ঢাকা, ২০২০-১১-২৮ | ১৪ অগ্রাহায়ণ,  ১৪২৭
সর্বশেষ: 
অমিতাভের পর অভিষেকও করোনা আক্রান্ত বিশ্ব ধরেই নিচ্ছে বাংলাদেশ জালিয়াতির দেশ : শাহরিয়ার কবির ইরাকে মর্গের পাশে রাত কাটছে বাংলাদেশিদের! বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শক বাংলাদেশের সেঁজুতি সাহা সাহেদর টাকা থাকত নাসির, ইন্ডিয়ান বাবু ও স্ত্রী সাদিয়ার কাছে ‘বাংলাদেশিদের ভোট দিন’ মানবতার সেবায় কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ অনিশ্চিতায় ফেরদৌস খন্দকার কৃষ্ণাঙ্গ হত্যা থামছেই না বিক্ষোভ অব্যাহত গভর্নরের সিদ্ধান্ত মানছে না মেয়র অভিবাসীরা জিতলেন হারলেন ট্রাম্প করোনার ধাক্কা - মে মাসে রপ্তানি কমেছে ২০ হাজার কোটি টাকার পুলিশ সংস্কার বিল উঠলো মার্কিন কংগ্রেসে লাইফ সাপোর্টে থাকা নাসিমের জন্য মেডিকেল বোর্ড পুনর্গঠন আইসিইউ নিয়ে হাহাকার ঈদের ছুটিতে অনিরাপদ হয়ে উঠছে গ্রামগুলো ঘরে ঘরে ভুতুড়ে বিল, বিদ্যুৎ বিভাগ বলছে সমন্বয় হবে নিউইয়র্কে ‘ট্রাম্প ডেথ ক্লক’ নিউইয়র্কে জেবিবিএ’র পরিচালক ইকবালুর রশীদ লিটনের মৃত্যু নিজ আয়ে চলা শুরু করলো বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি কবে খুলবে নিউইয়র্ক নিউইয়র্কে এবার নতুন ভাইরাসে শিশুরা আক্রান্ত

বাইডেনের পক্ষে ভারতীয়রা

আনন্দবাজারের ভুল তথ্য!

প্রকাশিত: ০৪:২৪, ২১ নভেম্বর ২০২০  



আজকাল ডেস্ক
নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নতুন প্রশাসনে স্থান পেতে যাচ্ছেন একজন বাঙালিসহ তিনজন ভারতীয়। এমন খবরে বেশ উচ্ছ্বসিত পশ্চিমবঙ্গ। তারই রেশ এসে পড়েছে স্থানীয় গণমাধ্যমে। কলকাতার প্রভাবশালী পত্রিকা আনন্দবাজার অতি উৎসাহ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে ভারতীয়দের সাথে বাইডেনের প্রচারণার একটি ছবি প্রকাশ করে গণমাধ্যমটি লিখেছেÑ ‘আমেরিকায় ভারতীয় বা সাউথ এশিয়ান কমিউনিটি এ বার ঝুলি ভরে ডেমোক্র্যাটদের ভোট দিয়েছে’।
আনন্দবাজারের এই রিপোর্টের সঙ্গে বাস্তবতার মিল পাচ্ছেন না অনেকে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ভারতীয় অনেকেই এর সঙ্গে একমত নন। কেননা, এবার নির্বাচনী প্রচারণায় দেখা গেছে, অন্য যে কোনো বারের তুলনায় ডোনাল্ড ট্রাম্প তথা রিপাবলিকানরা বেশি সমর্থন পেয়েছেন। এটা যে শুধু ভারতীয়দের ক্ষেত্রে হয়েছে তা নয়, উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বাংলাদেশিও এবার প্রকাশ্যেই ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে বিস্তর লেখালেখিও হয়েছে।
আনন্দবাজারের রিপোর্টটি প্রকাশিত হওয়ার পর নিউইয়র্কের সংস্কৃতিকর্মী গোপাল স্যানাল তার ফেইসবুকে লিখেছেন, ‘সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ক্যাবিনেটে জায়গা পেতে পারেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত বিবেক মূর্তি এবং অরুণ মজুমদার। এমন সংবাদে আনন্দবাজার বলছে এর অন্যতম কারণ ভারতীয়রা নাকি ঝুলি ভরে বাইডেনকে ভোট দিয়েছে’। মিস্টার স্যানাল প্রশ্ন ছুঁড়েছেন, ‘আদতে কি তাই দিয়েছে’! এরপর তিনি মন্তব্য করেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করে আমার দেখায় এর সত্যতা পাই না’।
গোপাল স্যানালের পোস্টে অনেকেই মন্তব্য করছেন এবং তার সাথে একমত পোষণ করেছেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত পিনাকি চ্যাটার্জি লিখেছেন, ‘আনন্দবাজারের এই সংবাদের সাথে আমি সম্মত না। কারণ এর সাথে বাস্তবের মিল নেই। একজন ভারতীয় হিসেবে বলছি। তাছাড়া আল জাজিরা যে সাম্প্রতিক সমীক্ষা করেছে, সেটাও অন্য তথ্য দিচ্ছে’।
নিউইয়র্কের বাসিন্দা আবু সিদ্দিক মনে করেন, বাইডেনের প্রশাসনে বাঙালির মন্ত্রীত্ব পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেওয়ায় আনন্দবাজার অতি উৎসাহী হয়ে বাস্তবের সাথে মিল নেই এমন একটি তথ্য পরিবেশন করেছে।
জ্যামাইকার মৌসুমী মজুমদার বলেন, ভারতীয়, বাংলাদেশিসহ এশিয়ানরা বাইডেনকে বেশি ভোট দিয়েছে একথা সত্যি। কারণ অভিবাসী দেশের নাগরিক হিসেবে এশিয়ানরা সব সময়ই ডেমোক্র্যাটদের সমর্থন করেন। কিন্তু এবার তুলনামূলক বিচারে ভারতীয়সহ এশিয়ানদের ভোট কম পেয়েছেন জো বাইডেন কিংবা ডেমোক্র্যাটরা। এক্ষেত্রে ভারতীয় ও আফ্রিকান আমেরিকান কামালা হ্যারিসও ভারতীয়দের প্রভাব বিস্তার করতে পারেননি, যোগ করেন তিনি।
আবু ওসমান খান মনে করেন, ট্রাম্পের চীন ও ইরান বিরোধী অবস্থান এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে মুসলিম বিদ্বেষী মনোভাবের কারণে ভারতীয়রা এবারের নির্বাচনে বাইডেন থেকে মুখ ফিরিয়ে রিপাবলিকান প্রার্থীর দিকে আকৃষ্ট হয়ে থাকতে পারেন।

 

সর্বশেষ
জনপ্রিয়