ঢাকা, ২০২১-০৪-২০ | ৬ বৈশাখ,  ১৪২৮
সর্বশেষ: 
কুরআনের আয়াত বাতিলে ‘ফালতু’ রিট করায় আবেদনকারীকে জরিমানা আদালতের দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ওয়াক্ত ও তারাবি নামাজের জামাতে সর্বোচ্চ ২০ জন বিদেশে মারা গেছে ২৭০০ বাংলাদেশি আর্থিক ক্ষতি মেনেই সাঙ্গ হলো বইমেলা সুন্দরী মডেলের অপহরণ চক্র ! মোটরসাইকেল উৎপাদনে বিপ্লবে দেশ যুক্তরাজ্যে করোনার আরও মারাত্মক ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত ৮ থেকে ১২ সপ্তাহ বিরতিতে অক্সফোর্ডের টিকা বেশি কার্যকর সবাই সপরিবারে নির্ভয়ে করোনা ভ্যাকসিন নিন: প্রধানমন্ত্রী শেষ রাতে দু’রাকাত নামাজ জীবন পরিবর্তন করে দিতে পারে নতুন করোনাভাইরাস আতঙ্কে ইউরোপ-আমেরিকার শেয়ারবাজারে ধস জুনের মধ্যে আসছে আরও ৬ কোটি করোনার টিকা বাড়িভাড়ায় নাভিশ্বাস, ফের বাড়ানোর পাঁয়তারা অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে শিশুদের ভাড়া দিচ্ছে দালাল চক্র

ইমিগ্রেশনে ধোঁয়াশা কাটছে না

প্রকাশিত: ০১:৪৬, ৩ এপ্রিল ২০২১  



আজকাল রিপোর্ট
সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন ব্যবস্থায় যে আমূল পরিবর্তন এনেছিলেন তা কাটিয়ে উঠতে হিমশিম খেতে হচ্ছে অভিবাসী-বান্ধব জো বাইডেন প্রশাসনকে। প্রেসিডেন্ট বাইডেন ক্ষমতা গ্রহণের পর বিভিন্ন পদক্ষেপ নিলেও অনেক ক্ষেত্রে এখনও ধোঁয়াশা কাটছে না। তাই প্রেসিডেন্ট বাইডেনের অভিবাসন ইস্যু নিয়ে অধিকাংশ আমেরিকানই বিরক্ত।
ইউএস-মেক্সিকো সীমান্তে প্রতিদিন হাজারো বিদেশির ভিড় এবং শিশুদের একাকী সীমান্তে ঠেলে দেয়ার ঘটনার আলোকে এনপিআর/মরিস্ট পোল পরিচালিত জরিপে এমন অবস্থা প্রতীয়মান হয়েছে।
প্রাপ্ত বয়স্ক ১৩০৯ জন আমেরিকান অংশ নেন এ জরিপে এবং তা মার্চের ২২ থেকে ২৫ তারিখের মধ্যে চালানো হয়েছে। করোনা এবং অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সঠিকভাবে হ্যান্ডেল করার পক্ষে ৫০ শতাংশের অধিক আমেরিকান মত দিলেও অভিবাসন ইস্যুতে অধিকাংশই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।
৫৩ শতাংশ বলেছেন যে, অভিবাসন ইস্যুতে বাইডেনের পদক্ষেপে তারা সন্তুষ্ট নন। মাত্র ৩৪ শতাংশ সন্তুষ্ট বলেও জরিপে উদঘাটিত হয়েছে। তবে জরিপে অংশগ্রহণকারী ডেমোক্র্যাটদের ৬৬ শতাংশ বাইডেনের অভিবাসন ইস্যুতে সিদ্ধান্ত সময়োপযোগী হিসেবে অভিহিত করেছেন। ডেমোক্র্যাটদের মাত্র ২৩ শতাংশ বলেছেন যে, তারা বাইডেনের অভিবাসন ইস্যুতে বিরক্ত। জরিপে অংশ নেয়া ল্যাটিনোদের ৪৩ শতাংশ সন্তোষ প্রকাশ করলেও সমপরিমাণের অসন্তুষ্ঠির কথা জানিয়েছেন।
চলতি সপ্তাহে এবিসি নিউজ/ আইপএসওএস পরিচালিত অপর জরিপে ৫৭ শতাংশ আমেরিকান অভিবাসন ইস্যুতে বাইডেনের কার্যক্রমকে সঠিক নয় বলে উল্লেখ করেছেন।
২০ জানুয়ারি ক্ষমতা গ্রহণের পর ট্রাম্পের অভিবাসন বিরোধী সকল নির্দেশ পাল্টে দিয়েছেন বাইডেন। এমনকি, দায়িত্ব গ্রহণের পরই অভিবাসন ইস্যুকে মানবিকতায় ঢেলে সাজানোর প্রস্তাবও পাঠিয়েছেন কংগ্রেসে। সে সংবাদ প্রকাশ ও প্রচারের পরই সেন্ট্রাল আমেরিকার হাজার হাজার মানুষ সপরিবারে মেক্সিকো সীমান্তে ভীড় করছেন। ভীড় বাড়ছে প্রতিদিনই। শিশু সন্তানদেরকে অভিভাবকেরা সীমান্তের ভেতরে ঠেলে দিচ্ছেন। ১৫ হাজারের অধিক শিশু যাদের বয়স ১৩ বছরের কম, তাদেরকে যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্তরক্ষীরা উদ্ধার করে বিভিন্ন শিবিরে রেখেছেন। প্রেসিডেন্ট বাইডেন সীমান্তের পরিস্থিতি আলোকে বারবার আহবান জানিয়েছেন এভাবে জড়ো না হতে। নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থানের কথাও বলেছেন।
এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের জন্য দক্ষিণের সীমান্তে দালাল চক্র নথিপত্রহীন অভিবাসীদের সঙ্গে শিশুদের ভাড়া খাটাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ডিএনএ পরীক্ষায় দেখা যাচ্ছে, নিজের সন্তান দাবি করা লোকজনের সঙ্গে শিশুর ডিএনএ মিলছে না। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ সীমান্তে মানবিক সংকট তীব্র হয়ে উঠেছে।
মার্কিন রক্ষণশীল সিনেটর টেড ক্রুজ ২৮ মার্চ নিউজম্যাক্স টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন। টেড ক্রুজ বলেন, অন্য শিশুকে নিজের সন্তান বলে সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার ঘটনায় নতুন মানবিক সংকট সৃষ্টি হয়েছে। এতে দেশের নিরাপত্তাও হুমকির মুখে পড়েছে। তিনি বলেন, ডেমোক্র্যাটিক দলও জানে সীমান্ত দিয়ে আসা লোকজনকে মেক্সিকো থেকে যাচাই করার আগেই প্রবেশ করতে দেওয়ার পরিণাম ভয়াবহ হবে। হয়েছেও তাই। ডেমোক্র্যাটিক দল চায় নথিপত্রহীন লোকজনের ব্যাপক আগমন। এরপর এসব লোকজনকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এবং এঁরাই ভোট দিয়ে ডেমোক্র্যাটিক দলকে আজীবন ক্ষমতায় রাখবে বলে দলটি মনে করছে।

 

সর্বশেষ
জনপ্রিয়