ঢাকা, ২০২১-০৫-০৭ | ২৪ বৈশাখ,  ১৪২৮
সর্বশেষ: 
কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

টিকায় ৩ মাসে বেক্সিমকোর মুনাফা ৩৮ কোটি টাকা

প্রকাশিত: ০২:১৬, ৩ মে ২০২১  

করোনার টিকা আমদানি করে তিন মাসে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের মুনাফা হয়েছে ৩৮ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। প্রতি টিকায় প্রায় ৭৭ টাকা মুনাফা করেছে বেক্সিমকো।

আর তাতে ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত তৃতীয় প্রান্তিকে বেক্সিমকো ফার্মার মুনাফা হয়েছে ১৪৬ কোটি ৩২ লাখ ৪৭ হাজার ৬৫৫ টাকা। যা আগের বছরের প্রায় দেড়গুণ বেশি।
গুগল নিউজ-এ ঢাকা পোস্টের সর্বশেষ খবর পেতে ফলো করুন।

রোববার (২ মে) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ডিএসইর তথ্য মতে, বেক্সিমকো ফার্মা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনার টিকা ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের কাছ থেকে আমদানির করছে। দেশের করোনাভাইরাসে প্রতিরোধে প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে সব মিলে ৩ কোটি ডোজ টিকা আনার জন্য চুক্তি করেছে। চুক্তি অনুসারে জানুয়ারি থেকে মার্চ এই তিন মাসে মোট ৫০ লাখ টিকা সেরামের কাছ থেকে এনেছে। তাতে সব কর এবং খরচ বাদে মুনাফা হয়েছে ৩৮ কোটি ৩৭ লাখ টাকা।

তবে গত ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত ৭০ লাখ টিকা এসেছে বলে ঢাকা পোস্টকে নিশ্চিত করেছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালসের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) মোহাম্মদ আলী নেওয়াজ। তিনি বলেন, ৩ কোটি ডোজ করোনার টিকার মধ্যে গত ৩১ মার্চ পর্যন্ত ৫০ লাখ ডোজ টিকা এসেছে। অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে তাই উল্লেখ করা হয়েছে। বাকি ২০ লাখ চতুর্থ প্রান্তিকে দেখানো হবে।

ডিএসইর তথ্য মতে, গত ছয় থেকে আট মাস ধরে পুঁজিবাজারে রাজত্ব করে আসা বেক্সিমকো ফার্মার সর্বশেষ প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়ে হয়েছে ৩ টাকা ২৮ পয়সা। যা ২০২০ সালের একই সময়ে ছিল ২ টাকা ২ পয়সা। অর্থাৎ গত বছরের চেয়ে ৫৬ কোটি ২১ লাখ ১ হাজার ২৩৩ টাকা বেড়েছে। এর মধ্যে ৩৮ কোটি ৩৭ লাখ টাকা আয় হয়েছে করোনা টিকার আমদানির আয় থেকে।

ফলে গত বছরের ২ আগস্ট ৮৫ টাকায় লেনদেন হওয়া বেক্সিমকো ফার্মার শেয়ার ২ মে (রোববার) কেনা-বেচা হয়েছে ১৯২ টাকা ৫০ পয়সায়। অর্থাৎ ৯ মাসে শেয়ারটির দাম বেড়েছে ১০০ টাকার বেশি।

উল্লেখ্য, ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি করা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনার টিকা বাংলাদেশে আমদানির জন্য চুক্তিবদ্ধ একমাত্র প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মা। বাংলাদেশ সরকার, সেরাম ইনস্টিটিউট ও কোম্পানিটির মধ্যে সম্পাদিত ত্রিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় এ টিকা আমদানি করা হচ্ছে।

চুক্তি অনুযায়ী, বেক্সিমকো ফার্মা ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে তিন কোটি ডোজ করোনার টিকা আনবে। এই তিন কোটি ডোজ টিকার মধ্যে কোম্পানিটি এখন পর্যন্ত ৭০ লাখ টিকা এনেছে। বর্তমানে ভারত থেকে করোনার টিকা আসা বন্ধ রয়েছে।

১৯৮৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এই কোম্পানির ৪৪ কোটি ৬১ লাখ ১২ হাজার শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে রয়েছে ৩০ দশমিক ১৮ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ২০ দশমিক ১৯ শতাংশ, বিদেশিদের হাতে রয়েছে ২৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ২২ দশমিক ১৪ শতাংশ শেয়ার।

বর্তমানে প্রায় ১ হাজার কোটি টাকার ঋণে থাকা কোম্পানিটি ২০২০ সালে শেয়ারহোল্ডারদের ২০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়