শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪   জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১   ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সর্বশেষ:
দিনের বেলায় মরুভূমির চেয়েও উত্তপ্ত চাঁদ ডেঙ্গুতে একদিনে ১১ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ২৩২৭ ৬ কংগ্রেসম্যানের চিঠির সত্যতা চ্যালেঞ্জ করে ২৬৭ প্রবাসী বাংলাদেশি অক্টোবরের মধ্যেই ‘আন্দোলনের ফসল’ ঘরে তুলতে চায় বিএনপি শর্তসাপেক্ষে নিউইয়র্কে মসজিদে আজানের অনুমতি বাংলাদেশ থেকে বিনা খরচে মালয়েশিয়া গেলেন ৩১ কর্মী খেলাপি ঋণ কমাতে কঠোর নির্দেশ জার্মানে পাঁচ বছর বাস করলেই পাওয়া যাবে নাগরিকত্ব বিএনপি-জাপা বৈঠক সিঙ্গাপুরে বাইডেন প্রশাসনকে হাসিনার কড়া বার্তা এবার হাসিনার পাশে রাশিয়া বঙ্গ সম্মেলনের ইতিহাসে ন্যাক্কারজনক ঘটনা স্টুডেন্ট লোন মওকুফ প্রস্তাব বাতিল বাংলাদেশিদের ওপর উপর্যুপরি হামলা যুক্তরাষ্ট্রের উচিত আগে নিজ দেশে মানবাধিকার রক্ষা করা: শেখ হাসিনা তামিমের অবসর অভিযোগের তীর পাপনের দিকে নিউইয়র্কে এখন চোরের উপদ্রুব যুক্তরাষ্ট্রের ২৪৭তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে হাতিরঝিলের ক্ষতি হবেই ইসরায়েল-ফিলিস্তিন যুদ্ধবিরতি, পাঁচ দিনে নিহত ৩৫ যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটছে বাখমুত থেকে পিছু হটেছে সেনারা, স্বীকার করল রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণ ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ সুপার সাইক্লোন হবে না, দাবি আবহাওয়া অধিদপ্তরের সুদানে যুদ্ধে সাড়ে ৪ লাখ শিশু বাস্তুচ্যুত : জাতিসংঘ পারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ এশিয়ায় খেলাপি ঋণে দ্বিতীয় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটে সারা দেশে ভোগান্তি রুশ হামলা সামলে ফের বিদ্যুৎ রপ্তানি করতে যাচ্ছে ইউক্রেন রিজার্ভ সংকট, খাদ্যমূল্য বৃদ্ধির জন্য সরকারের দুর্বল নীতিও দায়ী পূজার ‘জিন’ একা দেখতে পারলেই মিলবে লাখ টাকা! সিরিয়ায় আর্টিলারি হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল বাইডেন না দাঁড়ালে প্রার্থী হবেন কে নাইজেরিয়ায় ৭৪ জনকে গুলি করে হত্যা ভারতে বাড়ছে করোনা, বিধিনিষেধ জারি তিন রাজ্যে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন লুলা যে কোনো দিন খুলবে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল শীতে কাঁপছে উত্তরাঞ্চল দেশে করোনার নতুন ধরন, সতর্কতা বিএনপির সব পদ থেকে বহিষ্কার আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া নৌকার প্রার্থীর পক্ষে মাঠে কাজ করবো: মাহিয়া মাহি মর্মান্তিক, মেয়েটিকে ১২ কিলোমিটার টেনে নিয়ে গেল ঘাতক গাড়ি! স্ট্যামফোর্ড-আশাসহ ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ষবরণে বায়ু-শব্দদূষণ জনস্বাস্থ্যে ধাক্কা কোনো ভুল মানুষকে পাশে রাখতে চাই না বাসস্থানের চরম সংকটে নিউইয়র্কবাসী ট্রাকসেল লাইনে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত একাকার! ছুটি ৬ মাসের বেশি হলে কুয়েতের ভিসা বাতিল ১০ হাজার বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত চুক্তিতে বিয়ে করে ইউরোপে পাড়ি আইফোন ১৪ প্রোর ক্যামেরায় নতুন দুই সমস্যা পায়ের কিছু অংশ কাটা হলো গায়ক আকবরের ১৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১০০ কোটি ডলার নারী ফুটবলে দক্ষিণ এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে আবার বাড়লো স্বর্ণের দাম
৮৩২

ইসরাইলের ঘরে ঘরে হামাসের ‘নুখবা ফোর্স’ আতঙ্ক

প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর ২০২৩  

ইসরাইলের ঘরে ঘরে এখন নুখবা ফোর্স আতঙ্ক। কারণ ইসরাইলে হামাসের শনিবারের অভিযানের পেছনে ছিল ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী দলটির বিশেষ শাখা ‘অভিজাত নুখবা ফোর্স।’ হামাসের দুঃসাহসী এই বাহিনী নিধনেই বিমান হামলা চালাচ্ছে ইসরাইল।
বৃহস্পতিবার ইসরাইলের সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। আরও জানায়, ‘নুখবা সদস্যরা নেতৃস্থানীয় বাহিনীগুলোর মধ্যে একটি যারা ইসরাইলে হামলা চালিয়েছিল। গাজাজুড়ে হামাসকে লক্ষ্যবস্তু করে ‘বিস্তৃত আক্রমণ’ শুরু করা হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। এপি।

সেনাবাহিনী আরও জানায়, ‘নুখবা ফোর্সের সদস্যরা টানেল দিয়ে ইসরাইলে অনুপ্রবেশ করে অতর্কিত ‘হামলা’ চালিয়েছে।’

একই দিনে ইসরাইলের প্রতিরক্ষা বাহিনীর (আইডএফ) মুখপাত্র জোনাথন কনরিকাস বলেছেন, হামাস ২০০৭ সালে নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকেই গাজা শহর থেকে শুরু করে উপত্যকার অন্যান্য অঞ্চলে ভ‚গর্ভস্থ টানেলের একটি নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। আর এই টানেলগুলো ব্যবহার করেই এখন নুখবা ফোর্সসহ হামাসের অন্যান্য ফোর্সগুলো হামলা চালাচ্ছে।

কনরিকাস আরও জানান, ‘এই টানেলগুলোই এখন ইসরাইলের বিমান হামলার একটি বিশেষ অগ্রাধিকার। টানেলগুলো ব্যবহার করে হামলা চালানোর পাশাপাশি ইসরাইলের বিরুদ্ধে পরিকল্পনা ও অপারেশন চালানোর জন্য ব্যবহার করা হয়।’ আরও বলেন, হামাসের জ্যেষ্ঠ কমান্ডোরা রয়েছেন এমন অবকাঠামো ও অবস্থানগুলোকে লক্ষ্য করে হামলা চালাচ্ছে আইডিএফ।

এর আগে ইসরাইলের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র রিচার্ড হেচ্ট জানিয়েছিলেন, হামাসের সঙ্গে যুদ্ধে স্থল আক্রমণ শুরু করতেও প্রস্তুত ইসরাইল। বলেছেন, ‘যদিও এ বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি তবে আমরা একটি স্থল আক্রমণের প্রস্তুতি নিচ্ছি।’ তবে গাজায় সেনা পাঠানোর সিদ্ধান্ত এখনো নেওয়া হয়নি। আইডএফ জানিয়েছে, ইসরাইল গাজা সীমান্তের কাছাকাছি ৩ লাখেরও বেশি যোদ্ধা সংগ্রহ করেছে।

হামাসের প্রতিনিধিরাও বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন, গোষ্ঠীটি গাজায় ইসরাইলের হামলার পর দক্ষিণ ইসরাইলে নতুন রকেট ব্যারেজ চালু করেছে। এছাড়া তেল আবিব ও দক্ষিণ ইসরাইলের শহর আশকেলনেও গুলি চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে সংগঠনটি।

নুখবা ফোর্স কি

এই ফোর্সটির নাম এসেছে ‘আল-নুখবা’ শব্দ থেকে। আরবি ভাষায় যার অর্থ ‘অভিজাত’। এর কমান্ডোরা হামাসের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সুরক্ষায়ও কাজ করে। এই সংগঠনের প্রধান কাজ টানেলে অনুপ্রবেশসহ বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করা। তারা অ্যান্টি-ট্যাংক মিসাইল, রকেট ও স্নাইপার ব্যবহারে বিশেষজ্ঞ। ফোর্সটি হামাসের সামরিক শাখা ইজ আল-দিন আল-কাসেম ব্রিগেডের প্রধান যুদ্ধ ইউনিটের অংশ।

ইসরাইলের সেনাবাহিনীর প্রকাশিত একটি বিবৃতি অনুযায়ী, ‘নুখবা এলিট বাহিনীর সদস্যদের হামাসের ঊর্ধ্বতন অপারেটিভদের দ্বারা নির্বাচন করা হয়েছে। যাদের প্রধান কাজ অভিযান পরিচালনা, সুড়ঙ্গে অনুপ্রবেশ অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক মিসাইল চালানোসহ রকেট ও স্নাইপার ফায়ার পরিচালনা।

সাপ্তাহিক আজকাল
সাপ্তাহিক আজকাল
এই বিভাগের আরো খবর