সোমবার   ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩   মাঘ ২৩ ১৪২৯   ১৫ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন লুলা যে কোনো দিন খুলবে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল শীতে কাঁপছে উত্তরাঞ্চল দেশে করোনার নতুন ধরন, সতর্কতা বিএনপির সব পদ থেকে বহিষ্কার আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া নৌকার প্রার্থীর পক্ষে মাঠে কাজ করবো: মাহিয়া মাহি মর্মান্তিক, মেয়েটিকে ১২ কিলোমিটার টেনে নিয়ে গেল ঘাতক গাড়ি! স্ট্যামফোর্ড-আশাসহ ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ষবরণে বায়ু-শব্দদূষণ জনস্বাস্থ্যে ধাক্কা কোনো ভুল মানুষকে পাশে রাখতে চাই না বাসস্থানের চরম সংকটে নিউইয়র্কবাসী ট্রাকসেল লাইনে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত একাকার! ছুটি ৬ মাসের বেশি হলে কুয়েতের ভিসা বাতিল ১০ হাজার বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত চুক্তিতে বিয়ে করে ইউরোপে পাড়ি আইফোন ১৪ প্রোর ক্যামেরায় নতুন দুই সমস্যা পায়ের কিছু অংশ কাটা হলো গায়ক আকবরের ১৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১০০ কোটি ডলার নারী ফুটবলে দক্ষিণ এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে আবার বাড়লো স্বর্ণের দাম
২৬৩

এসপির উদ্যোগে এবার চাষাঢ়ার মোড়ের স্ট্যান্ড সরলো মিশনপাড়ায়

প্রকাশিত: ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

নারায়ণগঞ্জ শহরকে যানজটমুক্ত করতে শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া এলাকার ফুটপাত অবমুক্ত করা এবং অবৈধ স্ট্যান্ডগুলো সরিয়ে নেয়ার দাবি ছিল দীর্ঘদিনের। অবশেষে নারায়ণগঞ্জ নগরবাসীর সেই প্রাণের দাবিতে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ। পুলিশ সুপারের উদ্যোগের ফলে চাষাঢ়া মোড়ের পৌর সুপার মার্কেটের সামনে থাকা স্ট্যান্ডগুলো সরানো হয়েছে শহরের মিশনপাড়া এলাকায়।

৪ ফেব্রুয়ারী সোমবার সকাল ৯টায় শহরের মিশনপাড়া মোড়ে গিয়ে দেখা যায় ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক (টিআই) মোঃ শরফুদ্দিনের নেতৃত্বে মিশনপাড়া মোড় এলাকায় শীতলক্ষ্যা, দুরন্ত, লেগুনা, টেম্পু ও সিএনজি চালিত বেবীট্যাক্সিগুলোকে একটা শৃঙ্খলায় আনার কাজ করছেন ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা। এসময় পরিবহন মালিক সমিতির নেতা দিদারসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় টিআই শরফুদ্দিন কোন পরিবহন কোথায় অবস্থান করবে সেটার দিক নির্দেশনা দেন। এছাড়া শিমরাইল মোড়ে গমনকারী শীতলক্ষ্যা ও দুরন্ত পরিবহনের বাস ও লেগুনাগুলো যাতে চাষাঢ়া গোলচত্বরের দিকে না যায় সে বিষয়েও দিকনির্দেশনা দেন।

জানা গেছে, জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ নারায়ণগঞ্জে যোগদানের পর থেকেই ধীরে ধীরে কঠোর হতে শুরু করছেন সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে। ইতোমধ্যে গার্মেন্টস সেক্টরে শ্রমিক নেতাদের দৌরাত্ম্য কমে এসেছে এবং মাদক ব্যাবসায়ীদের বিরুদ্ধেও বিভিন্ন অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। পূর্বের তুলনায় সন্ত্রাস ও মাদক ব্যবসা কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। পাশাপাশি জেলা পুলিশ সুপার চাষাঢ়া এলাকায় যানজট দূর করা ও ফুটপাতকে হকারমুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

গত ১০ জানুয়ারি চাষাঢ়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রেস ব্রিফিং করে মাদক, ভূমিদস্যু ও হকার উচ্ছেদের ঘোষণা দেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদ। এসময় তিনি শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষায় কলেজের শিক্ষার্থীদের অযথা আড্ডা দিতে নিষেধ করেন। একই সাথে ভবিষ্যতে যেন ক্লাস চলাকালিন সময়ে আড্ডা দেয়া না হয় সে বিষয়ে সতর্ক করে দেন এবং শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা করার পরামর্শ দেন। এর ৩ দিন পর গত ১৩ জানুয়ারী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রহিমা আক্তার ও তাছলিমুন নেছার নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে কয়েক জন শিক্ষার্থীকে ধূমপানের অপরাধে জরিমানা করেন। এরপর থেকেই ক্লাস চলাকালীন সময়ে শহীদ মিনারে তেমন একটা ছাত্র ও ছাত্রীদের উপস্থিতি থাকে না।

পুলিশ সুপারের ১০ জানুয়ারীর ওই ঘোষণার চাষাঢ়া এলাকার ফুটপাথ থেকে হকাররাও বসতে সাহস করেন না। তারা এখন রুটিন মোতাবেক সন্ধার পর বসে তবে চাষাঢ়া গোল চত্বরের পাশে বসতে পারে না।

পুলিশ সুপারে নির্দেশনায় অভিযানের ফলে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে দীর্ঘদিন ধরে দখল করে থাকা সিএনজি স্ট্যান্ডও সড়ে যায়। যদিও মাঝে মাঝে তারা পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে অবৈধভাবে রাস্তার উপর দাঁড়িয়ে থাকেন। তবে সিএনজি স্ট্যান্ড সড়ে গেলেও চাষাঢ়া গোল চত্ত্বরের পাশে অবৈধভাবে গড়ে উঠা লেগুনা ও দূরন্ত স্ট্যান্ড উচ্ছেদ হচ্ছিল না। এবার সেই অবৈধ স্ট্যান্ডও উচ্ছেদ হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের কঠোর নির্দেশনায় শেষ পর্যন্ত তারা টিকে থাকতে পারেনি।

৩ ফেব্রুয়ারী রোববার পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় জেলা পুলিশ চাষাঢ়া গোল চত্ত্বরের পাশে অবৈধ গড়ে উঠা লেগুনা ও দূরন্ত বাসস্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হয়। ওই স্ট্যান্ডের গাড়িগুলো এখন মিশনপাড়া থেকে চলাচল করছে। ফলে গত দুইদিন চাষাঢ়া এলাকায় অন্যদিনের তুলনায় যানজটও কম ছিল। রাস্তা দিয়ে যাতায়াতকারী সাধারণ মানুষের কিছুটা ভোগান্তির লাঘব হয়েছে।

এদিকে সচেতন নারায়ণগঞ্জবাসী মনে করছেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ যে ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছেন সেগুলো বহাল থাকলে শহরের যানজট থাকবেনা বললেই চলে। কারণ ইতিমধ্যে নগরীতে যানজটের যে প্রকোপ ছিল তা নেই বললেই চলে। পুলিশ সুপারের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাচ্ছে সচেতন মহল।

সাপ্তাহিক আজকাল
সাপ্তাহিক আজকাল
এই বিভাগের আরো খবর