করার জন্য বলেন। ফোনে চিত্রনায়ক ইমনকে তিনি বলেন, ঘাড় ধরে যেন মাহিকে তার কাছে নিয়ে যান। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন মহলে ডা. মুরাদের শাস্তির দাবি ওঠে।

এদিকে, তথ্য প্রতিমন্ত্রীর ‘নারী বিদ্বেষমূলক’ বক্তব্যে দল বা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে কি না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সোমবার দুপুরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, এটা তার ব্যক্তিগত মন্তব্য হতে পারে। আমাদের দল বা সরকারের কোনো বক্তব্য বা মন্তব্য নয়। অবশ্যই আমি বিষয়টি নিয়ে, এ ধরনের বক্তব্য কেন সে দিলো, এটা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবো।

এরপরেই আজ রাতে ডা. মুরাদের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কথা জানালেন ওবায়দুল কাদের।

মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:১৯

আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’, সমুদ্রবন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে উপকূলের আরও কাছে এগিয়ে এসেছে। ঝড়ের কেন্দ্রে বাতাসের টানা সর্বোচ্চ গতিবেগ আগের মতোই ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড়টি বঙ্গোপসাগর থেকে ৮০০ কিলোমিটারের বেশি দূরে অবস্থান করছে। এর প্রভাবে সাগর এখন উত্তাল। এজন্য দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। আর নদীবন্দরকে ১ নম্বর নৌ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। যুগান্তর, ইত্তেফাক

ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ এর প্রভাবে চট্টগ্রামে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। শনিবার ভোর থেকে দিনের প্রায় পুরো সময়ে আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিল। চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত এবং

আবহাওয়ার আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজ (শনিবার) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামীকাল (রোববার) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম ও আশেপাশের এলাকাগুলোতে আকাশ আংশিক মেঘলাসহ সাময়িকভাবে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে। বিভিন্নস্থানে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। রাত ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। এ সময় উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ১২ থেকে ১৫ কিলোমিটার, অস্থায়ী বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৩০ থেকে ৪০ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে।

এদিকে আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও আশেপাশের এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদ আরও উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে সকালে ছিল ১ হাজার ৩০ কিলোমিটার দূরে, এখন আছে ১ হাজার ৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ছিল ১ হাজার ৯৫ কিলোমিটার দূরে, এখন ৯৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণপশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ছিল ৮৮৫ কিলোমিটার, এখন আছে ৮৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ছিল ৮৯৫ কিলোমিটার, এখন ৮৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

 এতে বলা হয়, ঝড়ের কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল। এজন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুশিয়ারি সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করার জন্যও বলা হলো।

বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ঘূর্ণিঝড়টির অগ্রবর্তী অংশের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় গভীর সঞ্চালণশীল মেঘমালা সৃষ্টি হচ্ছে এবং উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

 আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান গণমাধ্যমকে জানান, ঝড়ের গতিপথ এখন ভারতের দিকে। সেখানে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে। ঝড়ের প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

 ভারতের আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, জাওয়াদ দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপ হিসেবে রবিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুর নাগাদ ভারতের উড়িষ্যার পুরি উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এরপর আরও দুর্বল হয়ে উড়িষ্যা উপকূল ধরে পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশে আসতে পারে। তখন হয়তো এটি শক্তি ক্ষয়ে নিম্নচাপ বা সুস্পষ্ট লঘুচাপে পরিণত হবে।

রোববার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৫৪

৫০ বছরের মধ্যে ১৫ বছর ধরে নৈরাজ্য চালায় বিএনপি, বললেন জয়

৫০ বছরের মধ্যে ১৫ বছর ধরে নৈরাজ্য চালায় বিএনপি, বললেন জয়

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) রাতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক দীর্ঘ স্ট্যাটাসে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

রোববার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:৪৭

৩ ঘন্টা পর বিমানবন্দরের কার্যক্রম স্বাভাবিক

৩ ঘন্টা পর বিমানবন্দরের কার্যক্রম স্বাভাবিক

শাহজালাল বিমানবন্দরে মালয়েশিয়ার এয়ারলাইন্সের বিমানটিকে সম্পূর্ণ নিরাপদ ঘোষণা করেছে বিমান বাহিনীর বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের প্রধান। সেটিতে কোনো বোমা পাওয়া যায়নি। ফ্লাইটটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে নিরাপদ ঘোষণা করেছে বিমান বাহিনীর বোমা ডিস্পোজাল ইউনিট। বুধবার (১ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে এটিকে নিরাপদ ঘোষণা করা হয়।

 এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউল হক বলেন, ‘একটি তথ্য ছিল। সেটা যাচাই করার জন্য মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তল্লাশি করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি।’

 এর আগে এমএইচ-১৯৬ ফ্লাইটটি কুয়ালালামপুর থেকে ঢাকায় আসে। রাত ১০টার দিকে উড়োজাহাজটি শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এর আগেই খবর পাওয়া যায়, ওই উড়োজাহাজের এক যাত্রীর কাছে বোমা আছে। এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিমানবন্দরে সতর্ক অবস্থান নেন।

বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:০২

দুর্জয়ের মৃত্যুর পর শিক্ষার্থীদের দুর্বার আন্দোলনের ঘোষণা

দুর্জয়ের মৃত্যুর পর শিক্ষার্থীদের দুর্বার আন্দোলনের ঘোষণা

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা চলমান আন্দোলনকে আরও বেগবান করার ঘোষণা দিয়েছে।

ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পেজ ও গ্রুপে মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) রাস্তায় নামার ঘোষণা দেয় তারা। প্রাইভেট ও পাবলিক এসব গ্রুপে শিক্ষার্থীরা দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের রাজপথে নামার আহ্বান জানিয়েছে।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের (নিসআ) ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদী বিভিন্ন আলোচনা দেখা গেছে। তারা সেখানে মঙ্গলবার সকাল থেকে কোন প্রতিষ্ঠান কোথায় জমায়েত হবে তাও জানিয়ে দিচ্ছে।

এরকম এক বার্তায় স্টুডেন্ট ফোরাম ও একরামুন্নেছা স্কুলের শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, "রামপুরায় অনাবিল বাসের চাপায় শিক্ষার্থী মো. মাইনুদ্দীন ইসলাম দুর্জয় হত্যার প্রতিবাদে আমরা আবারও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আগামীকাল ১১টায় মতিঝিল শাপলা চত্তরে একজোট হবো।  সবাইকে অংশগ্রহণ করতে বলা হচ্ছে! বি.দ্র.: সকল কলেজ, স্কুল, ভার্সিটির শিক্ষার্থীরা আমন্ত্রিত।"

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা এভাবে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ করে আন্দোলনের ঘোষণা দিচ্ছে।

মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০৯

রামপুরায় স্কুলছাত্র নিহত : ৯ বাসে আগুন, যা বলছে পুলিশ ,

রামপুরায় স্কুলছাত্র নিহত : ৯ বাসে আগুন, যা বলছে পুলিশ ,

 রাজধানীর রামপুরায় সড়কে মাঈনুদ্দিন নামের এক শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় বাসচালককে আটক করেছে পুলিশ। ঘাতক বাসটিও জব্দ করা হয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে চালকের নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় কোনো সুযোগসন্ধানী উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বাসে আগুন দিয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখবে পুলিশ।

ঘটনাস্থল থেকে খিলগাঁও ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার হাসান আলী সাংবাদিকদের জানান, বাস ভাঙচুরের পাশাপাশি নয়টি বাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে বাসের আগুন নেভায়।
এদিকে, দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে সাংবাদিকদের ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. আ. আহাদ জানান, আমরা যতদূর জানি উত্তেজিত জনতা এসব আগুন ধরিয়েছে। তবে কোনো সুযোগসন্ধানী কেউ দুর্ঘটনাকে কেন্দ্র করে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বাসে আগুন দিয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখবে পুলিশ। এছাড়া কতগুলো বাসে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে তা পরে জানানো হবে।

ডিসি আরও বলেন, আমরা নিহতের ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি বলেছেন তারা ভাঙচুর বা আগুন দেননি। অন্য কেউ এসে এসব করেছে। এ ধরনের ঘটনা কাম্য নয়। সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ ও আনুষ্ঠানিকতা শেষ করার পর সড়কটি খুলে দেওয়া হবে।

এর আগে, সোমবার রাত পৌনে এগারোটার দিকে রামপুরা বাজারের সামনে বাসচাপায় মাঈনুদ্দিনের মৃত্যু হয়। নিহত শিক্ষার্থী একরামুন্নেসা স্কুলের এসএসসি পরীক্ষার্থী।

মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০২

নারীর খাটের নিচে আওয়ামী লীগ নেতা!

নারীর খাটের নিচে আওয়ামী লীগ নেতা!

 গাইবান্ধা সদর উপজেলা আব্দুর রাজ্জাক (৪৭) নামে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে নারীসহ আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী। এ ঘটনায় আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার রাত ১০টার দিকে সদর উপজেলার কুপতলা ইউনিয়নের পূর্ব বেড়াডাঙ্গা আকন্দপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
আব্দুর রাজ্জাক ওই ইউনিয়নের একই গ্রামের মৃত আফতাব হোসেনের ছেলে এবং সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

স্থানীয়রা জানান, ফোনে ওই নারীর সঙ্গে আব্দুর রাজ্জাক প্রায়ই ফোনে কথা বলতেন। রাজ্জাক তাকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে কাজ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলেন এবং দেখা করতে চান। ওই নারীর স্বামী রেজাউন্নবী ঢাকায় কাজ করেন। স্বামী না থাকার সুযোগে রাজ্জাক শনিবার রাত ১০টার দিকে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করেন। স্থানীয় এক ব্যক্তি তাদের কথাবার্তা শুনে অন্যদের জানান। পরে সবাই এসে দরজা খুলে খাটের নিচ থেকে রাজ্জাককে আটক করে হাত-পা বেঁধে ফেলেন।  

এরপর ৯৯৯ এ কল দিয়ে বিষয়টি থানায় জানালে পুলিশ এসে রাজ্জাককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে এ ঘটনায় রবিবার ওই নারী বাদী হয়ে সদর থানায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেন।

সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রেজাউল করিম রেজা জানান, ওই ঘটনা শোনার পর পরই তদন্ত করে আব্দুর রাজ্জাককে দলের সাংগঠনিক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

গাইবান্ধা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, ঘটনাটি শোনার পর পরই পুলিশ সেখানে যায়। এরপর জনতার হাতে আটক হওয়া আব্দুর রাজ্জাককে থানায় নিয়ে আসা হয়।

মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০০

ভাড়া নিয়ে তর্ক করায় চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেওয়া হলো শিক্ষককে

ভাড়া নিয়ে তর্ক করায় চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেওয়া হলো শিক্ষককে

 চট্টগ্রাম নগরীতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় চলন্ত বাস থেকে ফেলে একজন স্কুল শিক্ষককে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। তাঁর পায়ের ওপর দিয়ে চালিয়ে দেওয়া হয় বাস। বর্তমানে গুরুতর আহত অবস্থায় সেই শিক্ষক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

 শনিবার (২৭ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালী থানার পুরাতন রেলস্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের প্রতিবাদ করায় রহমত উল্লাহ নামে ঐ স্কুল শিক্ষককে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বাসের হেলপার। এরপর তার পায়ের ওপর দিয়ে চালিয়ে দেওয়া হয় বাস। এতে ওই শিক্ষকের পা, হাত ও মুখে মারাত্মক জখম হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 আহত রহমত উল্লাহ নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার হাবিবউল্লাহ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। আহত শিক্ষকের সহকর্মীরা জানান, রহমত উল্লাহ সদরঘাট এলাকার পিটিআই (প্রাইমারি ট্রেনিং ইন্সটিটিউট) প্রশিক্ষাণার্থী। অক্সিজেন এলাকার নিজ বাসা থেকে পিটিআই’ এ আসা যাওয়া করতেন। শনিবার সকালে অক্সিজেন এলাকা থেকে বাসে করে পিটিআই যাওয়ার জন্য ওই বাসে উঠেন। বাসের হেলপার ও চালক অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করেন স্কুল শিক্ষক রহমত উল্লাহ। এ নিয়ে চালক ও হেলপারের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। তিনি স্টেশন রোডের বটতলি এলাকায় নেমে যেতে চাইলে তাকে নামতে না দিয়ে পুরাতন রেলস্টেশন এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর হেলপার ধাক্কা দিয়ে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেয়। তার পায়ের ওপর দিয়ে বাস চালিয়ে দেওয়া হয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে মেহেদিবাগস্থ ন্যাশনাল হাসপাতালে ভর্তি করে। রাতে কোতোয়ালী থানার ওসি মো. নেজাম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আহত স্কুল শিক্ষককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চালক-হেলপারকে শনাক্ত করা হয়েছে এবং তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে বলেও জানান।

রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৬

রাত পোহালেই তৃতীয় ধাপের ইউপি ভোট আজ

রাত পোহালেই তৃতীয় ধাপের ইউপি ভোট আজ

রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে। এজন্য সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে ভোটের উপকরণও।

জানা গেছে, তৃতীয় ধাপে এক হাজার সাতটি ইউপি ছাড়াও একই দিনে ১০টি পৌরসভায়ও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে ৩৭টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ করা হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)।

পরিস্থিতি শান্ত রাখতে সতর্ক অবস্থান নিয়েছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। প্রতিটি ইউপিতে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিয়েছে কমিশন।

 প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, আগামী নির্বাচনে আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করব নির্বাচনী সহিংসতা রোধ করার জন্য।

সহিংসতা ঘটতে পারে এমন ‘পকেটগুলো’ চিহ্নিত করে আগাম গোয়েন্দা তথ্য নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে নজরদারি বাড়ানো ও দায়ীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূক ব্যবস্থা নিতে বলেছে ইসি।

 নির্বাচনী পরিবেশ ভালো রাখতে রাজনৈতিক দল, প্রার্থী, সমর্থকসহ সবার সহযোগিতাও চেয়েছেন সিইসি হুদা।

 ইসির যুগ্ম সচিব এস এম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, এক হাজার সাতটি ইউপিতে ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছিল। বিভিন্ন কারণে সাতটির ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

 তৃতীয় ধাপে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ৫৬৯ জন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১০০ জন, সংরক্ষিত আসনের সদস্য পদে ১৩২ জন ও সাধারণ আসনের সদস্য পদে ৩৩৭ জন।

 বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ব্যতীত মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ৫০ হাজার ১৪৬ জন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৪ হাজার ৪০৯ জন, সংরক্ষিত মহিল সদস্য পদে ১১ হাজার ১০৫ জন ও সাধারণ সদস্য পদে রয়েছেন ৩৪ হাজার ৬৩২ জন।

 নির্বাচনে মোট ২ কোটি ১ লাখ ৪৯ হাজার ২৭ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ পাচ্ছেন। ভোটগ্রহণ হবে ১০ হাজার ১৫৯টি ভোটকেন্দ্রের ৬১ হাজার ৮৩০টি ভোটকক্ষে।

 এই ধাপের ভোটে কেন্দ্র রয়েছে ১০ হাজার ১৫৯টি, ভোটকক্ষ ৬১ হাজার ৮৩০টি। ভোটার সংখ্যা দুই কোটি এক লাখ ৪৯ হাজার ২৭। শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে পুলিশ ও আনসারের ২২ জনের ফোর্স রাখা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ, আনসার, বিজিবি, কোস্টগার্ড, র‌্যাব, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসারের মোবাইল ও স্ট্রাইকিং ফোর্স। এছাড়া মাঠে রয়েছেন পাঁচ শতাধিক বিচারিক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 ইতোমধ্যে দুই ধাপের ভোট সম্পন্ন হয়েছে। চতুর্থ ধাপে ৮৪০ ইউপিতে ২৬ ডিসেম্বর ও পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউপিতে ৫ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ হবে।

রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৫৭

হঠাৎ সর্বোচ্চ সতর্কতায় বাংলাদেশ
তিন আন্দোলনকে কেন্দ্র করে গুজবের শঙ্কা

হঠাৎ সর্বোচ্চ সতর্কতায় বাংলাদেশ

পোশাক শ্রমিকদের আন্দোলন, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ এবং খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যকে কেন্দ্র করে গুজব ছড়িয়ে নাশকতা ছড়ানোর আশঙ্কা করছে আইনকৃঙ্খলা বাহিনী। গুজব ছড়িয়ে আইনকৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি করতে একটি চক্র অপতৎপরতায় লিপ্ত। তবে আইনকৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় আন্দোলনকারীরা দ্রুত প্রকৃত ঘটনা জানতে পারায় কোনও অঘটন ঘটেনি। চক্রটি এখনও সুযোগের সন্ধানে রয়েছে। যেকোনও সময় গুজব ছড়িয়ে মানুষকে উত্তেজিত করার চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছে একটি গোয়েন্দা সংস্থা। গুজব ছড়াতে তারা বরাবরের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে বেছে নিয়েছে।

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৪:৪৪

জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা
দেশে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারেক রহমান!

জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে খালেদা

বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপি’র পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছেন খালেদা জিয়া। তারা এখনই তাকে মুক্তি দিয়ে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দিতে যুগপৎ আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। এদিকে মায়ের এমন শারীরিক অবস্থায় তাঁকে দেখতে বড় ছেলে তারেক রহমান বাংলাদেশে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন যুক্তরাজ্য বিএনপির প্রেসিডেন্ট এম এ মালেক।

শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৪:৩৯

নটর ডেম ছাত্রের মৃত্যু: ৩ লাখ টাকায় ময়লার গাড়ি বরাদ্দ নেন হারুন

নটর ডেম ছাত্রের মৃত্যু: ৩ লাখ টাকায় ময়লার গাড়ি বরাদ্দ নেন হারুন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়িচাপায় নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত গাড়ির চালক হারুন মিয়া ওরফে কাইল্লা হারুনকে (৩৭) ধরতে অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

চালক হারুন মিয়া ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বিশেষ ট্রাক পরিচ্ছন্নতাকর্মী। কিন্তু তিনি ট্রাক পরিচ্ছন্নতাকর্মী থেকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে হয়ে ওঠেন ময়লার গাড়িচালক।

ডিএসসিসির একটি সূত্র জানিয়েছে, হারুন ৩ লাখ টাকায় ময়লার গাড়ি বরাদ্দ নেন। গত দেড় বছর ধরে তিনি এভাবে ডিএসসিসির ময়লার গাড়ি চালাতেন। ৩ লাখ টাকায় বরাদ্দ নিলেও তার আয় হতো দ্বিগুণ। এছাড়া তিনি গাড়ির তেল চুরির কারসাজিও করতেন।

ডিএসসিসির সূত্র জানায়, ময়লার গাড়ির জন্য প্রতিদিন বরাদ্দ ১১ লিটার তেলের মধ্যে ৬ লিটার তিনি চুরি করে বিক্রি করে দিতেন। এভাবে প্রতিমাসে ১৮০ লিটার তেল চুরি করে বিক্রি করতেন। এতে তার আয় আরও বাড়তো।

মতিঝিল বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) আ. আহাদ জাগো নিউজকে বলেন, গাড়িটি চালাচ্ছিলেন রাসেল খান। তিনি প্রকৃতপক্ষে ওই গাড়ির চালক নন। আমরা গাড়ির কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে ও গ্রেফতার রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছি, গাড়িটির মূল চালক হারুন।

তিনি আরও বলেন, সিটি করপোরেশনের বরাদ্দ দেওয়া গাড়ির চালক হারুন গাড়িটি চালানোর কথা থাকলেও তিনি না চালিয়ে রাসেলকে দিয়ে চালাচ্ছিলেন। এরই মধ্যে হারুনকে গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুতই তাকে আমরা আইনের আওতায় আনবো। হারুনকে গ্রেফতারের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে কেন রাসেলকে দিয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন।

এদিকে, বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ডিএসসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের জানান, অবৈধভাবে গাড়ি বরাদ্দ নিয়ে তা চালানোয় পরিচ্ছন্নতাকর্মী হারুন মিয়া ও এ কাজে সহযোগিতা করায় পরিচ্ছন্নতাকর্মী আব্দুর রাজ্জাককে কর্মচ্যুত করা হয়েছে।

গত ২৪ নভেম্বর বেলা ১১টা ২০ মিনিটে পল্টন মডেল থানার গুলিস্তান গোলচত্বরের দক্ষিণ পাশে নটর ডেম কলেজের মানবিক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র নাঈম হাসান (১৮) রাস্তা পার হওয়ার সময় পূর্ব দিক থেকে আসা ঢাকা দক্ষিণ সিটির একটি ট্রাক (রেজিস্ট্রেশন নম্বর ঢাকা মেট্রো-শ ১১-১২৪৪) বেপরোয়া গতিতে ময়লা নিয়ে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে দেয়।

এতে নাইমের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত জখম হয়। স্থানীয়রা ও পুলিশ তাকে উদ্ধার করে দ্রুত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) নেওয়ার পর জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুপুর পৌনে ১২টায় তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

দুর্ঘটনা ঘটিয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় ট্রাকের চালক রাসেল খান ও গাড়ির ভেতরে থাকা পরিচ্ছন্নতাকর্মী গোলাম রব্বানী ও বেলালকে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের আওয়ামী লীগ অফিসের পূর্ব প্রান্ত থেকে আটক করা হয়।

সেখান থেকে পুলিশ তাদের হেফাজতে নেয় ও ময়লার গাড়ি জব্দ করে। মরদেহের সুরতহাল প্রতিবেদন ও ময়নাতদন্ত শেষে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহতের বাবা শাহ আলম দেওয়ান বাদী হয়ে এ ঘটনায় মামলা করেছেন।

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৪:০০

গাড়ির স্টিয়ারিং কাদের হাতে

গাড়ির স্টিয়ারিং কাদের হাতে

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) নিজস্ব যানবাহন আছে ৬০৯টি। চালক আছে মাত্র ১৭৩ জন। তাহলে বাকি গাড়িগুলো চালায় কারা? বহিরাগত, মশককর্মী, মালী, ক্লিনার, সুইপার, এমএলএসএস পদধারী বা বহিরাগত চালকরাই এসব গাড়ির চালক। এদের না আছে ভারী যান চালানোর লাইসেন্স, না আছে হালকা যান চালানোর লাইসেন্স, না আছে কোনো প্রশিক্ষণ। নামকাওয়াস্তে স্টিয়ারিং ধরা শিখেই তারা ডাম্প ট্রাক, কম্প্যাক্টর বা পে-লোডারের মতো ভারী যানবাহনের চালক বনে গেছে। তাদের দিয়েই দিনের পর দিন, বছরের পর বছর চালানো হচ্ছে অসংখ্য ভারী যানবাহন।

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৫০

কৃষকের ধানের মণ ৪৩ কেজিতে, ব্যবসায়ীর সাড়ে ৪০

কৃষকের ধানের মণ ৪৩ কেজিতে, ব্যবসায়ীর সাড়ে ৪০

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের ধানমহল। ঐতিহাসিক ধানের বাজার। কথিত আছে, বাজারটির যাত্রা শুরু ব্রিটিশ আমলে। সাধারণ কৃষকরা নিজেদের শ্রমে-ঘামে ফলানো ধান এখানে বিক্রি করতে আসেন। তবে শতাব্দীপ্রাচীন ধানমহলে অসাধু সিন্ডিকেটের মহাজনদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন সাধারণ কৃষকরা। ধানের ওজনে কারসাজি করে দিনের পর দিন ঠকানো হচ্ছে তাদের। কৃষকদের অসহায়ত্বের সুযোগ নিয়ে ঠকিয়ে যাচ্ছেন সিন্ডিকেটের মহাজনরা।

সরেজমিনে হালুয়াঘাটের ধানমহল ঘুরে জানা গেছে, এখানে কৃষক যদি ৪০ কেজি ধান বিক্রি করেন তাহলে তাকে ৩৭ কেজির দাম দেওয়া হয়। কৃষক যদি মহাজনের কাছে ৪৩ কেজি ধান দেন, তবেই তিনি এক মণের দাম পান। ফলে প্রতি মণে তিন কেজি ধানের দাম পাচ্ছেন না কৃষক। প্লাস্টিকের বস্তার ‘ওজন’র কথা বলে কৃষকের কাছ থেকে তিন কেজি ধান বেশি নেওয়া হচ্ছে। অথচ বাজারে প্রচলিত একটি প্লাস্টিকের বস্তার ওজন ২০০-৩০০ গ্রামের বেশি হওয়ার কথা নয়।

আমরা যদি ৪০ কেজির বস্তায় মাইপা নিয়া আসি, তাহলে ওনারা (মহাজন) আমাদের ৩৭ কেজির দাম দেন। ওনারা বলেন যে, প্রতি মণে তিন কেজি বেশি দিতে হবে। যদি না দেই তাহলে ওনারা ধান কিনবেন না। এই বাজারের প্রতিটা ব্যবসায়ী কৃষকের সঙ্গে এমন করেন। আমরা প্লাস্টিকের বস্তায় ধান বিক্রি করি। তারপরও প্রতি মণে আমাদের তিন কেজি ধান বেশি দিতে হয়। এ নিয়ে ইউএনও স্যার জরিমানা করেছেন, তারপরও এরা থেমে নেই

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কৃষক মণে ৪০ কেজি নিতে বললে কোনো ব্যবসায়ী তার কাছ থেকে ধান কেনেন না। অগত্যা বাধ্য হয়েই কৃষক এক মণের দাম পেতে বাড়তি তিন কেজি ধান দিচ্ছেন ব্যবসায়ীদের। এই বঞ্চনায় ক্ষুব্ধ ভুক্তভোগী কৃষকরা। তারা এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতিকার চেয়েছেন।

হালুয়াঘাট রুস্তম পাড়ার কৃষক নূরে আলম জাগো নিউজকে বলেন, ‘হালুয়াঘাট ধানমহলে প্রতিদিনই ধান কেনাবেচা হয়। আমরা কৃষক এখানে ধান বিক্রি করি। এখানে ৪৩ কেজিতে এক মণ ধরে বিক্রি করি। ৪০ কেজিতে মণ হলেও আমরা ৪৩ কেজি ধান মহাজনকে দেই, তবেই এক মণের দাম পাই।’

এ বিষয়ে কোনো প্রতিবাদ করেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা যদি ৪০ কেজির বস্তায় মাইপা নিয়া আসি, তাহলে ওনারা (মহাজন) আমাদের ৩৭ কেজির দাম দেন। ওনারা বলেন যে, প্রতি মণে তিন কেজি বেশি দিতে হবে। যদি না দেই তাহলে ওনারা ধান কিনবেন না। এই বাজারের প্রতিটা ব্যবসায়ী কৃষকের সঙ্গে এমন করেন। আমরা প্লাস্টিকের বস্তায় ধান বিক্রি করি। তারপরও প্রতি মণে আমাদের তিন কেজি ধান বেশি দিতে হয়। এই নিয়ে ইউএনও স্যার জরিমানা করেছেন, তারপরও এরা থেমে নেই। কৃষক হিসেবে আমার দাবি, ধান আমাদের কষ্টের ফসল, ধান ফলাতে অনেক কষ্ট করি, ধানগুলো যদি সঠিক মাপে বিক্রি করতে পারি, তাহলে অর্থনৈতিকভাবে আমরা উপকৃত হতাম। আমরা মণে ৪০ কেজি ধান দিতে চাই।’

হালুয়াঘাটের ধানমহল থেকে প্রতিদিন ১৬ থেকে ২০ ট্রাক ধান দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যায়। বৃহস্পতিবার ধানমহল জমে ওঠে বেশি। সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে ধানের যে দাম মিলছে, তাতে খুশি কৃষক। আমনের মৌসুমে নভেম্বরজুড়েই জমজমাট থাকে এ ধানমহল। এ বছর প্রতি মণ ব্রি ৫৯ ধান এক হাজার ৫০ থেকে ১ হাজার ১০০ টাকা, প্রতি মণ রঞ্জিত ধান এক হাজার, ব্রি ৫১ ধান ৯৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এই বাজারে ৪৩ কেজিতে মণ ধরে। তারা ৪৩ কেজিতেই নেয়। তারা একটা সমিতি বানিয়ে আইন করে নিয়েছে। পাবলিক যা আছে, সবার কাছ থেকেই নেয়। আমরা বলি ৪০ কেজি মণে ধান নাও, তখন বলে নেওগা তোমার ধান

এছাড়া প্রতি মণ মোটা সোনালি ৯৪০ ও প্রতি মণ স্বর্ণা-৫ ধান ৯৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এই বাজারে স্বর্ণা-৫ ধানকে স্থানীয়রা মশুরি ধান নামে ডাকেন। ধানের দাম বাড়তি হলেও মণপ্রতি তিন কেজি ধান বেশি দেওয়ায় প্রতিনিয়ত ঠকছেন কৃষক।

কৃষকের ধানের মণ ৪৩ কেজিতে, ব্যবসায়ীর সাড়ে ৪০ কেজিতে

হালুয়াঘাটের ভুক্তভোগী কৃষক হারুণ অর রশিদ বলেন, ‘এই বাজারে ৪৩ কেজিতে মণ ধরে। তারা ৪৩ কেজিতেই নেয়। তারা একটা সমিতি বানিয়ে আইন করে নিয়েছে। পাবলিক যা আছে, সবার কাছ থেকেই নেয়। আমরা বলি ৪০ কেজি মণে ধান নাও, তখন বলে নেওগা তোমার ধান।’

এ বিষয়ে অবশ্য হালুয়াঘাট ধান ব্যবসায়ী সমিতির দাবি ভিন্ন। সমিতির সভাপতি হুমায়ুন কবীর মানিক জাগো নিউজকে বলেন, ‘এই বাজারে ৪০ কেজি মণ হিসেবে ধান বিক্রি হয়। কৃষকের কাছ থেকে ধান বেশি নেওয়া হয় না। কোনো ব্যবসায়ী যদি এমন কাজ করেন, তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিয়ে থাকি। কোনো কৃষক যদি আমাদের নিকট কোনো অভিযোগ করেন, তবে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নেবো।’

কৃষকের ধানের মণ ৪৩ কেজিতে, ব্যবসায়ীর সাড়ে ৪০ কেজিতে

আবার কৃষকের কাছ থেকে নেওয়া একই ধান যখন ব্যবসায়ী বা আড়তদাররা মিল মালিকের কাছে বিক্রি করছেন, তখন দুই মণে এক কেজি ধান বেশি দিচ্ছেন।

হালুয়াঘাট ধানমহলের আড়তদাররা শেরপুরের অনেক মিল মালিকের কাছে ধান বিক্রি করেন। তার মধ্যে অন্যতম শেরপুরের ওয়াহেদ অটোরাইস মিল। রাইস মিলটির মালিক মো. হায়দার আলী জাগো নিউজকে বলেন, ‘আড়তদাররা আমাদের দুই মণ ধানে ঢলন হিসেবে এক কেজি বেশি দিয়ে থাকেন। এখন কৃষকের ক্ষেত্রে যদি ৪৩ কেজিতে মণ ধরা হয় তবে এটা অন্যায়।’

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ব্যবসায়ীদের এ কারসাজির কথা জেনে একবার হালুয়াঘাট উপজেলার ধারা বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযানে এসেছিল। তখন ওজনে কারসাজির প্রমাণ পেয়ে পাঁচ ধান ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তারা হলেন ধারা বাজারের সাইদ ট্রেডার্সের আ. হাই, তাসিন এন্টারপ্রাইজের বিপুল ইসলাম, ধান ব্যবসায়ী রেজাউল করিম, হুমায়ূন কবির ও হালুয়াঘাটের ইমন ট্রেডার্সের আবদুস সালাম।

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৬

যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে ৪.২ বিলিয়ন পাউন্ড বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের

যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে ৪.২ বিলিয়ন পাউন্ড বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের

 যুক্তরাজ্যের অর্থনীতিতে প্রতি বছর প্রায় ৪.২ বিলিয়ন পাউন্ড সহযোগিতা করছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের রেস্টুরেন্ট ব্যবসা। দেশটিতে চতুর্থ বৃহৎ শিল্প হিসেবে রূপ পেয়েছে বাংলাদেশিদের ‘কারি’ ব্যবসা। বর্তমানে প্রায় ১২ হাজার রেস্টুরেন্টে ৭৫ হাজার কর্মী কাজ করছেন, যার প্রায় ৯৫ ভাগই বাংলাদেশি। তবে স্টাফ সংকটসহ নানা কারণে প্রায় ৩ হাজার রেস্টুরেন্ট এরই মধ্যে বন্ধ হয়েছে। করোনাকালেও নানামুখী সমস্যায় ছিলেন বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা। এখনো সংকট কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হয়নি। গত বছরের প্রথম দিকে ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ারের গাফতের কিপাক্স তান্দুরি বন্ধ করে দেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক মোহাম্মদ জাকারিয়া। টানা দুই বছর চালানোর পর স্টাফ সংকটের কারণেই তিনি লাভজনক থাকা রেস্টুরেন্ট বন্ধ করতে বাধ্য হন। ওই এলাকায় আরও কয়েকজন রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীও একই উদ্যোগ নেন। এ প্রসঙ্গে মোহাম্মদ জাকারিয়া দুঃখ প্রকাশ করে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘আমার একটি লাভজনক ব্যবসা ছিল রেস্টুরেন্ট। কিন্তু স্টাফ না থাকায় আমি ব্যবসা বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছি।’ যুক্তরাজ্যের রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, বর্তমানে রেস্টুরেন্টগুলোতে শেফ ও স্টাফ সংকট চরমে। যুক্তরাজ্যের লন্ডনসহ বিভিন্ন শহরে বর্তমানে আরও অন্তত ২৫-৩০ হাজার কর্মী প্রয়োজন। কিন্তু নানা জটিলতায় বাংলাদেশ থেকে কর্মী আনা যাচ্ছে না। যুক্তরাজ্যে এ মুহূর্তে ক্যাটারিং ও হসপিটালিটি বিষয়ে বাংলাদেশি দক্ষ জনশক্তির অভাব আছে। এ কারণে অনেক রেস্টুরেন্ট মালিক ব্যবসা গুটিয়ে ফেলার চিন্তাভাবনা করছেন। যার সুযোগ নিচ্ছে ভারত ও শ্রীলঙ্কা। তারা দেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি রপ্তানি করছে। এদিকে যুক্তরাজ্যে স্থায়ী বসবাসরত বাংলাদেশিদের তৃতীয় ও চতুর্থ প্রজন্মের কেউই রেস্টুরেন্টে কাজ করছেন না। তারা লেখাপড়া শেষ করে অন্যান্য পেশায় যোগ দিচ্ছেন। এটা অবশ্য ভালো দিক। এ ছাড়া স্টুডেন্ট ভিসায় এসে কেউই স্থায়ীভাবে রেস্টুরেন্টে কাজ করছেন না। দীর্ঘ সময় তারা রেন্টুরেন্টে কাজ করতে চান না। বাংলাদেশ থেকে রেস্টুরেন্টে কাজ করার জন্য জনবল নিয়োগে ওয়ার্ক পারমিটও পাওয়া যাচ্ছে না।

বাংলাদেশ ক্যাটারাস অ্যাসোসিয়েশন-ইউকের সিনিয়র সহসভাপতি অলি খান (এমবিই) বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘যুক্তরাজ্যে বর্তমানে ১২ হাজার রেস্টুরেন্ট ও টেকওয়ে আছে। তবে দিন যতই যাচ্ছে, শেফ ও স্টাফ সংকট বাড়ছে। নানা জটিলতায় নতুন করে স্টাফ নিয়োগ দেওয়া যাচ্ছে না। তাই স্টাফ সংকটের কারণে করোনাকালে বেশ কিছু রেস্টুরেন্ট বন্ধ হয়ে যায়। এই সংকট কাটাতে যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশ সরকারকে যৌথভাবে সহযোগিতা করতে হবে। কারণ ব্রিটিশ ও বাংলাদেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে রেস্টুরেন্ট খাত ব্যাপক ভূমিকা রাখছে।’ খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, বাংলাদেশি রেস্টুরেন্টগুলোতে বাংলা খাবারের পাশাপাশি থাই, চায়নিজ, ইন্ডিয়ান, ইতালীয়সহ বিভিন্ন দেশের সুস্বাদু খাবার পাওয়া যায়। ভারত, পাকিস্তানসহ দক্ষিণ এশিয়ার মানুষ এখন বাংলা খাবারে ঝুঁকছেন। ইংলিশ ইউরোপীয়দের অনেক আগে থেকেই পছন্দের খাবার তালিকায় বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট। তারা সপরিবারে এসে বাংলাদেশি রেস্টুরেন্টে খাবার খাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। বাংলাদেশ থেকে আগত হাফিজুল ইসলাম নামে লিডস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানান, রেস্টুরেন্টে বিকাল ৪টা থেকে টানা রাত ১১টা পর্যন্ত সময় দিতে হয়। এর বাইরেও প্রস্তুতি নিতে এবং যাতায়াতে আরও দুই ঘণ্টা সময় ব্যয় হয়। একজন শিক্ষার্থী এত দীর্ঘ সময় বাইরে থাকলে তার পড়াশোনার ক্ষতি হয়। অন্য কোনো কাজও করতে পারেন না। তাই অনেক শিক্ষার্থী এখন নিজের সময় সুযোগে ট্যাক্সি চালাচ্ছেন। আবার কেউ খন্ডকালীন অন্য পেশায়ও কাজ করছেন। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রেস্টুরেন্ট ব্যবসার স্টাফ সংকট কাটাতে যুক্তরাজ্য সরকারের মাইগ্রেশন অ্যাডভাইজরি কাউন্সিলের (ম্যাক) সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার যৌথভাবে কাজ করতে পারে। এ ছাড়া যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের হসপিটালিটি ও ক্যাটারিং সার্ভিস বিভাগের সঙ্গেও বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় বা ভকেশনাল প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করলে অনেক দক্ষ কর্মী নিয়োগ দেওয়া সম্ভব। গ্রেট ব্রিটেনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে বাংলাদেশের পাঁচ তারকা, চার তারকা বা তিন তারকা হোটেলগুলোতেও যৌথভাবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে। তাতে অনেক বাংলাদেশি যুক্তরাজ্যে কাজ করার সুযোগ পাবে। জানা যায়, কর্র্মী নিয়োগে ওয়ার্ক পারমিট পাওয়ার ব্যাপারে যুক্তরাজ্য সরকার বেশ কিছু শর্ত জুড়ে দিয়েছে। কোনো স্টাফকে ন্যূনতম ৩০ হাজার পাউন্ড বার্ষিক বেতন দিতে হবে। কর্মীর থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। তাকে ইংরেজি জানতে হবে। কর্মী নিয়োগে অন্তত ৩ বছরের চুক্তি করতে হবে। রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাংলাদেশ থেকে একজন অদক্ষ স্টাফকে এসব শর্ত মেনে আনলে তাতে ব্যবসা পোষানো যায় না। তাই ব্রিটিশ সরকার যদি একটু শর্ত শিথিল করে দেয়, তাহলে বাংলাদেশ থেকে আরও কিছু কর্মী নিয়োগ দেওয়া সম্ভব। নইলে দিন দিন আরও হুমকিতে পড়বে রেস্টুরেন্ট ব্যবসা। এতে ব্রিটিশ সরকারেরও রাজস্ব কমবে। গ্রেটার সিলেট ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার কাউন্সিল-ইউকের চিফ চ্যারিটি কো-অর্ডিনেটর এম মোনসব আলী (জেপি) বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ব্রিটেন প্রবাসীদের বড় অবদান আছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ও ব্রিটেন প্রবাসীরা বাংলাদেশকে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছেন। মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী প্রথম ফ্লাইট চালু হয় লন্ডন থেকে। তাই বাংলাদেশ সরকারেরও উচিত, যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া। বর্তমানে রেস্টুরেন্টগুলোতে যে স্টাফ সংকট আছে তাতে বাংলাদেশ সরকারও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারে। শুধু রেস্টুরেন্টেই নয়, সব সেক্টরে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে। যুক্তরাজ্য সরকারের বিভিন্ন সেক্টরে দক্ষ লোকবল প্রয়োজন। তা আমাদের সরকার খুঁজে বের করে সেই সব সেক্টরে জনশক্তি রপ্তানি করতে পারে।’ রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী বেঙ্গল ভার্সারির স্বত্বাধিকারী মল্লিক দবির মিয়া বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় বাংলাদেশ এখন নেতৃত্বের আসনে। স্টাফ সংকটে এটা এখন ধরে রাখা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। যুক্তরাজ্য জুড়েই এখন রেস্টুরেন্টগুলোতে দক্ষ ওয়েটার ও শেফ সংকট বিরাজ করছে। স্টাফ সংকটে পূর্ব লন্ডনসহ কয়েকটি শহরে বেশ কিছু রেস্টুরেন্ট এরই মধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে। ব্রিটিশ সরকার কিছু শর্ত শিথিল করে ওয়ার্ক পারমিট দিলেই বাংলাদেশ থেকে লোকবল নিয়োগ করা যেতে পারে। এ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারকেও কাজ করতে হবে।’

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২২

দুজন কর্মচ্যুত, একজন সাময়িক বরখাস্ত
নটর ডেম কলেজছাত্রের মৃত্যু:

দুজন কর্মচ্যুত, একজন সাময়িক বরখাস্ত

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির চাপায় ঢাকা নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হওয়ার ঘটনায় দুজনকে কর্মচ্যুত ও একজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে দায়িত্বহীনতার অভিযোগ আনা হয়েছে। ডিবিসি টিভি

 বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) রাতে সংস্থাটির মুখপাত্র ও জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত এক দপ্তর আদেশ পাঠান।

 কর্মচ্যুত ব্যক্তিরা হলেন পরিচ্ছন্নতাকর্মী মো. হারুন মিয়া ও মো. আবদুর রাজ্জাক। এ দুজন দৈনিক মজুরি ভিত্তিতে কাজ করছিলেন। তারা করপোরেশনের স্থায়ী কর্মী নন। প্রথম আলো

আর সাময়িক বরখাস্ত হওয়া কর্মী হলেন গাড়িচালক (ভারী) মো. ইরান মিয়া। নাঈম হাসানকে চাপা দেওয়া গাড়িটি ইরান মিয়ার অনুকূলে বরাদ্দ ছিলো। তিনি করপোরেশনের নিয়োগপ্রাপ্ত গাড়ির চালক। তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলাও করা হয়েছে।

জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের জানান, অবৈধভাবেই গাড়ি বরাদ্দ গ্রহণ করে তা চালানোয় পরিচ্ছন্নতাকর্মী মো. হারুন মিয়া ও গাড়ি চালানোর কাজে সহযোগিতা করায় পরিচ্ছন্নতাকর্মী মো. আবদুর রাজ্জাককে কর্মচ্যুত করা হয়েছে।

 দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের একটি সূত্র বলছে, নাঈম হাসানকে চাপা দেওয়ার সময়ে গাড়িতে আরো তিনজন শ্রমিক ছিলেন। তারা হলেন রব্বানী, বিল্লাল ও রাসেল। তারা বাইরের শ্রমিক ছিলেন।

 গতকাল বুধবার ঢাকার কামরাঙ্গীরচরের বাসা থেকে আরামবাগের নটর ডেম কলেজের উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলো ওই কলেজেরই দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী নাঈম হাসান (১৭)। তবে অন্য দিনগুলোর মতো সে কলেজে পৌঁছাতে পারেনি, ক্লাসে বসতে পারেনি। গুলিস্তানে রাস্তা পার হওয়ার সময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির চাপায় মৃত্যু হয় তার। দুপুর পৌনে ১২টার দিকে গুলিস্তান হল মার্কেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। বাংলানিউজ ২৪

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হল মার্কেট মোড়ে বায়তুল মোকাররমগামী দক্ষিণ সিটির একটি ময়লার গাড়ি (কমপেক্টর) মোড় ঘুরে নাঈমকে প্রথমে ধাক্কা দেয়। এতে সে পড়ে যায়। এরপর গাড়িটি না থেমে তাকে চাপা দেয়।

 গুরুতর আহত নাঈমকে পুলিশ ও পথচারীরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেওয়ার পরই তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। ঢাকা পোস্ট

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৮

হঠাৎ আইডিয়াল কলেজ বন্ধ ঘোষণায় বিব্রত শিক্ষার্থীরা

হঠাৎ আইডিয়াল কলেজ বন্ধ ঘোষণায় বিব্রত শিক্ষার্থীরা

রাজধানীর আইডিয়াল কলেজ হঠাৎ বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার রাতে কলেজ বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়। 

আইডিয়াল কলেজ অধ্যক্ষ সূত্রে জানানো হয়, ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা পরবতী বিশ্রামের জন্য আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে ২৫ তারিখ ক্লাস বন্ধ থাকবে। ২৭ তারিখ সকাল ৯টা থেকে যথারীতি ক্লাস চলবে।

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৩৪

তালাক দেওয়া স্ত্রীকে আড়াই বছর ধর্ষণ, ৩০ বছর কারাদণ্ড স্বামীর

তালাক দেওয়া স্ত্রীকে আড়াই বছর ধর্ষণ, ৩০ বছর কারাদণ্ড স্বামীর

 

শেরপুরে তালাকের পরও তা গোপন রেখে সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগে ধর্ষণের মামলায় শাহ আলী (৪৪) নামে সাবেক স্বামীকে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। একইসঙ্গে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। মঙ্গলবার দুপুরে একমাত্র আসামির অনুপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. আখতারুজ্জামান।

অভিযুক্ত শাহ আলী শ্রীবরদী উপজেলার গড়জরিপা এলাকার কৃষক আবু বকরের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বিয়ের কিছুদিন পর থেকে যৌতুক দাবি করে শাহ আলী স্ত্রীকে ব্যাপক নির্যাতন করতেন। যৌতুক না পেয়ে ২০১২ সালের ১৩ মে শাহ আলী স্ত্রীকে তালাক দেয়। কিন্তু তালাকের ঘটনাটি সে গোপন রেখে স্ত্রীর সঙ্গে দৈহিক মেলামেশা এবং নির্যাতন অব্যাহত রাখে। নির্যাতন সইতে না পেরে ২০১৪ সালের ১৪ নভেম্বর  শেরপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে শাহ আলীর বিরুদ্ধে স্ত্রী একটি মামলা করেন। ওই বছর ৪ ডিসেম্বর আদালতে হাজির হয়ে শাহ আলী কাগজ-পত্র জমা দিয়ে বলেন- তিনি স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন ২০১২ সালের ১৩ মে। সুতরাং তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা। পরে জামিন নিয়ে তিনি এলাকা ত্যাগ করেন। গত ছয় বছর তার কোনো হদিস নেই।

পরে আদালতের মাধ্যমে তালাকের কথা জেনে শাহ আলীর বিরুদ্ধে তার সাবেক স্ত্রী ধর্ষণের অভিযোগ এনে একই আদালতে ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারী পৃথক আরেকটি মামলা করেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়- প্রতারণা করে দীর্ঘ আড়াই বছর শাহ আলী বিভিন্ন সময় তাকে ধর্ষণ করেছে। ওই মামলায় শাহ আলী, তার বাবা-মাসহ ৪ জনকে আসামি করা হয়।

শ্রীবরদী থানার এস আই আবুল কালাম তদন্ত শেষে একই বছরের ৮ জুন চার জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগ গঠন হলে ট্রাইব্যুনাল ৩ জনকে অব্যাহতি দেয় এবং প্রধান আসামি হিসেবে শাহ আলীর বিচার শুরু হয়। মামলার বিচার কাজ চলাকালে বাদী- ভিকটিম, চিকিৎসক ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৯ জন সাক্ষী দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের পিপি অ্যাড. গোলাম কিবিরয়া বুলু বলেন, আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ২৩ নভেম্বর সোমবার দুপুরে শেরপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. আখতারুজ্জামান আসামি শাহ আলীকে ৩০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ৬ মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন।

এ রায়কে একটি ঐতিহাসিক রায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ধর্ষণকারীর বিরুদ্ধে এ রায় সমাজে ব্যাপক প্রভাব ফেলবে। এ ছাড়া ওই আসামির বিরুদ্ধে যৌতুকের জন্য নির্যাতনের যে মামলাটি রয়েছে সেটি অল্প কিছুদিনের মধ্যে আদেশ হবে।

 

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৩২

এবার ইডেন কলেজের ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি বাস চালকের

এবার ইডেন কলেজের ছাত্রীকে ধর্ষণের হুমকি বাস চালকের

 হাফ ভাড়া দেওয়ায় বেগম বদরুন্নেসা সরকারি কলেজের এক ছাত্রীকে বাসের চালক এবং হেলপার প্রকাশ্যে ধর্ষণের হুমকির রেশ কাটতে না কাটতেই ইডেন মহিলা কলেজের আরেক ছাত্রীকে একই হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রী নারীদের অধিকার নিয়ে কাজ করা জাস্টিস ফর উইমেন বাংলাদেশ এর কাছে অভিযোগ করেও সমাধান পাননি। এ নিয়ে সাত কলেজের ফেসবুক গ্রুপে অসন্তোষ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

ওই ছাত্রী বলেন, সোমবার ঢাকা কলেজে আমার পরীক্ষা ছিলো। যেটি ছিলো সম্মান ৩য় বর্ষের শেষ পরীক্ষা। পরীক্ষা শেষ করে যখন আনসার ক্যাম্পে (মিরপুর-১) নেমে পড়ি। নামার পর রাস্তা পার হই। এ সময় আমি ‘পরিস্থান পরিবহন লিমিটেড’ নামে একটি চলন্ত বাস অতিক্রম করি। রাস্তা পার হওয়ার পর আমি আইল্যান্ডে দাঁড়াই। ইতোমধ্যে বাসও আমাকে ক্রস করে।একটু পর আমার অদূরে বাসটি গতি কমিয়ে দাঁড়ায়। এসময় আমি ছাড়াও একটু দূরে একটা ছেলে ছিলো। হঠাৎ বাসের চালক জানালা দিয়ে মাথা বের করে বলতে লাগলো, তোরে একা পাইলে…। চালক কয়েকবার একই কথা বলতেই লাগলো। কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাসটি গতি বাড়িয়ে চলে গেল।

তিনি আরও বলেন, আমি বাসের নাম্বারটা নোট করে রাখি।

আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহীনির সাহায্য কেন নেননি জানতে চাইলে এই শিক্ষার্থী জানান, আমি পরীক্ষা দিয়েই ফিরছিলাম। ৯৯৯ এ কল দেওয়ার চিন্তা করেছিলাম। কিন্তু আমার কাছে মোবাইল ছিল না। পশেও লোক ছিল না।

থানার অভিযোগ না করার বিষয়ে জানতে চাইলে এই শিক্ষার্থী জানায়, আমি থানায় অভিযোগ করিনি। বাসায় এসে বন্ধুদের সঙ্গে আলাপ করি। আমি বিষয়টি মেনে নিতে পারছিলাম না। আমি কোনো কিছুই ওনাকে করিনি। ভাড়া নিয়েও কিছু হয়নি। যেহেতু এ বাসে আমি যাতায়াতও করিনি। আমাদের ক্যাম্পাসের রুটেরও বাস ‘পরিস্থান’ নয়। পরে আমি নেট ঘাঁটাঘাঁটি ‘জাস্টিস ফর উইমেন বাংলাদেশ’র কাছে অভিযোগ করি। আমি তাদের মেসেঞ্জারে লিখিত অভিযোগ জানাই। এর র তাদের নাম্বারে ফেন আবারও অভিযোগ করি। কিন্তু সহযোগিতা পাইনি।

তবে এ বিষয়ে জাস্টিস ফর উইমেন এর কারো মন্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।-দেশ রুপান্তর

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৭

মধ্যরাত থেকে দেশজুড়ে রেড অ্যালার্ট জার:দৈনিক সমকাল

মধ্যরাত থেকে দেশজুড়ে রেড অ্যালার্ট জার:দৈনিক সমকাল

মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকে এ রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এরপরই পুলিশ, র্যা বসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সব ইউনিটে বাড়তি সতর্কতা নেওয়া শুরু হয়। এমনকি পুলিশের দায়িত্বশীল যেসব কর্মকর্তা ছুটিতে ছিলেন, তাও বাতিল করা হয়েছে। তাদের দ্রুত নিজ নিজ কর্মস্থলে ফেরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র বলছে, চিকিৎসার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর দাবি ঘিরে কেউ যেন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে না পারে, সে লক্ষ্যে দেশব্যাপী নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য সংকট নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও গুজব বা অসত্য তথ্য ছড়ানোর কারণে বিশৃঙ্খলার বিষয়টিতেও নজর রাখা হচ্ছে।

দেশের সব থানাসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর স্থাপনা ঘিরে সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে। বাড়ানো হয়েছে গোয়েন্দা নজরদারিও।

বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১, ০২:৪৭

প্রশ্ন ফাঁসকারী বুয়েট শিক্ষকের অ্যাকাউন্টে ১০ কোটি টাকা!

প্রশ্ন ফাঁসকারী বুয়েট শিক্ষকের অ্যাকাউন্টে ১০ কোটি টাকা!

গত ৬ বছরে বুয়েটের একজন শিক্ষকের অ্যাকাউন্টে ১০ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। একজন শিক্ষকের অ্যাকাউন্টে এত টাকা কোথা থেকে এলোা? সেই অর্থের সন্ধান করতে গিয়ে গোয়েন্দারা প্রশ্ন ফাঁসের সঙ্গে এই শিক্ষকের সম্পৃক্ততা পেয়েছেন।

এমনকি গ্রেফতারকৃত একজনের স্বীকারোক্তিতেও এসেছে ওই শিক্ষকের নাম।

রাষ্ট্রায়ত্ব পাঁচ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় যে শিক্ষকের নাম এসেছে তিনি বুয়েটের ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান নিখিল রঞ্জন ধর। গোয়েন্দা পুলিশের কাছ থেকে তার বিষয়ে জানতে পেরে বুয়েট কর্তৃপক্ষ তাকে বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে। একই সঙ্গে ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক সত্য প্রসাদ মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, “গোয়েন্দা পুলিশ আমাদের যোগাযোগ করে কিছু তথ্য দিয়েছে। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই এই ব্যবস্থা। আমরা তদন্ত কমিটিকে পাঁচ কর্মদিবস সময় দিয়েছি। তাদের রিপোর্ট পাওয়ার পর আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব। পাশাপাশি গোয়েন্দা পুলিশকেও বিষয়টি জানাব।”

অবশ্য নিখিল রঞ্জন ধর তার বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগ অস্বীকার করে ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, “প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনার সঙ্গে তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। দায়িত্ব থেকেই তিনি প্রেসে গেছেন এবং কাজটি তদারকি করেছেন।”
[১] বাংলাদেশে নবমবারের মতো পালিত হচ্ছে স্তন ক্যানসার দিবস ≣ মাহবুব কবির মিলন: তরমুজে রঙ এবং কেমিকেল ≣ [১] আলীকদমে ডায়রিয়ায় ৫ দিনে ৮ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত দুই শতাধিক, প্রস্তুত রাখা হয়েছে সেনা হেলিকপ্টার

ছয় বছরে আপনার একাউন্টে ১০ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। গত তিন বছরে সঞ্চয়পত্র কিনেছেন ১ কোটি ৮২ লাখ টাকার। এই টাকা কোথায় পেলেন? জানতে চাইলে এই অধ্যাপক বলেন, “আমি ১৯৮৬ সাল থেকে বুয়েটে শিক্ষকতা করি। এটা সারা জীবনের সঞ্চয়। পাশাপাশি পারিবারিকভাবে মাছের ঘেরসহ কিছু ব্যবসাও আছে। সেখান থেকেও টাকা আসে। এসব টাকা দিয়েই আমি সঞ্চয়পত্র কিনেছি। সব টাকার হিসাব আছে।”

‘এটা সারা জীবনের সঞ্চয়,মাছের ঘেরসহ পারিবারিক কিছু ব্যবসাার টাকাও আসে’
রাষ্ট্রায়ত্ব পাঁচ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষার দায়িত্ব পেয়েছিল আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (এইউএসটি)। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে খণ্ডকালীন শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন অধ্যাপক নিখিল রঞ্জন ধর। গত ৬ নভেম্বর এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

কিভাবে এই শিক্ষকের নাম প্রশ্ন ফাঁস চক্রের মধ্যে এল জানতে চাইলে ঢাকা মেট্টোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম ডয়চে ভেলেকে বলেন, “সম্প্রতি রাষ্ট্রায়ত্ব পাঁচ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষার পর প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠে। তখন গোয়েন্দা পুলিশ এটা নিয়ে অনুসন্ধান শুরু করে। তদন্তের এক পর্যায়ে আমরা জানতে পারি আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস থেকেই প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। এই ঘটনায় আমরা ১১ জনকে গ্রেফতার করি। তাদের মধ্যে একজন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে ওই শিক্ষকের নাম বলেছেন। পাশাপাশি আরও কিছু তথ্য আমরা পেয়েছি। এগুলো নিয়েই এখন আমাদের অনুসন্ধান চলছে। তিনি সম্পৃক্ত থাকলে আইনের আওতায় আনা হবে।”

প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গোয়েন্দা পুলিশের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ডয়চে ভেলেকে বলেন, “অধ্যাপক নিখিল রঞ্জন ধর নিয়োগ পরীক্ষা কমিটিতে ছিলেন না। কিন্তু তিনি প্রশ্ন ছাপার দিন সকাল থেকে ভোর পর্যন্ত আহছানিয়া মিশনের ঢাকার আশুলিয়ার ছাপাখানায় অবস্থান করতেন। ফেরার সময় দুই কপি প্রশ্ন তিনি সঙ্গে আনতেন। প্রশ্ন ব্যাগে ঢুকিয়ে দিতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পিয়ন দেলোয়ার হোসেন। গ্রেফতারের পর দেলোয়ার ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিতে এই তথ্য জানিয়েছেন।”

বুয়েটের এই শিক্ষককে কী জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে? জানতে চাইলে মামলার তদন্ত তদারক কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার শাহাদত হোসেন সুমা ডয়চে ভেলেকে বলেন, প্রশ্নফাঁসে জড়িত থাকার অভিযোগে আমরা ১১ জনকে গ্রেফতার করেছি। এর মধ্যে কয়েকজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। বুয়েটের এই শিক্ষকের বিষয়ে বুয়েট কর্তৃপক্ষ একটা উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। তাদের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর আমরা বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে বসব। এর মধ্যে আমরা আরও কিছু বিষয়ে অনুসন্ধান করছি। যেহেতু উনি একজন সম্মানিত শিক্ষক তাই সব তথ্য নেওয়ার পরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

তদন্ত সংশ্লিষ্ট অপর একজন কর্মকর্তা বলেন, একজন অধ্যাপকের একাউন্টে ৬ বছরে ১০ কোটি টাকার লেনদেন অস্বাভাবিক। আমরা এই টাকা উৎস খোঁজারও চেষ্টা করছি। সবকিছু একত্রিত হলেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, “বাংলাদেশ ব্যাংকের উচিত কাদের প্রশ্ন ছাপার দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে সেটা ঠিকমতো দেখা। কারণ শুধু টেন্ডারে কেউ কম টাকা দিলেই তাকে কাজ দিতে হবে, এমনটি হওয়া উচিত না। তাদের সক্ষমতা আছে কী নেই সেটাও দেখা উচিত। আহসান উল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাপাখানায় সিসি ক্যামেরাসহ ন্যূনতম নিরাপত্তাব্যবস্থাও নেই। আর সেটারই সুযোগ নিয়েছে প্রশ্নফাঁসকারীরা। ফলে তাদের কীভাবে কাজ দেওয়া হল সেটাই এখন আমাদের কাছে বিস্ময়!”

দেলোয়ারের স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে একজন কর্মকর্তা বলেন, গত ২ নভেম্বর আহছানিয়া মিশন ছাপাখানায় সমন্বিত পাঁচ ব্যাংকের প্রশ্নপত্র ছাপা হয়। সেদিন সকাল থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত নিখিল রঞ্জন ধর ওই ছাপাখানায় ছিলেন। আসার সময় প্রশ্নের দু’টি কপি তিনি নিয়ে যান। পাশাপাশি নজরদারি ও নিরাপত্তা না থাকায় দেলোয়ার নিজেও লুকিয়ে প্রশ্ন নিয়ে বের হতেন। তাকে সহযোগিতা করতেন টেকনিশিয়ান মুক্তারুজ্জামান এবং ল্যাব সহকারী পারভেজ মিয়া। এভাবে তিনি পাঁচ-ছয়বার প্রশ্ন ছাপাখানা থেকে নিয়ে এসেছেন।

এ বিষয়ে অধ্যাপক নিখিল রঞ্জন ধর বলেন, মূলত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ডাকে তিনি ছাপাখানায় যেতেন। পরীক্ষা কমিটিতে না থেকেও কেন যেতেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, মূলত পরীক্ষার সিটপ্ল্যান করতাম, অন্য শিক্ষকরাও থাকতেন। সবাই মিলে একসঙ্গে সিটপ্ল্যান তদারক করতাম। আর ছাপা প্রশ্নে কোন ভুল আছে কিনা সেটা দেখার জন্যই দুই কপি ব্যাগে আনতেন। তার কাছ থেকে এটা বাইরে যায়নি বলে দাবি তার।

মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৫

বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় হাসপাতালে ফুটফুটে ইব্রাহিম, কাঁদছেন মা

বেপরোয়া গাড়ির ধাক্কায় হাসপাতালে ফুটফুটে ইব্রাহিম, কাঁদছেন মা

ইব্রাহিম মোহাম্মদ বিন হাসানের বয়স সবে পাঁচ মাস। প্রিয়জনের মুখ চিনতে শুরু করেছে কেবল। কদিন বাদে আধো আধো বুলিতে সবাইকে অবাক করে দেওয়ার কথা তার। অথচ এখন হাসপাতালের বিছানায় কাতরাচ্ছে ভীষণ যন্ত্রণায়। সেখানে ট্রলির সঙ্গে রশি দিয়ে বাঁধা তার ডান পা। ভেঙে গেছে উরুর হাড়। এমন দৃশ্য মেনে নিতে বুক ফেটে যাচ্ছে শিশুটির মায়ের।

স্কুলপড়ুয়া ধনীর দুলালের বেপরোয়া গতির গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়ে আজ হাসপাতালে শিশুটি। এ ঘটনায় তার বাবা ব্যাংক কর্মকর্তা ফখরুল হাসান ও রিকশাচালক আনোয়ার ইসলামও আহত হয়েছেন।

ছুটির দিন শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে রিকশায় বাবার কোলে ঘুরতে বেরিয়েছিল ইব্রাহিম। এসময় হঠাৎ পেছন থেকে বেপরোয়া গতিতে ওই কিশোরের চালিয়ে আসা প্রাইভেটকার সজোরে ধাক্কা দেয় তাদের বহনকারী রিকশাটিকে। রিকশা থেকে ছিটকে পড়েন ফখরুল হাসান, তার কোলে থাকা ইব্রাহিম ও রিকশাচালক আনোয়ার ইসলাম। এতে ফখরুলের ডান হাত ভেঙে যায়। আর পায়ে গুরুতর আঘাত পান রিকশাচালক। তারা সবাই এখন চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটে রাজধানীর বেইলি রোডে।


এ ঘটনার কয়েক সেকেন্ড আগে সড়কে দাঁড়িয়ে মোবাইলে ভিডিও করছিলেন একজন। অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া সেই ভিডিওটিতে দেখা যায়, কালো রঙের গাড়িটি (ঢাকা-মেট্রো-গ-৩৫-২২৬৩) বেপরোয়া গতিতে আসতে থাকে। এরপর ঠিক পেছন থেকে রিকশাকে ধাক্কা দেয়। গাড়িটির ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যায় সেই রিকশা। এ সময় গাড়িচালক ওই কিশোর গাড়ি না থামিয়ে পালিয়ে যায়।

কাঁদতে কাঁদতে ইব্রাহিমের মা রোকাইয়া আক্তার নিশি  বলেন, আমার সন্তান শুধু কান্নাকাটি করছে। ওর খুব যন্ত্রণা হচ্ছে, কিন্তু মুখে বলতে পারছে না। আমরা শুধু ওর পায়ের ক্ষতটাই দেখতে পাচ্ছি। ওদিকে আমার স্বামীর হাত ভেঙে গেছে, তার কাছেও যেতে পারছি না। আমি মানসিকভাবে এত বিপর্যস্ত যে, কী বলছি তা নিজেও জানি না।

শিশুটির বাবা ফখরুল হাসান জাগো নিউজকে বলেন, এ ঘটনার পর আমার বাচ্চাকে নিয়ে আর রিকশায় উঠবো কি না তার নিশ্চয়তা নেই। রিকশায় হয়তো আর ওঠা হবে না। কারণ আল্লাহ না করুক, ও (শিশু) যদি মারা যেত তাহলে ওর মায়ের কাছে আমি কী জবাব দিতাম?

এদিকে ঘটনার পর ওই কিশোর গাড়ি নিয়ে তার মগবাজারের বাসায় চলে যায়। এরপর সে তার মাকে নিয়ে বাসে মেহেরপুরের গাংনীতে দাদার বাড়ি চলে যায়। সেখান থেকে আবার চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় খালার বাড়ি গিয়ে আত্মগোপনে থাকে। পরে দুই উপজেলার পুলিশের সহায়তায় তাকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগ।

গতকাল রোববার (২১ নভেম্বর) রাতে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিপ্লব কুমার সরকার জানান, ওই কিশোরের জন্ম ২০০৬ সালে। সে হিসেবে তার বয়স ১৫ বছর। এই বয়সে তার লাইসেন্স থাকার কথা নয়। সে রাজধানীর একটি স্কুলের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। সেখান থেকে ভর্তি বাতিল করে অন্যত্র ভর্তি হয়েছে বলে জানা গেছে। তার বাবা একজন আইনজীবী বলে আমরা জানতে পেরেছি। এ ঘটনায় রমনা থানায় মামলা হয়েছে।


মর্মান্তিক এ ঘটনার পর প্রশ্ন ওঠে, প্রাইভেটকারচালক কিশোর মাদকাসক্ত ছিল কি না। পুলিশ বলছে, সে মাদকাসক্ত ছিল কি না তা এখনো জানা যায়নি। তার ডোপ টেস্ট করা হবে।

তবে ওই কিশোরের ফেসবুক আইডি ঘেঁটে দেখা যায়, এর আগেও সে মিউজিক বাজিয়ে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালিয়েছে। তখন তার হাতে ছিল বিয়ারের বোতল।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম  বলেন, পাঁচদিনের রিমান্ডের আবেদন করে ওই কিশোরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজন হলে তার ডোপ টেস্ট করা হবে।

অন্যদিকে ঘটনার পর প্রাইভেটকারটি জব্দ করে পুলিশ। ওই কিশোর বা তার পরিবার গাড়িটির মালিক নয় বলে জানিয়েছে পুলিশ। গাড়িটির মালিক ওয়ারী থানার এক বাসিন্দা।জাগো নিউজ

মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১১

কুমিল্লায় নিজ কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে কাউন্সিলরসহ নিহত ২

কুমিল্লায় নিজ কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে কাউন্সিলরসহ নিহত ২

কুমিল্লায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল এবং আওয়ামী লীগ নেতা হরিপদ সাহা নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ৪ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। ডিবিসি টিভি

সোমবার (২২ নভেম্বর) বিকালে নগরীর পাথুরীয়াপাড়া পানুয়া খানকা শরীফ সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। প্রথম আলো

নিহত কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল (৪৫) পাথুরীয়াপাড়া এলাকার সৈয়দ শাহজাহানের ছেলে। তিনি ১৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। হরিপদ সাহা (৫৫) নবগ্রাম এলাকার বাসিন্দা। তিনি নগরীর ১৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন। যুগান্তর

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকালে কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল নিজ কার্যালয়ে বসে রাজনৈতিক কর্মীদেরকে নিয়ে একটি বৈঠক করছিলেন। এমতাবস্থায় পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী শাহ আলম এবং সুমনের নেতৃত্বে ৪টি মোটরসাইকেলযোগে ৭-৮ জন সন্ত্রাসী ওই কাউন্সিলরকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে।

এতে কাউন্সিলরের পেটে, বুকে এবং মাথায় তিনটি এবং হরিপদ সাহার পেটে এবং বুকে দুটি গুলিবিদ্ধ হয়। এলোপাথাড়ি গুলিতে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক মো. সোহেল চৌধুরী (৩৮), সদস্য মো. বাদল (২৮), কাউন্সিলরের সহযোগী রিজু (২৩), জুয়েল (৪০) ও রাসেল (৩২) আহত হয়।

 এ সময় আশপাশের লোকজন আহতদেরকে উদ্ধার করে কুমেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৬টার দিকে কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেল এবং হরিপদ সাহা মারা যান। বাকী চারজন কুমেকে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

 ১৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. হানিফ মিয়া জানান, সন্ত্রাসী শাহ আলমের মাদক ব্যবসাসহ নানা অপরাধ কর্মকাণ্ডের বিরোধিতা করে আসছিলেন কাউন্সিলর সোহেল। এ নিয়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসী শাহ আলম ও সুমনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী এ হামলা চালায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা কাউন্সিলরের বেশ কয়েকজন সমর্থকের বাড়ি-ঘরও ভাংচুর করে।

 এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল আজিম বলেন, সন্ত্রাসীদের গুলিতে কাউন্সিলর সৈয়দ মো. সোহেলসহ দুজন নিহত হয়েছেন। আমরা এ ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদেরকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ হামলার ঘটনায় যারা জড়িত তাদেরকে অতি দ্রুতই গ্রেপ্তার করা হবে।সমকাল

মঙ্গলবার, ২৩ নভেম্বর ২০২১, ০২:৫৮

২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন ১১০ ডেঙ্গু রোগী

২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে নতুন ১১০ ডেঙ্গু রোগী

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আরো ১১০ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন। আজ রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিবৃতিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন ১১০ জন। এর মধ্যে ঢাকাতে ৭৫ জন ও ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ৩৫ জন।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৫৩১ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৪৬টি সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ৪১৫ জন ও অন্যান্য বিভাগে ১১৬ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২১ নভেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা ২৬ হাজার ৪৫৩ জন। একই সময়ে তাদের মধ্য থেকে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৫ হাজার ৮২৪ জন রোগী। এ পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে ৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১, ০২:৪৩

সশস্ত্র বাহিনী দেশের সার্বভৌমত্ব ও গৌরব সমুন্নত রাখবে: প্রধানমন্ত্রী

সশস্ত্র বাহিনী দেশের সার্বভৌমত্ব ও গৌরব সমুন্নত রাখবে: প্রধানমন্ত্রী

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেছেন, সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার পাশাপাশি উন্নয়নমূলক কাজে অবদান রেখে দেশের গৌরব সমুন্নত রাখবে। গতকাল রবিবার বিকালে ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০২১’ এর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের সাহায্যে ভার্চুয়ালি এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে আরো বলেন, ‘আপনারা (সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা) যেন শৃঙ্খলা ও পেশাগত দক্ষতায় সর্বত্র প্রশংসিত হতে পারেন, দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার পাশাপাশি উন্নয়নমূলক কাজে অবদান রেখে দেশের গৌরব সমুন্নত রাখতে পারেন সেটাই কামনা করি।’

যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে গতকাল সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদ্ধসঢ়;যাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। কর্মসূচির শুরুতে দেশের সকল সেনানিবাস, নৌ ঘাঁটি ও স্থাপনা এবং বিমান বাহিনী ঘাঁটির মসজিদসমূহে দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি এবং সশস্ত্র বাহিনীর উত্তরোত্তর উন্নতি ও অগ্রগতি কামনা করে ফজরের নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সশস্ত্র বাহিনীর শহীদ সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি ও সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক মোঃ আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী শেখ হাসিনা সকালে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীকে পৃথক পৃথকভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করে। পু¯পস্তবক অর্পণকালে শহীদদের স্মরণে বিউগলে করুণ সুর বাজানো হয়। পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে রক্ষিত পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর করেন। এর আগে মহামান্য রাষ্ট্রপতি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শিখা অনির্বাণে এসে পৌঁছলে তাঁদেরকে স্বাগত জানান তিন বাহিনী প্রধানগণ এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার। মুক্তিযুদ্ধে শাহাদত বরণকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মরণে সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চীফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে সম্মিলিতভাবে শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।

শিখা অনির্বাণে পুস্পস্তবক অর্পণের পর প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে গমন করেন। সেখানে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার এবং মহাপরিচালকবৃন্দ। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা, সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল, নৌবাহিনী প্রধান, বিমান বাহিনী প্রধান এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী ভিটিসির মাধ্যমে সংযুক্ত থেকে আর্মি মাল্টিপারপাস কমপ্লেক্সে বীরশ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্ধারিত সংখ্যক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকারীদের সংবর্ধনা প্রদান করেন। এ সময় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী স্বশরীরে উপস্থিত থেকে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তাদের হাতে সম্মানী চেক এবং উপহার তুলে দেন। এছাড়া ৫ জন সেনা, ২ জন নৌ এবং ১ জন বিমান বাহিনী সদস্যদের ২০২০-২০২১ সালের শান্তিকালীন পদকে ভূষিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রা যাতে কোনভাবে ব্যাহত না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে এবং আন্তর্জাতিক মানদন্ড বজায় রেখে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবসে আমি এ’টুকুই চাই, দেশের এই অগ্রযাত্রা যাতে কোন রকম ব্যাহত না হয়। বাংলাদেশ যেন সারাবিশ্বে মর্যাদা নিয়ে চলতে পারে। প্রতিটি বাঙালি পৃথিবীর যেখানেই যাক না কেন যেন মাথা উঁচু করে বলতে পারে আমরা বিজয়ী জাতি, উন্নত জাতি। আমরা নিজেদের দেশকে গড়ে তুলেছি একটা সম্মানজনক অবস্থানে।

৭ জন বীরশ্রেষ্ঠের নিকট আত্মীয়সহ প্রায় ৭৫ জন খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকারীগণ সংবর্ধনায় যোগ দেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে সেনাবাহিনী প্রধান, নৌবাহিনী প্রধান, বিমান বাহিনী প্রধান, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার সহ উর্ধ্বতন সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এর পরে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে সেনাবাহিনী প্রধান, নৌবাহিনী প্রধান ও বিমান বাহিনী প্রধান বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতির সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে নৌবাহিনী প্রধান এবং বিমান বাহিনী প্রধান স্ব-স্ব বাহিনীর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের উত্তরাধিকারীদের পরিবারবর্গের সম্মানার্থে পৃথক পৃথক সংবর্ধনার আয়োজন করেন।

এছাড়া সেনাবাহিনী প্রধান আগামী ২৩ নভেম্বর খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা/তাঁদের উত্তরাধিকারীদের পরিবারবর্গের সম্মানার্থে সংবর্ধনার আয়োজন করবেন। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ হতে সেনাকুঞ্জে অপরাহ্নে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই সংবর্ধনায় সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তাগণ ছাড়াও দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ ও স্থানীয় দূতাবাসসমূহের বিদেশী কূটনৈতিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ভিটিসিতে সংযুক্ত হন এবং তিনি তাঁর বক্তৃতায় আরো বলেন, রূপকল্প-২০২১ এর সফল বাস্তবায়নের মাধ্যমে ইতিমধ্যেই আমরা উন্নয়নশীল দেশ হবার ক্ষেত্রে তিনটি সূচকেই সাফল্য অর্জন করেছি। আমরা অর্থনৈতিক অগ্রগতির মানদন্ডে বিশ্বের প্রথম ৫টি দেশের মধ্যে স্থান করে নিয়েছি।

বর্তমানে বাংলাদেশ বিশ্বের ৪১তম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ। তিনি বলেন, আমরা দারিদ্র্যের হার ৪০ শতাংশ থেকে ২০ দশমিক ৫ শতাংশের নীচে নামিয়ে এনেছি এবং আর্থ-সামাজিক সকল সূচকে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধন করেছি। শেখ হাসিনা বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট’ অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে দ্বিতীয় প্রেক্ষিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে। পাশাপাশি, এই অঞ্চলের জনগণকে একটি সুন্দর আগামী উপহার দেয়ার লক্ষ্যে ‘বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০’ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। এর আগে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে জ্যেষ্ঠ অতিথি হিসেবে জাতীয় সংসদের স্পীকার সেনাকুঞ্জে এসে পৌঁছালে সেনাবাহিনী প্রধান, নৌবাহিনী প্রধান, বিমান বাহিনী প্রধান এবং সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও) সস্ত্রীক তাঁকে স্বাগত জানান।

সংবর্ধনায় বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধান বিচারপতি, মন্ত্রী ও মন্ত্রীর পদমর্যাদা সম্পন্ন ব্যক্তিগণ, প্রতিমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর পদমর্যাদা সম্পন্ন ব্যক্তিগণ, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিদেশী রাষ্ট্রদূতগণ, আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রধানগণ, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনারগণ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব, মূখ্য সচিব, সংসদ সদস্য (ঢাকা এলাকার) প্রাক্তন সামরিক কর্মকর্তাগণ, বাহিনীত্রয়ের প্রাক্তন প্রধানগণ, ২০২১ সালের স্বাধীনতা পুরস্কার প্রাপ্ত ও একুশে পদক প্রাপ্ত ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ, রাজনৈতিক ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, স্বাধীনতা যুদ্ধের সকল বীরশ্রেষ্ঠের উত্তরাধিকারীগণ, স্বাধীনতা যুদ্ধ এবং স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে ঢাকা এলাকায় বসবাসরত খেতাবপ্রাপ্ত কর্মকর্তা/তাঁদের উত্তরাধিকারীগণ, উচ্চপদস্থ অসামরিক কর্মকর্তাগণ এবং তিন বাহিনীর চাকুরিরত ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ।

উক্ত অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশ টেলিভিশন সরাসরি সম্প্রচার করে। দিনটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য ঢাকার বাইরে দেশের অন্যান্য সেনা গ্যারিসন, নৌ জাহাজ ও স্থাপনা এবং বিমান বাহিনী ঘাঁটিতেও বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয় এবং অপরাহ্ন/সন্ধ্যায় বরিশাল, কক্সবাজার, বগুড়া, সিলেট, ঘাটাইল, চট্টগ্রাম, যশোর, রংপুর ও খুলনা সেনানিবাস/ঘাঁটিতে সংশ্লিষ্ট এরিয়া সদর দপ্তরের ব্যবস্থাপনায় ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০২১’ উপলক্ষে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। গণমাধ্যমেও দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে নানামুখী অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। বাংলাদেশ টেলিভিশন ২০ নভেম্বর ২০২১ রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর ‘বিশেষ অনির্বাণ’ অনুষ্ঠান স¤প্রচার করে। বাংলাদেশ বেতার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ‘বিশেষ দূর্বার’ অনুষ্ঠান স¤প্রচার করে। ২১ নভেম্বরের পরে বেসরকারি টিভি চ্যানেলসমূহ ‘বিশেষ অনির্বাণ’ অনুষ্ঠানটি এবং বেসরকারী রেডিও চ্যানেলসমূহ বিশেষ দুর্বার’ অনুষ্ঠানটি পর্যায়ক্রমে সম্প্রচার করবে।

এদিকে, বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়াও, সশস্ত্র বাহিনীর আওতাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার (অনলাইন ভিত্তিক) আয়োজন করা হয়। এছাড়া, ঢাকা, খুলনা, চাঁদপুর, বরিশাল ও চট্টগ্রামে বিশেষভাবে সজ্জিত নৌবাহিনী জাহাজসমূহ বেলা ২টা থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত সর্বসাধারণের দেখার জন্য নিকটস্থ ঘাটে নোঙ্গরকৃত অবস্থায় রাখা হয়।

 

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১, ০২:৩৬

`তোরে একেবারে ফালাইয়া দিমু`

`তোরে একেবারে ফালাইয়া দিমু`

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ইখতিয়ার উদ্দিন সোহাগের (মোটরসাইকেল) কর্মী জহিরুল ইসলামকে বাড়িতে ঢুকে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। নৌকার প্রার্থী ইউসুফ জালাল কিসমতের ছেলে মিনহাজ হাসান ইফতি তাকে এ হুমকি দেয়। এতে পরিবার নিয়ে জহির আতঙ্কে রয়েছে।

এ ঘটনায় জহির রবিবার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসক, জেলা পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, 'শনিবার রাত ৮টার দিকে ১৫-২০টি মোটরসাইকেলযোগে ইফতি তার অনুসারী বহিরাগত ৩০-৪০ জনকে ইউনিয়নের চরবগা গ্রামে জহিরের বাড়িতে আসে। সবার হাতে দেশীয় আগ্নেয়াস্ত্র ছিল।এর মধ্যে কয়েকজন মুখোশ পড়েছিল। এসময় তারা বাবা-মাকে গালমন্দসহ এলোপাতাড়ি ঘরের টিনের বেড়ায় এলোপাতাড়ি পেটায়।

একপর্যায়ে জহির ঘর থেকে বের হলেই ইফতি তার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে বলেছে, 'প্রার্থী সোহাগ তোর বাবা? তোরে একেবারে ফালাইয়া দিমু'। এতে ভয়ে জহির দৌঁড়ে পালিয়ে যায়।

এসময় ঘরে থাকা জহিরের বাবা-মাসহ পরিবারের লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। মোটরসাইকেলের ভোট করলে বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। ইফতি ও তার লোকজন আরো বলেছে, কিসমতের নৌকার ভোট করতে হবে, তা না হলে ইউনিয়ন ছেড়ে চলে যেতে হবে।

ভুক্তভোগী জহিরুল ইসলাম বলেন, আমি পরিবার নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। যেকোনো সময় কিসমত, ইফতি ও তাদের অনুসারী ক্যাডাররা আমার বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে। আমার কিছু হলে তারা দায়ী থাকবে। আমি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থার দাবি জানাচ্ছি।

মিনহাজ হাসান ইফতি বলেন, জহির আমার এলাকার লোক। আমাদের ভোট করার জন্য তাকে বুঝিয়েছি। কোনো হুমকি দেওয়া হয়নি।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইউসুফ জালাল কিসমত বলেন, জহির জামায়াতের ক্যাডার। তাকে দিয়ে আমার ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়ে হেয় প্রতিপন্ন করা হচ্ছে। অভিযোগে যে যার ইচ্ছেমতো লেখে। আমার ছেলে কি অপরাধ করেছে, তা আমার জানা নেই।

সোনাপুরের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসার শরিফ হোসেনের মোবাইল ফোনে রাত ১০টার দিকে কল দিলে বন্ধ পাওয়া যায়।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন বলেন, আমি কুমিল্লায় ছিলাম। অভিযোগের বিষয়ে আমি এখনো কিছু জানি না। উপজেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলতে পারেন।

প্রসঙ্গত, ২৮ নভেম্বর রায়পুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে।

সোমবার, ২২ নভেম্বর ২০২১, ০২:২৮

সর্বশেষ
জনপ্রিয়