ঢাকা, ২০২১-০৪-২০ | ৬ বৈশাখ,  ১৪২৮
সর্বশেষ: 
কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

সিঙ্গেল কলাম শ্রী চিন্ময়কে নিয়ে দিমার তথ্যচিত্র

প্রকাশিত: ০২:২৮, ৩ এপ্রিল ২০২১  


আজকাল রিপোর্ট
জাতিসংঘে পিস মেডিটেশনের নেতৃত্বদানকারী বিশ্বখ্যাত বাঙালি ধ্যানসাধক শ্রী চিন্ময় কুমার ঘোষ এর জীবনদর্শন এবং কাজ নিয়ে তথ্যচিত্র বানালেন সংবাদ উপস্থাপিকা, টিভি সাংবাদিক এবং লেখক  দিমা নেফারতিতি। এটি দিমার নির্মিত চতুর্থ তথ্যচিত্র।
২০০২ সাল থেকে টিভি উপস্থাপনা, সাংবাদিকতার পাশাপাশি তথ্যচিত্র নির্মাণ করে আসছেন দিমা। এর আগে বাংলাদেশে অবস্থানকালে তিনটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন দিমা। তবে ‘ধ্যানগুরু শ্রী চিন্ময়ের জীবন এবং কর্ম’ নামে তথ্যচিত্রটি যুক্তরাষ্ট্র থেকে বানানো দিমা নেফারতিতির প্রথম তথ্যচিত্র। বিশ মিনিটের এই তথ্যচিত্রে প্রাঞ্জলভাবে উঠে এসেছে এই বিশ্বখ্যাত বাঙালী ধ্যান সাধক ও শান্তি দূত এর জীবনালেখ্য, সৃষ্টিশীলতা এবং মানব কল্যাণে তাঁর অবদান। দিমা জানান, এই তথ্যচিত্রটি বাংলা এবং ইংরেজি দুটি ভাষাতে নির্মাণ করেছেন তিনি। এই প্রকল্পে দিমাকে সহযোগিতা করেছে নিউইয়র্কের শ্রী চিন্ময় সেন্টার হেড কোয়ার্টার।
উল্লেখ্য, তথ্যচিত্রটি ক্যালিফোর্নিয়া বাংলা টিভি, টিভি এশিয়া, আইটিভিসহ বেশ কটি ভারতীয় এবং বাংলাদেশি টেলিভিশনে প্রচারের অপেক্ষায় রয়েছে। পাশাপাশি তথ্যচিত্রটি দিমা নেফারতিতির ইউটিউব চ্যানেল এবং শ্রী চিন্ময় সেন্টারের ওয়েবসাইটে পাওয়া দেখা যাবে। বাংলাদেশে একুশের বইমেলায় শ্রী চিন্ময় সেন্টারের স্টলে তথ্যচিত্রটির প্রদর্শনী হবে বলেও জানা গেছে।
বাঙালির মানবিকতা, শ্রদ্ধা, ভালবাসা ও সাংস্কৃতিক চেতনার এক মূর্ত প্রতীক শ্রী চিন্ময়। প্রতিটি মানুষের মধ্যে যে সুপ্ত প্রতিভা, তাকে জাগ্রত করে সমস্ত মানবতার কল্যাণে তা নিয়োজিত করাই ছিল তাঁর সাধনা। তাই তিনি বিশ্বের অগণিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করেছেন। নয়টি অলিম্পিক সোনা বিজয়ী কার্ল লুইস তাঁর দ্বারা অনুপ্রাণিত। মোহাম্মদ আলী ক্লে বিশ্ব শিরোপা জয়ের পরদিন নিউইয়র্ক টাইমসে আলী ও শ্রী চিন্ময়ের ছবি একসাথে প্রকাশিত হয়। তাঁর ছাত্রছাত্রীদের অনেকেই ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ী, এদের মধ্যে ৫৯ বছর বয়সে চ্যানেল বিজয়ী নারীও রয়েছেন।  
শ্রী চিন্ময়ের জীবন ছিল সীমাহীন সৃজনশীলতার এক মূর্ত প্রতীক। সংগীত, কাব্য, চিত্রকলা, সাহিত্য এবং ক্রীড়ার মত জ্ঞ্যান ও কর্মের বিস্তৃত সব ক্ষেত্রে তিনি বিপুল সৃষ্টির সাক্ষর রেখে গেছেন। প্রতিটি ক্ষেত্রে তাঁর রয়েছে সুদূর প্রসারী ও বিস্ময়কার সব কীর্তি। বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী শ্রী চিন্ময় মানুষের অসীম সৃজনী শক্তিতে বিশ্বাস করতেন। সৃজনশীলতার তিনি নিজেই এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। তিনি হাজার হাজার বাংলা ও ইংরেজি গান রচনা করেছেন। প্রায় এক হাজার ছয়শ বই লিখেছেন। হাজার হাজার ছবি এঁকেছেন। ঝর্ণাকলা নামে খ্যাত তাঁর চিত্রশিল্পে রয়েছে বহু বর্ণিল ও নানা চিন্তার সমাহার।
শ্রী চিন্ময়ের মতে জীবনের সুগভীর ও উচ্চ আদর্শের জন্যে হৃদয়ের আকুতিই হচ্ছে যেকোন ক্ষেত্রেÑ ধর্ম, সংস্কৃতি, ক্রীড়া, বিজ্ঞান ইত্যাদিতে অগ্রসর হওয়ার আধ্যাত্মিক শক্তি। ক্রীড়ার ক্ষেত্রে তিনি এক অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব। ছিয়াত্তর বছর বয়সে থাইল্যান্ডে তিনি পর পর সাতটি হাতি উত্তোলন করে সবাইকে বিস্মিত করেছিলেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ম্যারাথন টিম বিশ্বব্যাপী শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে দৌড় ও বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। ‘ওয়ার্ল্ড হারমনি রান’ প্রতি বছর বিশ্বের শতাধিক দেশের মানুষকে মিলিত করে। তাঁর প্রতিষ্ঠিত বিশ্বের দীর্ঘতম তিন হাজার একশত মাইল দৌড় প্রতিযোগিতায় প্রতিযোগিরা প্রতিদিন আশি থেকে একশত মাইল দৌড়ায়Ñটানা ৫১ দিন, ভোর ছয়টা থেকে রাত বারটা পর্যন্ত।
শ্রী চিন্ময় বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার বোয়ালখালী উপজেলার শাকপুরা গ্রামে ১৯৩১ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। বার বছর বয়সে ১৯৪৩ সালে মা বাবাকে হারানোর পরে শ্রী চিন্ময় দক্ষিণ ভারতের পন্ডিচেরির শ্রী অরবিন্দের আশ্রমে যোগ দেন এবং এখানে আধ্যাত্মিক সাধনায় তিনি জীবনের পরবর্তী ২০ বছর কাটান। শ্রী চিন্ময় কৈশোরেই মেডিটেশনের ক্ষেত্রে সুগভীর কিছু আত্মিক অনুভূতি পান এবং পরবর্তী কালে ধ্যানের সর্বোচ্চ অনুভূতিও তিনি লাভ করেন। পাশ্চাত্যের অকৃত্রিম সাধকদের সাথে তাঁর আধ্যাত্মিক জ্ঞান ভাগ করার জন্যে তিনি ১৯৬৪ সালে নিউইয়র্কে পাড়ি দেন।
ঝঞ্ঝা বিক্ষুব্ধ সমকালীন জীবনের গতিশীলতার ভেতরে থেকেই ভারসাম্যপূর্ণ জীবন পরিচলনায় তিনি প্রেরণা দেন।
শ্রী চিন্ময় ১৯৭০ সাল থেকে ২০০৭ এ পরলোক গমনের আগ পর্যন্ত জাতিসংঘের সদর দফতরে পীস মেডিটেশনের নেতৃত্ব দিয়েছেন। শ্রী চিন্ময়ের আদর্শ, ¯্রষ্টা ও সৃষ্টিকে ভালবাসা। মা যেমন বাচ্চার কান্না শুনে আকুল হয়ে ছুটে আসে তেমনি শ্রী চিন্ময় যেখানেই আর্ত মানবতার ক্রন্দন শুনেছেন, সেখানেই ছুটে গেছেন, সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ‘ওয়ান্নেস-হার্ট-টিয়ার্স এন্ড স্মাইল’ সংগঠনটি বিশ্বের ১৫০টিরও বেশি দেশে যথাসাধ্য খাদ্য দ্রব্য, ঔষধ ও শিক্ষা সামগ্রী পাঠিয়ে তাঁর বাঙালি হৃদয়ের সংবেদনশীলতা প্রকাশ করেছেন। যেমন কলকাতার মাদার তেরেসার মিশনারিতে বা মস্কোতে মিখাইল গর্বাচেভের শিশুদের ব্লাড ক্যান্সার চিকিৎসা কেন্দ্রে, এঙ্গোলার ক্ষুধার্ত শিশুদের ও বাংলাদেশের বন্যা পীড়িত মানুষকে তিনি সাধ্যমত সাহায্য পাঠিয়েছেন।    
পরশ পাথরের ছোঁয়ায় সব কিছুই নাকি সোনা হয়ে যায়; তাঁর অনুপ্রেরণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অনেকেই বিখ্যাত হয়েছেন, অনেকেই হতাশা কাটিয়ে মানসিক সুখ ও প্রশান্তি লাভ করেছেন। বিশ্বের দেশে দেশে, জাতিতে জাতিতে শান্তি, মৈত্রী ও সমঝোতা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তিনি বিশ্বময় প্রায় ৮০০ একক কনসার্টের আয়োজন করেছেন। সবই দর্শকদের জন্যে বিনামূল্যে। কারণ তিনি মনে করতেন, শারীরিক সুস্থতার মত মানসিক শান্তি ও সুস্থতার জন্য মেডিটেশন, ক্রীড়া, সংস্কৃতি চর্চার অধিকার রয়েছে বিশ্বের প্রতিটি মানুষের। তাঁর ছাত্র ও অনুসারীদের সাথে মিলিত হতে, বিশ্বের ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে বিশ্ব শান্তি ও আধ্যাত্মিক আলোচনার জন্য ও সংগীতের কনসার্ট, বক্তৃতা, সার্বজনীন ধ্যান সভা করার জন্য শ্রী চিন্ময় প্রায়ই বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেতেন। শ্রী চিন্ময় কখনোই তাঁর আধ্যাত্মিক বক্তব্য, সংগীত কনসার্ট বা ধ্যান সভার জন্য অর্থ গ্রহণ করেননি। তাঁর আদর্শে অনুপ্রাণিত ছাত্রছাত্রীরা বিশ্বব্যাপী বিনামূল্যে মেডিটেশন শিক্ষা দিয়ে থাকে।

 

সর্বশেষ
জনপ্রিয়