শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪   জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১   ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সর্বশেষ:
দিনের বেলায় মরুভূমির চেয়েও উত্তপ্ত চাঁদ ডেঙ্গুতে একদিনে ১১ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ২৩২৭ ৬ কংগ্রেসম্যানের চিঠির সত্যতা চ্যালেঞ্জ করে ২৬৭ প্রবাসী বাংলাদেশি অক্টোবরের মধ্যেই ‘আন্দোলনের ফসল’ ঘরে তুলতে চায় বিএনপি শর্তসাপেক্ষে নিউইয়র্কে মসজিদে আজানের অনুমতি বাংলাদেশ থেকে বিনা খরচে মালয়েশিয়া গেলেন ৩১ কর্মী খেলাপি ঋণ কমাতে কঠোর নির্দেশ জার্মানে পাঁচ বছর বাস করলেই পাওয়া যাবে নাগরিকত্ব বিএনপি-জাপা বৈঠক সিঙ্গাপুরে বাইডেন প্রশাসনকে হাসিনার কড়া বার্তা এবার হাসিনার পাশে রাশিয়া বঙ্গ সম্মেলনের ইতিহাসে ন্যাক্কারজনক ঘটনা স্টুডেন্ট লোন মওকুফ প্রস্তাব বাতিল বাংলাদেশিদের ওপর উপর্যুপরি হামলা যুক্তরাষ্ট্রের উচিত আগে নিজ দেশে মানবাধিকার রক্ষা করা: শেখ হাসিনা তামিমের অবসর অভিযোগের তীর পাপনের দিকে নিউইয়র্কে এখন চোরের উপদ্রুব যুক্তরাষ্ট্রের ২৪৭তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে হাতিরঝিলের ক্ষতি হবেই ইসরায়েল-ফিলিস্তিন যুদ্ধবিরতি, পাঁচ দিনে নিহত ৩৫ যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটছে বাখমুত থেকে পিছু হটেছে সেনারা, স্বীকার করল রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণ ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ সুপার সাইক্লোন হবে না, দাবি আবহাওয়া অধিদপ্তরের সুদানে যুদ্ধে সাড়ে ৪ লাখ শিশু বাস্তুচ্যুত : জাতিসংঘ পারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ এশিয়ায় খেলাপি ঋণে দ্বিতীয় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটে সারা দেশে ভোগান্তি রুশ হামলা সামলে ফের বিদ্যুৎ রপ্তানি করতে যাচ্ছে ইউক্রেন রিজার্ভ সংকট, খাদ্যমূল্য বৃদ্ধির জন্য সরকারের দুর্বল নীতিও দায়ী পূজার ‘জিন’ একা দেখতে পারলেই মিলবে লাখ টাকা! সিরিয়ায় আর্টিলারি হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল বাইডেন না দাঁড়ালে প্রার্থী হবেন কে নাইজেরিয়ায় ৭৪ জনকে গুলি করে হত্যা ভারতে বাড়ছে করোনা, বিধিনিষেধ জারি তিন রাজ্যে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন লুলা যে কোনো দিন খুলবে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল শীতে কাঁপছে উত্তরাঞ্চল দেশে করোনার নতুন ধরন, সতর্কতা বিএনপির সব পদ থেকে বহিষ্কার আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া নৌকার প্রার্থীর পক্ষে মাঠে কাজ করবো: মাহিয়া মাহি মর্মান্তিক, মেয়েটিকে ১২ কিলোমিটার টেনে নিয়ে গেল ঘাতক গাড়ি! স্ট্যামফোর্ড-আশাসহ ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ষবরণে বায়ু-শব্দদূষণ জনস্বাস্থ্যে ধাক্কা কোনো ভুল মানুষকে পাশে রাখতে চাই না বাসস্থানের চরম সংকটে নিউইয়র্কবাসী ট্রাকসেল লাইনে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত একাকার! ছুটি ৬ মাসের বেশি হলে কুয়েতের ভিসা বাতিল ১০ হাজার বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত চুক্তিতে বিয়ে করে ইউরোপে পাড়ি আইফোন ১৪ প্রোর ক্যামেরায় নতুন দুই সমস্যা পায়ের কিছু অংশ কাটা হলো গায়ক আকবরের ১৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১০০ কোটি ডলার নারী ফুটবলে দক্ষিণ এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে আবার বাড়লো স্বর্ণের দাম
১৩৯৭

বাংলাদেশের নির্বাচন

বাইডেন-মোদী বৈঠকেই হাসিনার ভাগ্য নির্ধারণ?

প্রকাশিত: ১০ জুন ২০২৩  


 

যুক্তরাষ্ট্র-ভারত বৈঠকের দিকে তাকিয়ে ঢাকা

ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা তথা
উত্তর-পূর্বাঞ্চলের স্বার্থে ২০২৪
সালের নির্বাচনে হাসিনাকেই
চায় মোদী সরকার।

রাজনৈতিক ভাষ্যকার
চলতি মাসে ওয়াশিংটন আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বাংলাদেশের প্রতিবেশি বন্ধুপ্রতিম দেশটির সরকার প্রধানের এই সফরের দিকে তাকিয়ে আছে ঢাকা। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সম্পর্কের যে অবনতি তাতে বরফ গলানোর কাজ করবেন নরেন্দ্র মোদী এমনটা পর্যবেক্ষক মহলের ধারণা। তাহলে কী মোদীর এ সফরেই ভাগ্য নির্ধারণ হবে বাংলাদেশের?
পর্যবেক্ষক মহলের এটি মনে করার পেছনে কারণগুলো অমূলক নয়। বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য করতে ইতোমধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দেশটির বিরুদ্ধে আগাম ভিসা নিষধাজ্ঞা দিয়েছে। এর পরিপ্রক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি প্রকাশ্যেই দেশের মানুষকে মার্কিন মুল্লুকে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্র থেকে কোনো কিছু না কেনারও হুমকি দিয়েছেন। যদিও বাংলাদেশ যে পরিমাণ পণ্য যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বিক্রি করে তার তুলনায় আমদানির পরিমাণ নেহায়েত সামান্য। তাহলে বিশ্ব মোড়ল দেশটির বিরুদ্ধে হাসিনার এই বিষোদগার কিসের জোরে? সচেতন মহল মাত্রই জানেন এর পেছনে রয়েছে ভারত। যদিও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আগাম ভিসা নীতি ঘোষণার পর নড়েচড়ে বসেছে হাসিনা সরকার। তাই আগের চেয়ে আরও বেশি ভারতের দিকে ঝুঁকেছে দেশটি।
হাসিনা সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করে যুক্তরাষ্ট্র কী অর্জন করতে চাইছে সেটাও এখন বড় প্রশ্ন। বাংলাদেশের ব্যাপারে বাইডেন প্রশাসনের অতিমাত্রায় সক্রিয় ভাব প্রকাশ পাওয়ার পর নড়েচড়ে বসেছে দিল্লিও। ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা তথা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের স্বার্থে ২০২৪ সালের নির্বাচনে হাসিনাকেই বিজয়ী দেখতে চাইছে মোদী সরকার। ভারত মনে করে, খালেদা জিয়ার শাসনামলে পাকিস্তানের প্রভাব ছিল।
বাংলাদেশ পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত সাংঘর্ষিক অবস্থানে দাঁড়িয়ে গেছে বলে মনে করা হচ্ছে। নয়াদিল্লির কাছে শেখ হাসিনার কোনও বিকল্প এখনও কেউ নেই। বাংলাদেশ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান কঠোর হওয়ায় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, রিসার্চ অ্যান্ড এনালাইসিস উইং (র), জাতীয় নিরাপত্তা সমন্বয় সচিবালয়, এমনকি প্রধানমন্ত্রী মোদীর দফতর পর্যন্ত ঝাঁকুনি খেয়েছে। ভারতের মিডিয়ায় বলা হচ্ছে, ওয়াশিংটনের কঠোর অবস্থানের কারণে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শংকর এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের কাজকে কঠিন করে তুলেছে। দিল্লির বিশ্লেষকরা মনে করেন, বাইডেন প্রশাসনের অতিমাত্রায় চাপ শেখ হাসিনার সরকারকে চীনের ওপর নির্ভরশীল করে তুলতে পারে। ঢাকায় চীনের ছায়াতলে আশ্রয় নিতে পারে আইএসআই। এটা হলে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রভাব পড়তে পারে।
সার্বিক পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্রের চাপে ভারতকে পাশে চায় বাংলাদেশ-এমন খবর দিয়েছে খোদ ভারতের বহুল প্রচারিত দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকা। এবার ঢাকার আশা, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ওয়াশিংটনকে নমনীয় রাখতে আরও উদ্যোগী হবে দিল্লি। আর এটি হতে পারে নরেন্দ্র মোদীর যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময়ই হবে।
আমেরিকা আর ভারতের সম্পর্ক কতটা ভালো সেটা সাম্প্রতিক ঘটনার দিকে নজর রাখলেই বোঝা যায়। এর আগে একাধিকবার নরেন্দ্র মোদী যুক্তরাষ্ট্র সফর করলেও এবারই রাষ্ট্রীয় সফরে আসছেন তিনি। আগামী ২১ জুন থেকে ২৪ জুন পর্যন্ত চারদিন যুক্তরাষ্ট্র সফর করবেন নরেন্দ্র মোদী। ২২ জুন বাইডেন-মোদী বৈঠক হোয়াইট হাউসে। এই সফরে আতিথিয়তায় এমন কিছু সুবিধা পাচ্ছেন মোদী যা এর আগে কখনও হয়নি। এই সফরের আগে ভারতের স্তুতিও গাইছে আমেরিকা। ফলে মোদীর কথা ফেলতে পারবে না বাইডেন সরকার এমনটাই আশা হাসিনা সরকারের।
এদিকে বাংলাদেশের নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তে অর্থাৎ সেপ্টেম্বরে জি-২০ শীর্ষ সম্মেলন যোগ দিতে দিল্লি যাচ্ছেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ জি-২০ এর সদস্য না হলেও দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ভারত। আর এজন্য নয়াদিল্লির চাহিদা-তালিকার সবই বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। যদি কিছু বাকি থাকে, তবে তা ছোটখাটো বিষয় এবং দ্বিপাক্ষিক প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে। সূত্রের দাবি, সম্প্রতি চট্টগ্রাম এবং মংলা বন্দর ব্যবহারের অনুমতি ভারতকে দেওয়ার বিষয়টি দশ-পনেরো বছর আগেও কল্পনা করতে পারতেন না বাংলাদেশের মানুষ। কিন্তু সেটাও আজ সম্ভব হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে মোদীর যুক্তরাষ্ট্র সফরে ঢাকা চাইছে, দেশটির আসন্ন নির্বাচন নিয়ে আমেরিকা তথা পশ্চিমের যে চাপ তৈরি হয়েছে, তার মোকাবিলায় কূটনৈতিক ভাবে আওয়ামী লীগ সরকারের পাশে থাকুক ভারত। তাই বাইডেন-মোদী বৈঠকের দিকে গভীর দৃষ্টি রাখছে বাংলাদেশ।

 

সাপ্তাহিক আজকাল
সাপ্তাহিক আজকাল
এই বিভাগের আরো খবর