ঢাকা, ২০২১-০৯-২৬ | ১১ আশ্বিন,  ১৪২৮
সর্বশেষ: 
অনুসন্ধানী সাংবাদিকতায় হস্তক্ষেপ না করার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্র বিচার ১২৩ বছর আগে গ্রেপ্তার গাছ, শেকলে বন্দি আজো ফ্রান্স প্রেসিডেন্টকে চড় মারার মাশুল কতটা? কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

যৌন হয়রানির অভিযোগ পাঁচ নারীর

ডা. ফেরদৌসের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ০৪:১২, ২১ আগস্ট ২০২১  


 
আজকাল রিপোর্ট
জ্যাকসন হাইটস ভিত্তিক খ্যাতনামা চিকিৎসক ডা. ফেরদৌস খন্দকারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন পাঁচজন নারী। তাঁর বিরুদ্ধে আনা যৌন হয়রানির ঘটনাগুলির মধ্যে রয়েছে অবাঞ্ছিতভাবে মেয়েদের স্তন পরীক্ষা করা। তাঁর এই আচরণের শিকার হয়েছেন এমনকি ১৪ বছর বয়স্কা কিশোরীও।
‘দি সিটি’ পত্রিকায় গত ১৭ আগস্ট প্রকাশিত এ সংক্রান্ত খবরে বলা হয়েছে, ডা. ফেরদৌস খন্দকারের বিরুদ্ধে গত শুক্রবার কুইন্স সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা এই ‘ক্লাস অ্যাকশন ল’ স্যু’-তে অভিযোগকারী নারীরা বলেছেন,  প্রায় দুই দশক ধরে ডা. খন্দকার মেয়েদের স্তনে হাত দেয়ার ঘটনা ঘটিয়ে আসছেন। এমনকি তারা গলা ব্যথার মতো সাধারণ সমস্যা নিয়ে গেলেও তিনি তাদের সাথে এই ধরনের আচরণ করেছেন। কখনও কখনও তিনি তাদেরকে আংশিকভাবে কাপড় খুলতেও নির্দেশ দিয়েছেন। কোর্টে দাখিল করা কাগজপত্রে তারা ফেরদৌস খন্দকারকে ‘বাঙালি কমিউনিটিতে অত্যন্ত পরিচিত একজন স্বঘোষিত সেলিব্রেটি ডাক্তার’ বলে উল্লেখ করেছেন। তারা বলেছেন, ‘ডা. ফেরদৌস খন্দকার একজন সিরিয়াল সেক্সুয়াল প্রিডেটর যিনি কয়েক দশক ধরে ডজন ডজন নারী ও তরুণী মেয়েদের চিকিৎসা সেবা দেয়ার নামে যৌন হয়রানি করে আসছেন।
উল্লেখ্য, অভিযোগকারী এই নারীরা গত বছর ডা. খন্দকারের এই আচরণ সম্পর্কে ফেইসবুকে ক্রমাগত লেখা শুরু করলে খন্দকার এদের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেন। কিন্তু সে মামলা খারিজ হয়ে গেছে এবং এখন এই পাঁচ নারী আদালতে তাঁর বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগে এই মামলা দায়ের করেছেন। এই পাঁচজনের পক্ষের অ্যাটর্নি সুসান ক্রুমিলার এ ব্যাপারে বলেছেন, ডা. খন্দকার যা করেছেন তার জন্য তাকে জীবনের বাকি সময়টা অনুশোচনা করে কাটাতে হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। তিনি যে উদ্দেশে মানহানির মামলা দায়ের করেছিলেন তা তাঁর বিরুদ্ধেই গেছে। তাঁর হাতে নিগৃহীত হওয়া আরো অনেকেই এর পর এগিয়ে আসবেন বলে মনে করি। ফেরদৌস খন্দকার এমন একজন মানুষ যিনি নাকি তাঁর সুনামকে ব্যবহার করে এমন কাজ করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে সাহসী হবেন এখন অনেকেই। অ্যাটর্নি সুসান ক্রুমিলার আরো বলেন, খন্দকার নিশ্চয় এটা ধারণা করেছিলেন যে মানহানির মামলা দায়ের করে তিনি তাঁর ভিকটিমদের মুখ বন্ধ করে দিতে সক্ষম হবেন। কিন্তু বাস্তবে এর বিপরীতটাই ঘটে গেল।
‘দি সিটি’ লিখছে, এ ব্যাপারে মন্তব্য করার জন্য ডা. খন্দকার কিংবা তাঁর অ্যাটর্নি কাউকেই যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। পত্রিকাটির খবরে বলা হয়েছে, ডা. খন্দকার যে মানহানির মামলা দায়ের করেছিলেন তাতে তিনি বলেছিলেন তিনি তাঁর কোন রোগীকে যৌন নিপীড়ন করেননি এবং কখনই কাউকে ‘মলেস্টেড’ করেননি। তিনি বলেছিলেন, তাঁর কাছে চিকিৎসার জন্য আসা রোগীদের কোন প্রয়োজনীয় কারণ ছাড়া স্তন পরীক্ষা করেননি। ডা. খন্দকার তাঁর এই মানহানির মামলা খারিজ হওয়ার বিরুদ্ধে আপীল করেছেন।
এই ক্লাস অ্যাকশন স্যু’র কাগজপত্রে অভিযোগকারী নারীরা বলেছেন, তাদের সাথে ডা. খন্দকার এসব ঘটনা ঘটিয়েছেন যখন তাদের বয়স ছিল ১৪ থেকে ২৩-এর মধ্যে। একজন বলেছেন, তিনি তাঁর মায়ের সাথে খন্দকারের ৩৭ এভিনিউয়ের অফিসে গিয়েছিলেন। তখন তাঁর বয়স ছিল ২৩। তাকে সাধারণ রক্ত পরীক্ষার কথা বলে ডা. খন্দকার তাকে নিয়ে রোগী পরীক্ষার ঘরে ঢুকে বলেন, রক্ত পরীক্ষার আগে তার আরো কিছু চেক-আপের প্রয়োজন। তিনি তাঁর গায়ের জামা উপরে তুলে ধরার চেষ্টা করেন। এই নারী তাকে প্রতিরোধের চেষ্টা করেন বলে নথিপত্রে উল্লেখ করেছেন। কিন্তু ডাক্তার তাকে চাপাচাপি করতে থাকেন এবং এক পর্যায়ে তাঁর জামা কাঁধ পর্যন্ত তুলে ফেলেন। মামলার নথিতে এই বিবরণ দিয়ে বলা হয়েছে, এরপর ডা. খন্দকার তাঁর ব্রা’র নিচে দিয়ে স্টেথোস্কোপ ঢুকিয়ে দেন। এ সময় তিনি তাঁর বুকের দিকে তাকিয়ে ছিলেন এবং এই অবস্থায় তিনি দারুণ অস্বস্তি বোধ করতে থাকেন। অভিযোগপত্রে এই মহিলা, যার বয়স এখন ২৪ আরো বলেছেন, এর পর ডা. খন্দকার আঙুল দিয়ে তাঁর স্তনাগ্র নাড়তে থাকেন। তিনি বলেন, এ অবস্থা ছিল আমার জন্য অসহনীয় এবং অকল্পনীয়। আমি তাকে সজোরে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দিই। সে ঘর থেকে ভয়ে কাঁপতে কাঁপতে বেরিয়ে আসি। সম্ভবত খন্দকার তখন বুঝতে পারেন আমার সাথে কাজটা তিনি ভাল করেননি।
তিনি জানিয়েছেন, তিনি তাঁর মাকে নিয়ে ডাক্তারের অফিস থেকে বেরিয়ে এসেছিলেন, কিন্তু খন্দকারের মুখোমুখি হওয়ার সাহস সঞ্চয় করতে পারেননি। এই দিনই বিকেলে তিনি পুরো ঘটনাটি ফেইসবুকে বিবৃত করেন এবং এটি তাঁর এক বন্ধুর জীবনের ঘটনা বলে উল্লেখ করেন।
এর পরের মাসগুলিতে আরো কয়েকজন নারী ফেইসবুকে তাঁর সাথে যোগাযোগ করেন এবং এই ডাক্তারের হাতে তাদের নিগ্রহের কথা তাকে জানান। জুন মাসে তিনি এই একই পোস্ট ফেইসবুকে আবারও দেন এবং চেঞ্জ ডট অরগে একত্রিত হয়ে তারা খন্দকারের মেডিকেল লাইসেন্স বাতিলের দাবি তোলেন। তাদের চেঞ্জ ডট অরগে দেয়া এই পিটিশনের পক্ষে সাড়ে ৪ হাজার সমর্থন পড়ে।
খন্দকার এই নারী এবং আরো দুজনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করে এক মিলিয়ন ডলারের ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। এই মামলা দায়েরের এক বছর পর জজ এটি খারিজ করে দেন তাঁর প্রতিপক্ষের আইনজীবীকে তাঁর পারিশ্রমিকের অর্থ প্রদানের নির্দেশ দেন। এই রায়ের বিরুদ্ধে ডা. ফেরদৌস খন্দকার আপীল করেছেন।

 

Space For Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement Advertisement
সর্বশেষ
জনপ্রিয়