ঢাকা, ২০২২-০৬-২৬ | ১২ আষাঢ়,  ১৪২৯
সর্বশেষ: 
উবার ও লিফট ড্রাইভারদের বেতন বৃদ্ধি নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত আমেরিকা -চিকেন ফার্মে বার্ড ফ্লু আতঙ্ক মেডিকেইড হারাচ্ছেন লাখো আমেরিকান পাল্টে যাচ্ছে রাজনীতির হিসাব-নিকাশ! অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় হস্তক্ষেপ না করার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্র বিচার ১২৩ বছর আগে গ্রেপ্তার গাছ, শেকলে বন্দি আজো ফ্রান্স প্রেসিডেন্টকে চড় মারার মাশুল কতটা? কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত
অবশেষে যুগান্তকারী আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলে স্বাক্ষর বাইডেনের

অবশেষে বহু আলোচিত যুগান্তকারী আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলে শনিবার স্বাক্ষর করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বৃহস্পতিবারই মার্কিন সিনেটে পাশ হয়েছিল বিলটি। এরপর বিলটির ব্যাপারে শুক্রবার হোয়াইট হাউসের চূড়ান্ত সম্মতিও দিয়েছিল। এবার বাইডেনের স্বাক্ষরের ফলে বিলটি আইনে পরিণত হল। খবর রয়টার্সের।

ইউরোপে গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক বৈঠকে যোগ দিতে যাচ্ছেন বাইডেন। হোয়াইট হাউস ছাড়ার আগে বিলে স্বাক্ষর করেন তিনি।

স্বাক্ষরের পর বাইডেন জানান, এই বিল আমি যা চেয়েছিলাম তার সবটা করতে পারবে না। কিন্তু এতে সেই পদক্ষেপগুলো রয়েছে যার কথা আমি দীর্ঘ সময় ধরে বলে আসছি। এটি জীবন বাঁচাবে।

তিনি আরও বলেন, আমি জানি এখনও অনেক কাজ বাকি। কিন্তু আমি আশা ছাড়ছি না। আজকের দিনটি একটি ঐতিহাসিক দিন।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদেও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল পাশ হয়।

প্রতিনিধি পরিষদে শুক্রবার ২৩৪-১৯৩ ভোটে বিলটি পাশ হয়। এর মধ্যে ১৪ রিপাবলিকান এমপিও ভোট দেন। ক্ষমতাসীন দল ডেমোক্র্যাটের সব এমপিই বিলটির পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন।    

এর আগে গত বৃহস্পতিবার কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিলটি ৬৫-৩৩ ভোটে পাশ হয়।
 
বিলটির পক্ষে ১৫ রিপাবলিকান সিনেটও ভোট দেন। বিলের বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ৩৩ জন।

এটি প্রায় ৩০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে পাস হওয়া সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল।

এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কয়েক দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো কোনো আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ বিল ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান দুই পক্ষ থেকেই সমর্থন পেয়েছে।

এর আগে দেখা গেছে, যখনই আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনকে শক্তিশালী করার প্রশ্ন আসত, তখনই তাতে বাধা দিত রিপাবলিকান পার্টি।

প্রসঙ্গত, ১৮ বছর বয়স হলেই বন্দুক কিনতে পারেন সাধারণ মানুষ। সেই নিয়ম বদলের জন্য গত কয়েক সপ্তাহ ধরে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করছেন মার্কিন নাগরিকরা। অবিলম্বে এই নিয়ম পালটে দিক সরকার, এই দাবিতে প্রায় হাজার মানুষ মিছিল করেন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রান্তে।


যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের অধিকার বাতিল করলেন উচ্চ আদালত

যুক্তরাষ্ট্রে গর্ভপাতের অধিকার বাতিল করলেন উচ্চ আদালত

প্রায় পাঁচ দশকের পুরনো একটি আইনি সিদ্ধান্তকে উল্টে দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট। এর ফলে দেশটির ঐতিহাসিক গর্ভপাত অধিকার আইন বাতিল হলো। এতে করে যুক্তরাষ্ট্রের লাখো নারী আর গর্ভপাতের আইনি অধিকার পাবেন না।

শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৩:৩৮

ম্যানহাটানে ট্রেন যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু
সাবওয়েতে ঝুঁকি নিয়ে প্রবেশ করবেন না!

ম্যানহাটানে ট্রেন যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু

ট্রেনের দরজায় আটকে গিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে এক সাবওয়ে যাত্রীর। দুর্ঘটনাটি গত বুধবার রাতের, ব্রুকলিনের মিডউডের এভিনিউ এম স্টেশনের। ৩৭ বছর বয়সী এই যাত্রী উত্তরমুখী কিউ ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে দরজায় আটকে যান। পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানিয়েছিল দরজায় তার প্যান্ট আটকে যায় এবং সেই অবস্থায় ট্রেনটি চলতে শুরু করলে তিনি প্লাটফর্মে হেঁচড়াতে হেঁচড়াতে নিচে ট্রাকের ওপর পড়ে যান।  

শনিবার, ১৮ জুন ২০২২, ০১:৫৭

সাবধান, রাস্তা থেকে কুড়িয়ে নেবেন না ডলার

সাবধান, রাস্তা থেকে কুড়িয়ে নেবেন না ডলার

সাবধান, রাস্তায় ভাঁজ করা ডলার পড়ে থাকলে কুড়িয়ে নেবেন না। নিজেকে সংবরণ করুন। ডলার কুড়িয়ে নিতে গিয়ে বিপদে পড়তে পারেন। টেনাসী অঙ্গরাজ্যের পেরী কাউন্টিতে চলারে মোড়ানো মাদক পেয়েছেন একাধিন ব্যক্তি। বিভিন্ন গ্যাস স্টেশনের মেঝেতে মোড়ানো ডলার কুড়িয়ে ওখানে সাদা পাউডার অর্থাৎ মাদক পেয়েছেন তারা। এ ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সকলকে সতর্ক করেছেন পেরী কাউন্টির শেরিফ। শেরিফ অফিস থেকে বলা হয়েছে, এই পদ্ধতিতে শিশুদের কাছে মাদক পৌঁচে দেয়ার চেষ্টা চলছে মাদক ব্যবসায়ীদের। মাদক ব্যবসায়ীদের কৌশল মোকাবেলায় পড়ে থাকা ডলার কুড়িয়ে নেয়া থেকে সতর্ক করা হয়েছে। নিউইয়র্কে বাংলাদেশি পরিবার বা অভিভাবকদের এ বিষয়ে সচেতন থাকতে পারেন।  

শনিবার, ১৮ জুন ২০২২, ০১:৫৩

ডালাসে মোবাইল কনস্যুলার ক্যাম্প, সর্বোচ্চ রাজস্বা আদায়

ডালাসে মোবাইল কনস্যুলার ক্যাম্প, সর্বোচ্চ রাজস্বা আদায়

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের ডালাস শহরে ১০ জুন এ ক্যাম্প শুরু হয়, শেষ হয়েছে ১২ জুন। ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস এই সেবা দিয়েছে। ক্যাম্প আয়োজনে সহায়তা করে বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব নর্থ টেক্সাস (ব্যান্ট) এবং বাংলাদেশী এক্সপ্যাট্রিয়েট সোসাইটি অব টেক্সাস (বেস্ট)।

শুক্রবার, ১৭ জুন ২০২২, ০৩:৩৬

বন্দুক আইন সংস্কার: মার্কিন সিনেটরদের মধ্যে কিছুটা সমঝোতা

বন্দুক আইন সংস্কার: মার্কিন সিনেটরদের মধ্যে কিছুটা সমঝোতা

 

আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন সংস্কার বিষয়ে রক্ষণশীল রিপাবলিক দলের বেশ কয়েকজন সিনেটরের সঙ্গে ক্ষমতাসীন ডেমোক্র্যাটদের সমঝোতা হয়েছে। এখন পর্যন্ত বন্দুক নিয়ন্ত্রণের বিরোধিতাকারী রিপাবলিক দলের ১০ সিনেটর বন্দুক নিয়ন্ত্রণের পক্ষে মত দিয়েছেন।

প্রস্তাবের বেশ কিছু বিষয়ে আলোচনা শেষ। সোমবারের মধ্যেই এর খসড়া তৈরি হওয়ার কথা ছিল।

যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক দলগুলোর এই সমঝোতাকে স্বাগত জানিয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণপন্থী বিক্ষোভকারীরা।

সম্প্রতি নিউ ইয়র্কের বাফেলোতে সুপার মার্কেটে গণগুলিতে ১০ জন এবং টেক্সাসের উভালদের স্কুলে গণগুলির ঘটনায় ১৯ শিশুসহ ২১ জন নিহত হওয়ার প্রেক্ষাপটে যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন পাসের দাবিতে নতুন করে জনমত জোরদার হয়েছে। গত শনিবার দেশজুড়ে বিক্ষোভ করে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের পক্ষের একটি সংগঠন। এতে যোগ দেয় বিপুলসংখ্যক মানুষ।  

আন্দোলনকারীদের ক্রমাগত দাবির মুখে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণে সিনেট পর্যায়ে ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানদের এটাই প্রথম কোনো সমঝোতা। খসড়া প্রস্তাবে ২১ বছরের কম বয়সীদের কাছে অস্ত্র বিক্রির ক্ষেত্রে কঠোরভাবে ক্রেতার অতীত রেকর্ড যাচাই এবং বন্দুকের অবৈধ কেনাবেচার নিয়ন্ত্রণের বিষয় থাকবে বলে জানা গেছে।  

বন্দুক নিয়ন্ত্রণের পদক্ষেপের বিরুদ্ধে রিপাবলিকানরা বরাবরই কট্টর। সে কারণে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণের যেকোনো ধরনের পদক্ষেপে রিপাবলিকানদের সমর্থন বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়। ১০০ আসনের সিনেটে বর্তমানে ডেমোক্রেটিক ও রিপাবলিক উভয় দলেরই সদস্য সংখ্যা সমান। সিনেটে কোনো প্রস্তাব পাস হতে হলে অবশ্যই ৬০ ভোটের প্রয়োজন হয়। সে হিসাবে বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন পাসের জন্য রিপাবলিক দলের কমপক্ষে ১০ সিনেটরের সমর্থন প্রয়োজন, যা এই মুহূর্তে আছে।  

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক আইন নিয়ে দলগুলোর সমঝোতাকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ‘সঠিক পথে পদক্ষেপ' আখ্যা দিয়েছেন।  

এ বিষয়ে ২০১৮ সালে ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ড স্কুলে গুলির ঘটনায় আহত ডেভিড হগ বলেন, ‘এটি ছোট হলেও একটি অগ্রগতি। ’ ২০১১ সালে অ্যারিজোনায় বন্দুক হামলায় আহত সাবেক আইন প্রণেতা গ্যাব্রিয়েল গিফোর্ডস বলেন, ‘এগিয়ে যাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। ’ তিনি আরো দাবি করেন, এ উদ্যোগটি বিগত ৩০ বছরের মধ্যে প্রথম কোনো পদক্ষেপ, যার মধ্য দিয়ে কংগ্রেস বন্দুক সংশ্লিষ্ট নিরাপত্তায় বড় পদক্ষেপ নিতে পারে।

সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ ডেমোক্রেটিক দলীয় নেতা চাক শুমার বলেন, সার্বিক অগ্রগতিতে তিনি সন্তুষ্ট। খুঁটিনাটি বিষয় সুনির্দষ্টি করার পর শিগগিরই আইনটি সিনেটে ভোটাভুটির জন্য দিতে চান তিনি।  

আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অধিকারের পক্ষে সক্রিয় যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে প্রভাবশালী সংগঠন ন্যাশনাল রাইফেল অ্যাসোসিয়েশন (এনআরএ) জানায়, আইন সংস্কারের সম্পূর্ণ খসড়া দেখে তারা এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাবে। অস্ত্র আইনে কড়াকড়ির বিরুদ্ধে এনআরএ বরাবরই অনড় অবস্থান নিয়ে আসছে। সূত্র : বিবিসি

 

মঙ্গলবার, ১৪ জুন ২০২২, ০৩:২৪

যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে হচ্ছে আইন

যুক্তরাষ্ট্রে অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে হচ্ছে আইন

যুক্তরাষ্ট্রে আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে দ্রুতই আইন তৈরি করতে যাচ্ছে দেশটির সরকার। মার্কিন সিনেটরদের একটি অংশ বন্দুক ব্যবহারে কড়াকড়ি আরোপের বিষয়ে একমত পোষণ করেছেন।

সোমবার, ১৩ জুন ২০২২, ০৩:০৫

যুক্তরাষ্ট্রে পেট্রলের দামে রেকর্ড, প্রভাব মূল্যস্ফীতিতে

যুক্তরাষ্ট্রে পেট্রলের দামে রেকর্ড, প্রভাব মূল্যস্ফীতিতে

যুক্তরাষ্ট্রে পেট্রলের দাম রেকর্ড পরিমাণ বেড়েছে। দেশটিতে এক গ্যালন পেট্রলের দাম শনিবার (১১ জুন) গড়ে পাঁচ ডলার ছাড়ায়। এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে পেট্রলের দাম এতটা বাড়লো। তাছাড়া এরই মধ্যে মূল্যস্ফীতি গত ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ হয়েছে।

সোমবার, ১৩ জুন ২০২২, ০৩:০৩

৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি যুক্তরাষ্ট্রে

৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি যুক্তরাষ্ট্রে

গত ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতির মুখোমুখি যুক্তরাষ্ট্র। বর্তমানে দেশটিতে মূল্যস্ফীাত ৮ দশমিক ৬ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। এমতাবস্থায় দেশবাসীকে কোনো আশার বাণী শোণাতে পারেননি দেশটির প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। বরং তিনি সতর্ক করে বলেছেন, মূল্যস্ফীতি দীর্ঘায়িত হতে পারে।

সম্প্রতি গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে দেশটিতে মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাওয়া প্রসঙ্গে বাইডেন বলেছেন, ‘আমাদের আরও কিছুদিন এই মূল্যস্ফীতি নিয়েই চলতে হবে। এই সংকট ক্রমে কমে আসবে। তবে তার আগে কিছু সময় আমাদের এটি সহ্য করতেই হবে’।

শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের বেভারলি হিলে ডেমোক্র্যাট দলের তহবিল সংগ্রহ অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেওয়ার সময় তিনি এই কথা বলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সাম্প্রতিক মূল্যস্ফীতির বিষয়ে দেশটির নীতি নির্ধারক এবং অর্থনীতিবিদেরা ধারণা করেছিলেন, এই মূল্যস্ফীতি খুবই ‘সাময়িক’ এবং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কোভিড-১৯ মহামারির পর অর্থনীতি পুনরুদ্ধার কার্যক্রম চালু থাকায় শিগগিরই এই অবস্থা কেটে যাবে।

কিন্তু তাদের ধারণা ভুল প্রমাণ করে দিয়ে দেশটির খাদ্যদ্রব্যসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম বাড়তে শুরু করে। বিশেষ করে ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর দাম বাড়তে থাকে আরও বেশি হারে।

রোববার, ১২ জুন ২০২২, ০৩:৪২

কড়া আগ্নেয়াস্ত্র আইনের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রে লাখো মানুষের বিক্ষোভ

কড়া আগ্নেয়াস্ত্র আইনের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রে লাখো মানুষের বিক্ষোভ

 

টেক্সাসে গত মাসের গণগুলির ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কঠোর আগ্নেয়াস্ত্র আইনের আহ্বান জানাতে যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে শনিবার লাখো মানুষ বিক্ষোভ করে।

আগ্নেয়াস্ত্র নিরাপত্তা বিষয়ক সংগঠন ‘মার্চ ফর আওয়ার লাইভস’ (এমএফওএল) দেশজুড়ে শনিবার প্রাযয় ৪৫০টি সমাবেশের পরিকল্পনা করেছিল। পার্কল্যান্ড স্কুলের ২০১৮ সালের গণগুলি থেকে বেঁচে যাওয়া ব্যক্তিরা সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা।

সংগঠনটি বলেছে, অব্যাহতভাবে মানুষের মৃত্যুর মধ্যে তারা রাজনীতিবিদদের চুপ করে বসে থাকতে দেবে না।
 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বিক্ষোভকে সমর্থন করেছেন। তিনি কংগ্রেসকে ‘সাধারণ বুদ্ধিতেই যা আসে’ সেরকম আগ্নেয়াস্ত্র নিরাপত্তা আইন পাস করার আহ্বান জানিয়েছেন।

টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের উভালদে রব এলিমেন্টারি স্কুলে গত ২৪ মে বন্দুকধারীর গুলিতে উনিশ শিশু এবং দুই প্রাপ্তবয়স্ক নিহত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে আগ্নেয়াস্ত্র আইনে কড়াকড়ির দাবি উঠেছে।

‘মার্চ ফর আওয়ার লাইভস’ বলছে, রাজনৈতিক নেতাদের নিষ্ক্রিয়তা আমেরিকানদের হত্যা করছে। সূত্র: বিবিসি

 

রোববার, ১২ জুন ২০২২, ০৩:৩১

মেয়ে ইভাঙ্কার সাক্ষ্য মানতে নারাজ ডোনাল্ড ট্রাম্প
ক্যাপিটল হিলে হামলা নিয়ে শুনানি

মেয়ে ইভাঙ্কার সাক্ষ্য মানতে নারাজ ডোনাল্ড ট্রাম্প

 ক্যাপিটল হিলে হামলার আগমুহূর্তে শোভাযাত্রার আয়োজন করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তার সঙ্গী হিসেবে ছিলেন মেয়ে ইভাঙ্কাও। ডোনাল্ডের শাসনামলে মেয়ে তার নেতৃত্বাধীন সরকারে রাজনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ সম্পর্কে সম্প্রতি প্রকাশিত মেয়ের সাক্ষ্য মানতে নারাজ সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বারবারই নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ করেছেন। তিনি এখনো বিশ্বাস করেন, কারচুপি হওয়ায় তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনের কাছে হেরেছেন। তবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের অ্যাটর্নি জেনারেল বিল বার নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
ক্যাপিটল হিলে হামলার শুনানিতে ইভাঙ্কা বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বারের মূল্যায়ন আমার দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রভাবিত করেছে। আমি অ্যাটর্নি জেনারেল বারকে সম্মান করি তাই তিনি যা বলছেন আমি তা গ্রহণ করেছি।

বাবার আনা নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগের বিষয়টি থেকে দূরে সরে গেছেন ইভাঙ্কা। এতে স্বাভাবিকভাবেই ক্ষিপ্ত ডোনাল্ড ট্রাম্প। মেয়ের এই বক্তব্য সম্পর্কে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ‘ইভাঙ্কা নির্বাচন নিয়ে মাথা ঘামায়নি, বিশ্লেষণ করেনি। সে অনেক আগে থেকেই এসব থেকে দূরে। আমার মতে, সে বিল বার ও তার অ্যাটর্নি জেনারেলের পদের (যে দায়িত্ব বার পালন করতে পারেননি)  প্রতি শুধু শ্রদ্ধাশীল থাকতে চেয়েছে।’ ট্রাম্প আরও একবার দাবি করেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে এবং বার একজন ‘কাপুরুষ’।

সূত্র: বিবিসি

রোববার, ১২ জুন ২০২২, ০৩:০৪

যুক্তরাষ্ট্রের ফরেন সার্ভিসের ডিজি হলেন মার্শা বার্নিকাট

যুক্তরাষ্ট্রের ফরেন সার্ভিসের ডিজি হলেন মার্শা বার্নিকাট

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট এবার মার্কিন ফরেন সার্ভিসের ডিরেক্টর জেনারেল ও গ্লোবাল ট্যালেন্টের ডিরেক্টর হিসেবে শপথ নিয়েছেন। মঙ্গলবার (১ জুন) দেশটির গুরুত্বপূর্ণ পদে এ নিয়োগ পান সাবেক এই কূটনীতিক। মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

২০২১ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরে পর্যন্ত তিনি ব্যুরো অব ওশেনস অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল এনভায়রনমেন্টাল অ্যান্ড সায়েন্টিফিক অ্যাফেয়ারর্সের ভারপ্রাপ্ত সহকারী সচিব ছিলেন। একই সঙ্গে অর্থাৎ ২০২১ সালের জানুয়ারি-আগস্টে তিনি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, জ্বালানি ও পরিবেশের সিনিয়র কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করেছেন।

তাছাড়া ২০১৯-২০২০ সালে তিনি ওইএসের প্রধান উপ-সহকারী সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বার্নিকাট বাংলাদেশ, সেনেগাল ও গিনি বিসাউতে রাষ্ট্রদূত এবং বার্বাডোস মালাউইতে মিশনের ডেপুটি চিফের পাশাপাশি ব্যুরো অব হিউম্যান রিসোর্সের ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারিসহ দপ্তরটির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

জানা গেছে, বার্নিকাট লাফায়েট কলেজ ও জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক পাস করেন।

বার্নিকাট ঢাকায় এসেছিলেন ২০১৫ সালের ২৫ জানুয়ারি। বাংলাদেশে অবস্থানকালে রাষ্ট্রদূতদের মধ্যে তিনি আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন।

বৃহস্পতিবার, ২ জুন ২০২২, ০৩:৩১

যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারিতে সেনা ঘাটতি
যোগদানে সম্মত হলেই বোনাস ৫০ হাজার ডলার ঘোষণা

যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারিতে সেনা ঘাটতি

যুক্তরাষ্ট্রের মিলিটারিতে সেনা সংকট এখন প্রচন্ড। গত কয়েক বছর ধরেই সেনা সদস্য নিয়োগে টার্গেট পূরণ হচ্ছে না। সাইনিং বোনাস ৫০ হাজার ডলার ঘোষণার পরও আশাব্যঞ্জক সাড়া নেই। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হারও সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়েছে। প্রার্থীদের যোগ্যতায় ব্যাপক ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। সিডিসি’র তথ্যানুসারে আমেরিকান নাগরিক যারা মিলিটারিতে যোগদানের জন্য আবেদন করেন, তাদের শতকরা ৭১ ভাগই যোগদানের শর্ত পূরণ করতে পারেন না। প্রতি ৪ জনের একজন আবেদনকারি ওভারওয়েট। অনেকেই শিক্ষাগত যোগ্যতার শর্ত পূরণে ব্যর্থ হন। অনেকের রয়েছে মেন্টাল হেলথ ইস্যু ও খারাপ ক্রিমিনাল রেকর্ড।

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৩:৫৪

সাবওয়ে আতঙ্ক পুলিশী টহল পুনরায় শুরু

সাবওয়ে আতঙ্ক পুলিশী টহল পুনরায় শুরু

নিউইয়র্ক সিটির সাবওয়েতে অপরাধ দমনে মোতায়েন করা হচ্ছে ‘ট্রেইন প্যাট্রোল ফোর্স (টিপিএফ)’। স্টেশনে এনওয়াইপিডি ও ট্রানজিট পুলিশ মোতায়েন, প্রত্যেক স্টেশনে ক্যামেরা বসানোর পরও ক্রাইম কমছে না। প্রতিদিন ট্রেনের ভেতরেই খুন,ধর্ষণ,রাহাজানি,ছিনতাই, হামলা ও বিনা ভাড়ায় ট্রেনে ওঠার ঘটনা বেড়েই চলছে।

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৩:৫০

বন্দুক হামলায় ঝরলো ২১ প্রাণ
স্কুলে বুলিংয়ের কারণেই হত্যাকান্ড!

বন্দুক হামলায় ঝরলো ২১ প্রাণ

    স্কুলে বুলিংয়ের কারণেই ঝরলো ২১ প্রাণ!    পরিবারের আর্থিক অবস্থা নিয়ে সহপাঠীদের কটূক্তির (বুলিং) ক্ষোভ থেকেই টেক্সাসের স্কুলে হামলা চালায় সাবেক শিক্ষার্থী সালভাদর রামোস। গত মঙ্গলবার টেক্সাসের স্যান অ্যান্টোনিওর ইউভালডি শহরে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে ১৮ বছর বয়সী রামোস নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ১৯ শিশু শিক্ষার্থী ও দুই শিক্ষককে হত্যা করেন। এই হামলার আগে তার দাদিকেও গুলি করেন তিনি।
জানা যায়, আর্থিক অবস্থার কারণে একপর্যায়ে স্কুল থেকে ছিটকে পড়ে ওই তরুণ। তার এক সহপাঠী জানান, হামলার অন্তত তিন দিন আগে নিজের ইনস্টাগ্রামে দুটি এআর-১৫ রাইফেলের ছবি পোস্ট করেছিলেন রামোস।

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৩:৪৯

৯৮ মিলিয়ন মার্কিনীর হাতে     ৩৯০ মিলিয়ন আগ্নেয়াস্ত্র

৯৮ মিলিয়ন মার্কিনীর হাতে ৩৯০ মিলিয়ন আগ্নেয়াস্ত্র

    অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্য যে, ৯৮ মিলিয়ন মার্কিনীর কাছে ৩৯০ মিলিয়ন আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের লোকসংখ্যা ৩২৭ মিলিয়ন। এই লোকসংখ্যার প্রতি ১০০ জনের কাছে ১২০টি আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে বলে পরিসংখ্যান বলছে। এই তথ্য নতুন কিছু নয়, তবু মার্কিনীরা আগ্নেয়াস্ত্র নিজ হেফাজতে রাখার সুযোগ প্রতিরোধের লক্ষ্যে খুব একটা উচ্চবাচ্য কেন করে না, সেটাই যেন বিস্ময়কর। বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্র এটি, যার জনগণের কাছে এই বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র বৈধভাবে সংরক্ষিত। আর আগ্নেয়াস্ত্রের সহজলভ্যতার কারণে যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক সন্ত্রাস বেড়েই চলেছে।

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ০৩:৩৭

ঈশ্বরের কসম আমাদের মেরুদণ্ড কোথায়, বললেন ক্ষুব্ধ বাইডেন

ঈশ্বরের কসম আমাদের মেরুদণ্ড কোথায়, বললেন ক্ষুব্ধ বাইডেন

 মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের উভালদে শহরের রব এলিমেন্টারি স্কুলে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এক শিক্ষকসহ ১৯ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে।

এ ঘটনার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তিনি বলেছেন, “কেন আমরা এই হত্যাযজ্ঞের সাথে বেঁচে থাকতে চাই? কেন আমরা এটি ঘটতে দিই? ঈশ্বরের কসম আমাদের মেরুদণ্ড কোথায়?”
“এখনই পদক্ষেপ নেওয়ার সময়। আমরা অনেক কিছুই করতে পারি, আমাদের আরও অনেক কিছু করতে হবে,” বলে বাইডেন।

ক্ষুব্ধ মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “ঈশ্বরের কসম কখন আমরা আমরা বন্দুকের লবিতে দাঁড়াব?”

হোয়াইট হাউস থেকে তিনি বলেন,“আমি এতে অসুস্থ, ক্লান্ত হয়ে পড়ছি। আমাদের পদক্ষেপ হবে। আমাকে বলবেন না যে আমরা এই হত্যাকাণ্ডের উপর প্রভাব ফেলতে পারি না।”

যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র আইনের সমালোচনা করে বাইডেন বলেন, “একজন ১৮ বছর বয়সী বাচ্চা দোকানেই ঢুকেই দুটি আগ্নেয়াস্ত্র কিনতে পারে- এই ধারণা (নীতি) ভুল। এই ধরনের ব্যাপক হত্যাকাণ্ডের ঘটনা বিশ্বের অন্য কোথাও খুব কমই ঘটে।”

এদিকে, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, “দেশজুড়ে বাবা-মায়েরা তাদের বাচ্চাদের বিছানায় শুইয়ে দেন, গল্প শোনান, গান শোনান- কিন্তু তাদের মনের মধ্যে চিন্তা, আগামীকাল তাদের বাচ্চাদের স্কুলে দিয়ে আসার পর, কিংবা কোনও মুদি দোকান বা খোলা জায়গায় নিয়ে যাওয়ার, তাদের সঙ্গে কী ঘটবে তা নিয়ে চিন্তায় থাকেন তারা।”

এ সময় নিহতদের পরিবারের প্রতি তিনি ও তার স্ত্রী মিশেলের পক্ষ থেকে “শোক” জানান ওবামা।

সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, “স্যান্ডি হুকের প্রায় দশ বছর পর- এবং বাফেলোর দশ দিন পর- আমাদের দেশটি পঙ্গু হয়ে গেছে, ভয়ে নয়, কিন্তু একটি বন্দুক লবি এবং একটি রাজনৈতিক দল যারা এই ট্র্যাজেডিগুলো প্রতিরোধ করতে সাহায্য করতে পারে, কিন্তু তারা এতে কোনও আগ্রহই দেখায় না।”

ওবামা বলেন, “পদক্ষেপ, যেকোনও ধরনের পদক্ষেপের জন্য ইতোমধ্যে দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেছে।”

২০১৫ সালে, যখন তিনি ক্ষমতা ছেড়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, ডেমোক্রেটিক এই প্রেসিডেন্ট গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন, নতুন বন্দুক আইন সংস্কার করতে ব্যর্থ হয়েছে তার প্রশাসন। রাষ্ট্রপতি হিসেবে এটি ছিল তার সবচেয়ে বড় হতাশা।

তিনি আর বলেছিলেন, “আমাদের জন্য এই সমস্যা সমাধান করতে না পারাটা ছিল কিছুটা দুঃখজনক।” সূত্র: বিবিসি

বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ০৩:০১

টেক্সাসে বিদ্যালয়ে  হামলা: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১

টেক্সাসে বিদ্যালয়ে হামলা: নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহতের বেড়ে ২১ জনে দাঁড়িয়েছে। নিহতদের মধ্যে ১৮ জনই শিক্ষার্থী। মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উভালদে শহরের রব প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশের বরাত দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম জানিয়েছে, গুলির ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২১ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে ১৮ শিক্ষার্থী ও তিনজন বয়স্ক ব্যক্তি রয়েছে। নিহত শিশুরা দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী। তাদের বয়স ৫ থেকে ১০ বছরের মধ্যে

বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৭:১৪

মার্কিন শেয়ার বাজারে ধারাবাহিক দরপতন

মার্কিন শেয়ার বাজারে ধারাবাহিক দরপতন

মার্কিন পুঁজি বাজারে সর্বশেষ এসএন্ডপি৫০০ সূচক ২০ শতাংশ  বা ৬শ পয়েন্ট কমেছে। ডাও সূচক কমেছে ৬০০ পয়েন্ট। গত সপ্তাহে ডাও জোন্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল এভারেজ সূচক ১,১০০ পয়েন্টের বেশি কমে যাওয়ায় নিউ ইয়র্ক স্টক এক্সচেঞ্জ ব্যবসায়ীদের মধ্যে শঙ্কা দেখা যায়। মূল্যস্ফীতি এবং মন্দার আশঙ্কার মধ্যে ওয়াল স্ট্রিটকে বিয়ার মার্কেট স্ট্যাটাসে ঠেলে দিয়েছে এবং অন্তত মহামারী ছাড়াও বিভিন্ন মন্দায় গ্রেট ডিপ্রেশনের পর থেকে বিনিয়োগকারীদের বর্তমানে শেয়ার বাজারে এধরনের পতন তাদের মধ্যে বিনিয়োগে হতাশা সৃষ্টি করেছে।

স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড পুওরস (এসএন্ডপি) ৫০০ সূচকটি ২.৩ শতাংশের মতো কমে যাওয়ার পর এটি জানুয়ারিতে পৌঁছে যাওয়া সর্বকালের সর্বোচ্চ ২১ শতাংশের নীচে ফের চলে যায়।  মূলত ২০২০ সালের মার্চে শুরু হওয়া মার্কিন শেয়ার বাজারে তেজী ভাব বা ষাঁড়ের বাজারের দৌড়ের সমাপ্তি হয়েছে। এসএন্ডপি-কে সবচেয়ে সঠিক পরিমাপ হিসাবে বিবেচনা করা হয় মার্কিন স্টক মার্কেট পারফরম্যান্স বুঝতে। কারণ এটি ৩০-সদস্যের ডাও জোন্স ইন্ডাস্ট্রিয়াল এভারেজের চেয়ে বিস্তৃত-ভিত্তিক, যা সম্পূর্ণরূপে ব্লু-চিপ সিকিউরিটিজ দ্বারা গঠিত।

ডাও জোন্স শেয়ার বাজারের সূচক ৬১৭ পয়েন্টের মতো হ্রাস পেয়েছে। এ বাজারের ব্লু-চিপ সূচকটি ৪ শতাংশের বেশি সাপ্তাহিক পতনে সীমাবদ্ধ থাকায় এটির অষ্টম সাপ্তাহিক পতন ১৯৩২ সাল থেকে দীর্ঘতম পতনে রুপ নিয়েছে। অন্যদিকে নাসডাক কম্পোজিট এসএন্ডপি-এর তুলনায় আরও গভীর মন্দার মধ্যে চলে গিয়েছে। নাসডাক সূচক দিনে ৩৫২ পয়েন্ট বা ৩.১ শতাংশের মতো কমেছে। অর্থনীতিবিদ পিটার শিফ বলেছেন, গত ৪ জানুয়ারি বাজার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু হয়েছিল, যখন এসএন্ডপি সূচকগুলো বাড়তে থাকায়।

গোল্ডম্যান স্যাকসের সাবেক প্রধান নির্বাহী লয়েড ব্ল্যাঙ্কফেইন এই সপ্তাহের শুরুতে সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে মার্কিন অর্থনীতি মন্দার দিকে যাওয়ার খুব উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। মুদ্রাস্ফীতি ৪০ বছরের উচ্চতায় রয়েছে এবং দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক মূল্য স্থিতিশীলতা পুনরুদ্ধার করতে সাহায্য করার জন্য সুদের হারকে বৃদ্ধি করছে। এই মুদ্রাস্ফীতি ২ শতাংশে নামিয়ে আনার প্রক্রিয়াতে কিছু নেতিবাচক বিষয় অন্তর্ভুক্ত থাকবে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মুদ্রাস্ফীতি সংকটের জন্য মূলত ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক আক্রমণকে দায়ী করেছেন, কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মুদ্রাস্ফীতি ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার অনেক আগেই পূর্বাভাস দিতে থাকে। পূর্ব ইউরোপে সংঘাত শুরু হওয়ার প্রায় এক বছর আগে, ২০২১ সালের প্রথম দিকে মার্কিন মুল্লুকে মুদ্্রাস্ফীতি বৃদ্ধি পায়।

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১৭:০৭

মোটা অঙ্কের জরিমানা দিলেন ট্রাম্প

মোটা অঙ্কের জরিমানা দিলেন ট্রাম্প

 

মোটা অঙ্কের জরিমানা গুনতে হলো সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পকে। কর ফাঁকির মামলায় নথিপত্র জমা না দেয়ায় তাকে এই জরিমানা করা হয়। ২০১৯ সাল থেকে তার বিরুদ্ধে কর ফাঁকির অভিযোগে তদন্ত করছে নিউ ইয়র্কের প্রাদেশিক কর্তৃপক্ষ। এ জন্য তার কাছে প্রয়োজনীয় নথি চাওয়া হয়। কিন্তু ট্রাম্প এখনো সেসব নথি প্রদান করেননি। আর এ কারণেই তাকে জরিমানা করে নিউ ইয়র্কের একটি আদালত। এ খবর দিয়েছে ফার্স্টপোস্ট।
খবরে বলা হয়, গত ২৫শে এপ্রিল ট্রাম্পের বিরুদ্ধে জরিমানার রায় দেয় ওই আদালত। রায়ে বলা হয়, ট্রাম্প এসব নথি হস্তান্তর করার আগ পর্যন্ত প্রতিদিন তার ১০ হাজার ডলার করে জরিমানা হতে থাকবে। নিউ ইয়র্কের অ্যাটর্নি জেনারেল লেটিশিয়া জেমস ট্রাম্পের ওই মামলার তদন্ত করছেন। তার এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, গত ১৯শে মে ডনাল্ড ট্রাম্প অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিসকে ১ লাখ ১০ হাজার ডলার জরিমানা দিয়েছেন।

এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে নিউইয়র্ক আদালতের বিচারক আর্থার এনগোরোন ট্রাম্পের ওপর এ ব্যাপারে রুল জারি করেছিলেন
এতে বলা হয়েছিল, কর ফাঁকির মামলায় তলব করা নথি জমা না দিলে ট্রাম্পকে প্রতিদিন ১০ হাজার মার্কিন ডলার করে জরিমানা গুনতে হবে। যদিও নথি জমা দেয়ার নির্ধারিত তারিখ ছিল গত ৩ মার্চ। পরে আদালতে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৩১ মার্চ পর্যন্ত আরেক দফা সময় বাড়ানো হয়। কিন্তু এর পরও তলব করা নথি জমা না দেয়ায় এবং আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা না দেয়ায় বিচারপতি অর্থার এনগোরোন গত ২৫শে এপ্রিল ট্রাম্পকে জরিমানা করে এ রুল জারি করেন।    

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি ট্রাম্পের বিরুদ্ধে কর ফাঁকির মামলা দায়ের করেন জেমস। তদন্তের পর তিনি ধারণা করেন, ট্রাম্পের কোম্পানি ও পারিবারিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কর ফাঁকি দিয়ে থাকতে পারে। যদিও ট্রাম্প এই অভিযোগকে ‘রাজনৈতিক’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। কিন্তু নিউ ইয়র্ক কর্তৃপক্ষ ট্রাম্পের কাছে কর সম্বলিত নথি এবং আয়ব্যয়ের হিসেব চেয়েছে। গত ২৫শে এপ্রিল জরিমানা প্রদানের নির্দেশ দেয়ার পর ৬ই মে তা আবার বাতিলও করে দেয় আদালত। তবে এই ১১ দিন যে ১ লাখ ১০ হাজার ডলার জরিমানা হয়েছে তা প্রদানে ২০ মে পর্যন্ত সময় বেধে দেন বিচারক। সেই অর্থই প্রদান করলেন ট্রাম্প।

 

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১৬:৩১

ছুটি না পেয়ে চাকরি ছাড়ায় অচল হলো যুক্তরাষ্ট্রের শহর

ছুটি না পেয়ে চাকরি ছাড়ায় অচল হলো যুক্তরাষ্ট্রের শহর

 মাত্র একজন নারী কর্মী চাকরি ছাড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি শহর কর্তৃপক্ষ চরম সমস্যায় পড়েছে। দেশটির মেইন অঙ্গরাজ্যের পাসাদামকেগ শহরে ছুটি না পেয়ে চাকরি ছেড়েছেন ক্রিস্টেন বুচার্ড নামের একজন সাধারণ কেরানি। আর তাতেই সব কাজ বন্ধ হয়ে অচল হয়ে পড়েছে শহর। বিপাকে পড়েছে শহর কর্তৃপক্ষ। সূত্র : রয়টার্স।

জানা গেছে, ক্রিস্টেন বুচার্ড ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে পাসাদামকেগ শহরের কেরানি হিসেবে নিয়োগ পান। এই নারীর প্রথম দায়িত্ব ছিল ওই বছরের নভেম্বরের নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করা। এ কারণে তাঁকে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়।
যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের পরে শহরের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজের দায়িত্ব পড়ে ক্রিস্টেন বুচার্ডের ওপর। তাঁকে উপ-কাষাধ্যক্ষ, পোষা প্রাণীর সনদ দেওয়া, শহরের গুরুত্বপূর্ণ নথি সংরক্ষণ, যানবাহন নিবন্ধন এবং অঙ্গরাজ্যের অভ্যন্তরীণ মৎস্য ও বন্য প্রাণী বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এত সব কাজের চাপে ক্রিস্টেন বুচার্ডের ছুটি নেওয়ার সুযোগ ছিল না। বাধ্য হয়ে গত মাসের শুরুর দিকে তিনি কর্তৃপক্ষের কাছে দুই সপ্তাহের ছুটি  চেয়ে আবেদন করেন। তাঁর অনুপস্থিতিতে শহরের এত সব গুরুত্বপূর্ণ কাজ করার কোনো কর্মী না থাকায় কর্তৃপক্ষ তাঁর ছুটি মঞ্জুর করেননি। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে চাকরি ছেড়ে দেন তিনি।

ক্রিস্টেন বুচার্ড চাকরি ছেড়ে চলে যেতেই পাসাদামকেগ শহরের সরকারি সব কাজ বন্ধ হয়ে যায়। শহরের কোন নথি কোথায় আছে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না, কেউ কোনো প্রাণীর প্রতি নির্যাতন চালালে সমাধান হচ্ছে না, যানবাহনের সনদ দেওয়া বন্ধ। এতে অচল হয়ে পড়েছে শহরটি।

পাসাদামকেগ শহর কর্তৃপক্ষ জানায়, অফিসে ক্রিস্টেন বুচার্ডের দায়িত্ব পালন করার মতো কোনো কর্মী নেই। তাই তাঁর মতো একজন কর্মী না পাওয়া পর্যন্ত সরাসরি অফিস বন্ধ থাকবে।

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ১৬:২৪

মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্তু মাদক-সুড়ঙ্গের সন্ধান

মেক্সিকো থেকে যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্তু মাদক-সুড়ঙ্গের সন্ধান

মেক্সিকোর তিজুয়ানা থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান দিয়েগোর একটি গুদাম পর্যন্তু একটি বিশাল সুরক্ষিত সুড়ঙ্গের সন্ধান পাওয়ায় গেছে। এই সুড়ঙ্গটির আবিস্কারে দুই দেশের গোয়েন্দাদের কপালে চিন্তুার ভাঁজ পড়েছে। কি করে সবার অগোচরে এই সুরক্ষিত সুরঙ্গ তৈরী হলো তা নিয়ে দুই দেশের প্রশাসনের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৪:৫৬

‘শ্বেতাঙ্গ আধিপত্য বিষ’
বাফেলোতে গুলি : ১০ কৃষ্ণাঙ্গ নিহত

‘শ্বেতাঙ্গ আধিপত্য বিষ’

শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যকে বিষক্রিয়ার সাথে তুলনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। সম্প্রতি বন্দুক হামলায় নিহতদের পরিবার ও আহতদের দেখতে মঙ্গলবার নিউইয়র্কের বাফেলোয় যান তিনি। গত শনিবার বাংলাদেশি অধ্যুষিত বাফেলো শহরের জেফারসনের একটি সুপার মার্কেটে আঠারো বছর বয়সী শ্বেতাঙ্গ কিশোর নির্বিচারে গুলি চালিয়ে ১০ জন কৃষ্ণাঙ্গকে হত্যা করে।

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৪:৫৫

যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়ছে বিরল মাংকিপক্স

যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে পড়ছে বিরল মাংকিপক্স

আফ্রিকা থেকে ছড়ানো মাংকিপক্স নামে এক রোগ যুক্তরাষ্ট্র, ক্যানাডা, স্পেন, পর্তুগাল এবং ব্রিটেনে ছড়িয়ে পড়েছে বলে এসব দেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় সংবাদমাধ্যম বলছে। বিরল এই রোগের সর্বশেষ কেস ধরা পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। কানাডায় মাংকিপক্সের ১৩টি কেসের ঘটনা স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ এখন তদন্ত করে দেখছে। পর্তুগালে এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন পাঁচ ব্যক্তি এবং স্পেনে আরও সাতজন সংক্রমিত হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ব্রিটেনে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৯ জন।  

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৪:১৩

২০ শতাংশ শিক্ষার্থী স্কুলবিমুখ
কোভিডে গৃহবন্দি থাকা কারণ

২০ শতাংশ শিক্ষার্থী স্কুলবিমুখ

কোভিড আক্রান্ত নিউইয়র্ক নগরীতে প্রায় দেড় বছর ধরে স্কুলে যাওয়া থেকে বিরত শিক্ষার্থীরা এখন অনেকেই স্কুল বিমুখ হয়ে উঠেছে। এ বিষয়ে পরিচালিত এক জরিপে বলা হয়েছে এখন প্রতি ৫ জনে ১ জন শিক্ষার্থী স্কুলে যেতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছে। যুক্তরাষ্ট্রের শতকরা ২০ ভাগ ছেলেমেয়ে এখন স্কুল বিমুখ বলে জরিপের তথ্যে বলা হয়েছে।

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৪:০৯

মধ্যবর্তী নির্বাচনে ঝুলছে বাইডেনের ভাগ্য

মধ্যবর্তী নির্বাচনে ঝুলছে বাইডেনের ভাগ্য

প্রেসিডেন্টের চার বছর মেয়াদের মাঝামাঝি সময়ে এ নির্বাচন হওয়ায় একে মধ্যবর্তী নির্বাচন বলা হয়। এ নির্বাচনের ওপর নির্ভর করছে বাইডেনের ভবিষ্যৎ। বিবিসির

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরকারে জনগণের প্রতিনিধিত্ব করেন ৫৩৫ জন আইন প্রণেতা। যারা কংগ্রেস সদস্য হিসেবে পরিচিত। কংগ্রেসের আছে দুটি কক্ষ, সিনেট এবং হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস। আইন তৈরির জন্য কংগ্রেসের এই দুটি কক্ষ একসঙ্গে কাজ করে।

বর্তমানে কংগ্রেসের সব সদস্য হয় ডেমোক্রেটিক পার্টি বা রিপাবলিকান পার্টি থেকে আসা।  ডেমোক্রেটরা এখন কংগ্রেসের দুটি কক্ষেরই নিয়ন্ত্রণে রয়েছেন। তবে তাদের এই সংখ্যাগরিষ্ঠতা খুবই অল্প ভোটে। ফলে এ পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের পক্ষে কাজ করতে তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি। কিন্তু মধ্যবর্তী নির্বাচনে যদি রিপাবলিকান পার্টি কংগ্রেসের কোনো একটি কক্ষে বা উভয় কক্ষেই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে যায়, তখন তারা বাইডেনের যে কোনো পরিকল্পনা বানচাল করে দিতে পারবেন।

নভেম্বরে মধ্যবর্তী নির্বাচন হবে, সেখানে রিপাবলিকানরা হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে হলে তাদের পাঁচটি অতিরিক্ত আসন জিততে হবে। সিনেটে এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে আরও তীব্র। বর্তমানে ১০০ সদস্যের সিনেটে দুই দলেরই ৫০ জন করে সদস্য।
মধ্যবর্তী নির্বাচনে সিনেটের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য রিপাবলিকানদের মাত্র একটি বাড়তি আসন জিততে হবে। সিনেটের যে আসনগুলোতে এবার নির্বাচন হবে, সেখানে কারা প্রার্থী হবেন, তা নির্ধারণের জন্য প্রাইমারি নির্বাচন হবে মে থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে।

বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ১৯:০২

যুক্তরাষ্ট্র সফরে আওয়ামী লীগের ৪ সংসদ সদস্য

যুক্তরাষ্ট্র সফরে আওয়ামী লীগের ৪ সংসদ সদস্য

যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছেড়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের চার সংসদ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। সোমবার সন্ধ্যা ৭টার সময় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে রওনা দেন তারা। যুগান্তর

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ও আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খানের নেতৃত্বে চার সদস্যের এই প্রতিনিধি দলে আরো রয়েছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ, নাহিম রাজ্জাক ও কাজী নাবিল আহমেদ।

জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন পর্যায়ের বেশ কয়েকটি কমিটির সঙ্গে বৈঠক করবেন আওয়ামী লীগের সংসদীয় এই দল। পারস্পরিক সম্পর্ক উন্নয়নসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করবেন তারা। সফরে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ৬-৭ দিন সেখানে অবস্থান করবেন।

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩:২০

যুক্তরাষ্ট্রে সুপারমার্কেটে বন্দুক হামলায় নিহত ১০

যুক্তরাষ্ট্রে সুপারমার্কেটে বন্দুক হামলায় নিহত ১০

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে একটি সুপারমার্কেটে বন্দুক হামলায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন।

স্থানীয় সময় শনিবার বিকালে নিউইয়র্কের বাফেলো এলাকায় এ বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটে। খবর এপি ও আরব নিউজের।

পুলিশ বলছে, এ ঘটনায় তারা ১৮ বছর বয়সী শ্বেতাঙ্গ হামলাকারীকে আটক করেছে। ঘটনাটিকে তদন্ত করা হচ্ছে।

বাফেলোর পুলিশ কমিশনার জোসেফ গ্রামাগলিয়া বলেন, গুলিবিদ্ধ ১৩ জনের মধ্যে ১১ জনই কৃষ্ণাঙ্গ।

ঘটনাটিকে জঘন্যতম বলে আখ্যায়িত করেছেন এরি কাউন্টি শেরিফ জন গার্সিয়া। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘আমাদের সম্প্রদায়ের বাইরের কারো কাছ থেকে জাতিগতভাবে ঘৃণা বিদ্বেষে উদ্বুদ্ধ হয়ে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে।’

পুলিশ জানায়, সন্দেহভাজন ওই যুবক শনিবার বিকালে ব্যস্ত সুপারমার্কেটে রাইফেল হাতে প্রবেশ করে গুলি চালানোর আগে হামলা সরাসরি প্রচার করার জন্য একটি ক্যামেরা ব্যবহার করে।

অনলাইনে হামলার বিষয়ে কোনো বার্তা প্রচার করেছে কি-না তাও অনুসন্ধান করা হচ্ছে। হামলার সময় ওই যুবক কালো হেলমেট পরিহিত ছিলেন। তিনি উচ্চ ক্ষমতার একটি রাইফেল দিয়ে এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করতে থাকেন।

শহরটির মেয়র বাইরন ব্রাউন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের প্রতি গভীর শোক এবং তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন তিনি।

রোববার, ১৫ মে ২০২২, ০৯:১৭

বাড়ির মূল্য বৃদ্ধিতে যুক্তরাষ্ট্রে লাভবান সাড়ে ৮ কোটি মানুষ

বাড়ির মূল্য বৃদ্ধিতে যুক্তরাষ্ট্রে লাভবান সাড়ে ৮ কোটি মানুষ

যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ির মূল্য বহুগুণ বৃদ্ধি পাওয়ায় লাভবান হচ্ছেন প্রায় সাড়ে ৮ কোটি মানুষ। মাত্র কয়েক বছর আগে কেনা তাদের বাড়ির মূল্য বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং অনেকে তাদের বাড়ি বিক্রয় করে অন্য খাতে বিনিয়োগ করার চিন্তা করছেন। যুক্তরাষ্ট্রে ৮ কোটি ৩০ লাখ মানুষের নিজেদের বাড়ি রয়েছে বলে এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে।

সমাজবিজ্ঞানীরা বর্তমান সময়কে বিরাট রাজনৈতিক বিভাজন ও নাটকীয় সাংস্কৃতিক উত্থানের যুগ হিসেবে দেখছেন। এর মধ্যে নীরবে এমন এক সময়ের আবির্ভাব ঘটেছে যখন বিপুলসংখ্যক আমেরিকানের জন্য সুযোগ আর্থিকভাবে পুরস্কৃত হওয়ার। ১৫ কোটি ৮০ লাখ আমেরিকানের কর্মসংস্থান রয়েছে, মানুষ যখন চাঁদে পা রেখেছে ওই সময়ের পর কর্মজীবীদের সম্ভাবনা আর কখনো এত উজ্জ্বল ছিল না।

মোট কর্মী সংখ্যার প্রায় অর্ধেকের রিটায়ারমেন্ট অ্যাকাউন্ট আরও স্ফীত হয়ে ওঠেছে স্টক মার্কেটে দীর্ঘকাল যাবত বিনিয়োগ করার কারণে। যারা নিজ বাড়ির মালিক, তাদের বাড়ির মূল্য বৃদ্ধি তাদের ভাগ্যতারকাকে আরও উজ্জ্বল করেছে। কিন্তু এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে তেমন কোনো আলোড়ন নেই। যে দেশে চমক সৃষ্টিকারী খবরও কয়েক ঘণ্টার মধ্যে বাসি হয়ে যায়, সেখানে স্থাবর সম্পত্তির মূল্য বৃদ্ধি নিয়ে কেউ মাথা ঘামায় না, যারা বিশেষ করে তাদের নিজ বাড়িতে বাস করেন এবং কখনো বাড়ি বিক্রয় করার কথা ভাবেন না। কিন্তু যারা আসলেই রিয়েল এস্টেট সম্পত্তির মূল্য নিয়ে ভাবেন, তারা যারা বাড়ি কেনার সম্ভাব্য ব্যক্তি, তাদের ও মালিকদের সম্পদের মধ্যে অসমতার কথা ভাবেন।]

অস্থির স্টক মার্কেট হয়তো ইঙ্গিত দিচ্ছে যে বাড়ির বর্তমান মূল্য বাড়ি মালিকদের জন্য লোভনীয় দ্রুততার সঙ্গে বৃদ্ধি পেলেও তা অচিরেই শেষ হবে। অর্থনীতিতে মন্দা আসবে, মুদ্রাস্ফীতি আরও বাড়বে, জ্বালানির মূল্য এবং যেকোনো বিনিয়োগে ব্যাংকের সূদের হার যেভাবে বৃদ্ধি পাবে তাতে বিগত বছরগুলোতে স্থাবর সম্পদ, বিশেষ করে বাড়ির মূল্যে আয়ের যে স্বপ্ন দেখতেন তা সামান্যই অর্জিত হবে।

গত মার্চ মাসে ৪৫ লাখ লোক স্বেচ্ছায় তাদের কাজ ত্যাগ করেছে। ২০২০ সালে ব্যুরো অব লেবার স্ট্যাটিসটিকস পরিসংখ্যার রাখতে শুরু করার পর এটাই ছিল চাকরি ত্যাগের সর্বোচ্চ সংখ্যা। কয়েক বছর আগে স্বেচ্ছায় কাজ ছেড়ে দেওয়ার মাসিক গড় ছিল ৩০ লাখ থেকে ৩৫ লাখ।

একজন অর্থনীতিবিদ মধ্যপন্থি সেন্টার ফর ইকনমিক পলিসি রিসার্চের কো-ফাউন্ডার ডিন বেকার বলেছেন, কাজ ত্যাগ করার প্রবণতা থেকে সহজে নেতিবাচক দিক ধারণা করা যেতে পারে, কিন্তু কর্মত্যাগকারী ৪০ হাজার পরিবার হয়তো ভালোই করছে। ইউএস ফরেস্ট সাভিস থেকে অবসর গ্রহণকারী ডিউইট মেকিনসন বলেন, আমাদের বিনিয়োগের কারণে মোট সম্পদের পরিমাণ মিলিওনিয়ারের পর্যায় ছাড়িয়ে গিয়েছিল, যা ৪০ বছর আগে আমরা যখন বিয়ে করি তখন ধারণা করার মত ছিল না। ক্রেডিট সুইসের হিসাব অনুযায়ী বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে মিলিওনিয়ারের সংখ্যা ২২ মিলিয়ন বা ২ কোটি ২০ লাখ, যা ২০১৪ সালে ছিল ১৫ মিলিয়ন।

প্রতিটি অর্থনৈতিক লেনদেনের বিভিন্ন দিক থাকে। ২০০০ সালে কেউ বাড়ির দাম কম বলে ভাবতো না। কিন্তু ছয় বছর পর বাড়ির দাম অস্বাভাবিক বেড়ে যায় এবং দেশের যেকোনো স্থানে ভাড়াটেদের পক্ষে বাড়ি কেনা বাস্তবে অসম্ভব হয়ে পড়ে। এক দশক আগে হাউজিং মার্কেট চরম বিশৃঙ্খলার মধ্যে ছিল। পরিস্থিতি এমন শোনীয় অবস্থায় চলে গিয়েছিল যে বাড়ির জন্য নেওয়া ঋণের মর্টগেজ পরিশোধ করতে না পারায় ২০০৭ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত সময়ে ৭০ লাখের অধিক বাড়ি ফোরক্লোজারে চলে যায়। যারা দ্বিতীয় বাড়ির মালিক হওয়ার আশা করছিল তাদের সেই আশা দুরাশায় পরিণত হয়।

কিন্তু এখন এর বিপরীতটাই সত্য। লোকজনের কাছে বাড়ির চেয়েও বেশি অর্থ আছে, তাদের কাছে ব্যাংকের দায়দেনাও কম। ফোরক্লোজারের সংখ্যা অনেক কমে এসেছে, যা ২০১৯ সালে মাত্র ১ লাখ ৪৪ হাজার ছিল। করোনা মহামারির কারণে মরাটরিয়ামের সুবিধার কারণে ফোরক্লোজার কার্যত বন্ধ হয়ে গেছে।

রোববার, ১৫ মে ২০২২, ০২:১৩

মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড সংখ্যক মৃত্যু

মাত্রাতিরিক্ত ওষুধ সেবনে যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড সংখ্যক মৃত্যু

ওভারডোজ কিংবা অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবনে যুক্তরাষ্ট্রে গেল বছরে এক লাখ সাত হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দেশটিতে ওভারডোজ মহামারি মর্মান্তিক রেকর্ড ছুঁয়েছে।

বুধবার (১১ মে) মার্কিন রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্র (সিডিসি) এমন খবর দিয়েছে। আলজাজিরা

এই আসক্তিতে আগের বছরের তুলনায় প্রাণহানি ২০২১ সালে সার্বিকভাবে পনেরো শতাংশ বেড়েছে। মৃত্যুসনদ পর্যালোচনা করে বিলম্বিত ও অসম্পূর্ণ প্রতিবেদনের কারণও বিশ্লেষণ করেছে সিডিসি।

অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবনে মৃত্যুর নতুন সংখ্যাকে সত্যিকার অর্থে ‘বিচলিত’ হওয়ার মতো বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অন ড্রাগ অ্যাবিউজের পরিচালক ডা. রোরা বোলকোও।

এছাড়া ওভারডোজে ক্রমবর্ধমান মৃত্যুকে অগ্রহণযোগ্য বলে দাবি করেছে হোয়াইট হাউস। সম্প্রতি ঘোষিত ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কৌশলকে বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কার্যালয়।

হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতিতে আরও অনেক বেশি মানুষকে চিকিৎসা ব্যবস্থায় জড়িত করতেও পরার্মশ দেওয়া হয়েছে। ওষুধ পাচার বন্ধ ও ওভারডোজের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া প্রতিরোধের ওষুধ ন্যালোক্সোন যাতে মানুষের হাতের নাগালে পৌঁছায়, সেই পদক্ষেপ নেওয়ারও আহ্বান জানানো হয়েছে।

দুই দশকেরও বেশি সময়ের ধরে যুক্তরাষ্ট্রে ওভারডোজে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। ১৯৯০-এর দশক থেকে ওপিওড ব্যথানাশক সংশ্লিষ্ট এই ওভারডোজ প্রবণতা শুরু হয়েছে। এরপর হেরোইনের মতো ওপিওড সেই মৃত্যুর সংখ্যাকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ ফ্যান্টানাইলের ব্যবহারও ব্যাপক রূপ নিয়েছে।

গেল বছর ফ্যান্টানাইল সংশ্লিষ্ট ওভারডোজ ও অন্য কৃত্রিম ওপিওডে মৃত্যু ৭১ হাজার ছাড়িয়েছে। যা আগের বছরের তুলনায় ২৩ শতাংশ বেশি। এছাড়া একইসময়ে কোকেন সেবনে ২৩ শতাংশ ও মেথসহ অন্যান্য উত্তেজক ব্যবহারে ৩৪ শতাংশ মৃত্যু বেড়েছে।

কখনো-কখনো একাধিক ওষুধ ব্যবহারের ঘটনাকে ওভারডোজ বলা হয়। বহু লোক আছেন, যারা একাধিক ওষুধ সেবন করেন। আবার কেউ কেউ অন্য ওষুধের ব্যবহার কমিয়ে সস্তায় ফ্যান্টানাইল সংগ্রহ করেন। এমনও আছে, ব্যবহারকারী নিজেও জানেন না, তিনি কী ওষুধ খাচ্ছেন।

ডা. রোরা বোলকোও বলেন, এতে বহু লোক ওভারডোজের ক্ষতিকর প্রভাবের শিকার হচ্ছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা মহামারি সেই সমস্যাকে আরও জোরদার করেছে। যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসা কঠিন করে দিয়েছিল লকডাউনের বিধিনিষেধ।

ওভারডোজের ব্যবহারে ভৌগোলিকভাবে তারতম্য রয়েছে। ২০২১ সালে আলাসকায় ৭৫ শতাংশ অতিরিক্ত মাত্রায় ওষুধ সেবন বেড়েছে। এতো বেশি আর কোনো রাজ্যে বাড়েনি। আরও হাওয়াইতে ওভারডোজে মৃত্যু বেড়েছে ২ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০২২, ০১:৪৫

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে নিয়ে এক নতুন শঙ্কার কথা জা

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে নিয়ে এক নতুন শঙ্কার কথা জা

 মঙ্গলবার আমেরিকান অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশনের দেয়া তথ্য অনুসারে, তেল পাম্পে প্রতি গ্যালন জ্বালানি তেল বিক্রি হচ্ছে ৪.৩৭৪ ডলারে। এর আগে গত মার্চ মাসে প্রতি গ্যালন তেল রেকর্ডমূল্য ৪.৩৩১ ডলারে বিক্রি হয়। ফক্স নিউজ

তেলের দাম এমন আকাশচুম্বি হওয়ার মূল কারণ অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধি। গত সপ্তাহে প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম ১০০ ডলার ছুঁই ছুঁই করছিল, এখন তা ১১০ ডলারের কাছাকাছি। অনেকে ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতি এবং তেল ও গ্যাস উৎপাদনের উপর প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বিধিনিষেধকেও কারণ হিসেবে দেখছেন।

ইউক্রেনে ক্রেমলিনের আক্রমণ, রাশিয়ার বিরুদ্ধে তেল নিষেধাজ্ঞা, রেকর্ড-উচ্চ মুদ্রাস্ফীতির মধ্যেও যুক্তরাষ্ট্রে গত মার্চ মাসে ভোক্তা মূল্য সূচক ৮.৫ শতাংশে উঠে। এরপর তেলের দাম শতকরা ১০ ভাগ বেড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ডিজেলের খুচরা দামও বেড়েছে। সেখানে প্রতি গ্যালন ডিজেল বিক্রি হচ্ছে ৫.৪৫ ডলারে। এটিও ডিজেলের দামে নতুন রেকর্ড।

তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে এক-তৃতীয়াংশ গাড়ির মালিক গাড়ি চালানো থেকে বিরত থাকছেন। ইয়ার্ডেনি রিসার্চ বলছে বর্ধিত তেলের খরচ বহনে গড় মার্কিন পরিবারগুলোকে পেট্রলের জন্য প্রায় ২ হাজার ডলার বেশি গুণতে হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে গত এক বছরে তেলের দাম বেড়েছে ৫০ শতাংশ। হোয়াইট হাউস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড-উচ্চ গ্যাসের দামের জন্য রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে দোষারোপ করেছে। মার্কিনীদের কাছে ‘পুতিনপ্রাইসহাইক’ অতি পরিচিত শব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

প্রেসিডেন্ট বাইডেন আগামী ৬ মাসের জন্য স্ট্র্যাটেজিক পেট্রোলিয়াম রিজার্ভ থেকে প্রতিদিন ১ মিলিয়ন ব্যারেল তেল বাজারে সরবরাহে রাজি হয়েছেন। এই গ্রীষ্মে পেট্রলের সঙ্গে ১৫ শতাংশ ইথানল মিশ্রণ ব্যবহার করে গ্যাসোলিন বিক্রির অনুমতি দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে নতুন তেল উৎপাদনকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে অলস তেল কূপ এবং তেল উৎপাদন কোম্পানিগুলোকে বিনিয়োগ সুবিধা দিতে কংগ্রেসকে আহ্বান জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। কিন্তু এসব সময় সাপেক্ষ। 

বুধবার, ১১ মে ২০২২, ০২:২৩

সর্বশেষ
জনপ্রিয়