ঢাকা, ২০২০-১০-২০ | ৫ কার্তিক,  ১৪২৭
সর্বশেষ: 
অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

নিউইয়র্কে ডেমোক্র্যাট প্রাইমারি ২৩ জুন

‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’

বিশেষ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৩:০৩, ২০ জুন ২০২০  




আজকাল রিপোর্ট
আগামী ২৩ জুন নিউইয়র্কে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রাইমারি অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে বিভিন্ন পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন বাংলাদেশিরা। যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক, নিউইয়র্ক স্টেট এসেম্বলী এবং দলের ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি নির্বাচন করছেন। বাংলাদেশি বিভিন্ন সংগঠন ও নেতৃবৃন্দ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী বাংলাদেশিদের ভোট দেওয়ার জন্য প্রবাসীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেশনাল ডিস্ট্রিক্ট-১৪ থেকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন কমিউনিটির পরিচিত মুখ, জালালাবাদ এসোসিয়েশেনের সাবেক প্রেসিডেন্ট বদরুন খান মিতা। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান কংগ্রেসওমেন আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্টেজ। এছাড়াও নিউইয়র্ক-৫ থেকে কংগ্রেসে নির্বাচন করছেন শানিয়াত চৌধুরী। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান কংগ্রেসম্যান গ্রেগরি মিক্স। নিউইয়র্ক স্টেট এসেম্বলীতে প্রার্থীতার জন্য নির্বাচন করছেন জয় চৌধুরী, মাহফুজুল ইসলাম ও মেরি জোবায়দা। এছাড়া ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে প্রাইমারিতে নির্বাচন করছেন কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ এন. মজুমদার, বাংলাদেশি তরুণ মাহতাব খান ও বাংলাদেশি তরুণী মৌমিতা আহমেদ। নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় নেমেছেন শাহানা হানিফ।
বদরুন খান মিতা আজকালকে বলেন, বিগত নির্বাচনে আলেক্সান্দ্রিয়া ওকাসিও-কর্টেজের পক্ষে বাংলাদেশিরা কাজ করেছেন। কিন্তু প্রতিদানে তিনি কি দিলেন। কংগ্রেস, স্টেট এসেম্বলি, সিটি কাউন্সিল, ডিস্ট্রিক্ট লিডার পদে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি নির্বাচন বরছেন। কিন্তু কংগ্রেসওমেন ওকাসিও এদের মধ্য থেকে একজন বাংলাদেশিকেও এনডোর্স করেননি। তিনি বলেন, আমাদের পরিবর্তন দরকার। দরকার নিজ কমিউনিটিকে শক্তিশালী করা। এজন্য ২৩ জুন সবাইকে ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান জানান বদরুন খান মিতা।
শানিয়াত চৌধুরী আজকালকে বলেন, সময় এসেছে পরিবর্তনের। পরিবর্তনের স্লোগান শক্তিশালী হচ্ছে। আমিও পরিবর্তন চাই। আর এজন্য নিজের কমিউনিটিকে পাশে চাই।
জয় চৌধুরী আজকালকে বলেন, বাংলাদেশিদের স্বার্থে কথা বলতে গিয়ে, অভিবাসীদের পক্ষে দাঁড়িয়ে আমি গ্রেফতার হয়েছি। তারপরও আমার কণ্ঠ কেউ রুখতে পারেনি। আমি আশা করি, কমিউনিটি আমার পাশে দাঁড়াবে।
মাহফুজুল ইসলাম বলেন, নিউইয়র্কে বাংলাদেশিরা সব থেকে দ্রুত বৃদ্ধি পাওয়া জাতি গোষ্ঠী গুলোর মধ্যে একটি। তাই এই কমিউনিটিকে আরও শক্তিশালী করতে স্টেট এসেম্বলীতে আমাদের প্রতিনিধিত্ব করতে হবে।
মেরি জোবায়দা বলেন, বাংলাদেশে মানুষের পাঁচটি মৌলিক চাহিদার কথা বলা হয়, তা হলোÑ অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য। যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেত্রেও বিষয়টি একই, কোনো পার্থক্য নেই। বাংলাদেশিদের এগুলোর জন্য লড়াই খুবই সাধারণ একটি বিষয়। যুক্তরাষ্ট্রেও একই অবস্থা চলছে। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক স্টেট এসেম্বলীর প্রথম মুসলিম নারী ও প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে জয়ী হতে সবাই আমাকে ভোট দিবেন এটা আশা করি।
মোহাম্মদ এন. মজুমদার আজকালকে বলেন, আমার প্রবাসী জীবনের পুরোটা সময় আমি কমিউনিটি সেবায় পার করেছি। বাংলাদেশিদের এমন কোনো কাজ নেই যেখানে আমি তাদের কল্যাণে কাজ করিনি। বাংলাদেশিরাও আমার পাশে থাকবেন এটাই প্রত্যাশা করি।
মৌমিতা আহমেদ আজকালকে বলেন, আমাদের এখন সময় এসেছে প্রতিটি ক্ষেত্রে বাংলাদেশিদের হাতকে শক্তিশালী করা। এজন্য আমাদের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে হবে, জয়ী হতে হবে।
মাহতাব খান আজকালকে বলেন, আমি মানুষের জন্য কিছু করতে চাই। তাই রাজনীতিতে এসেছি। আমরা এখনও তরুণ, আরও বেশি করে তরুণরা যেন রাজনীতি আসে তার জন্য আমি কাজ করছি।
শাহানা হানিফ আজকালকে বলেন, বাংলাদেশি আমেরিকানরা রাজনীতিতে কম আসছে। কিন্তু আমাদের জনগোষ্ঠী কিন্তু একেবারে ছোট নয়। নিউইয়র্ক শহরে এমন কোনো স্থান নেই যেখানে বাংলাদেশিরা নেই। তাই সিটি কাউন্সিলেও বাংলাদেশি কমিউনিটিকে শক্তিশালী ভুমিকা রাখতে হবে।

 

নিউইয়র্ক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
সর্বশেষ
জনপ্রিয়