শুক্রবার   ১৪ জুন ২০২৪   জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১   ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সর্বশেষ:
দিনের বেলায় মরুভূমির চেয়েও উত্তপ্ত চাঁদ ডেঙ্গুতে একদিনে ১১ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ২৩২৭ ৬ কংগ্রেসম্যানের চিঠির সত্যতা চ্যালেঞ্জ করে ২৬৭ প্রবাসী বাংলাদেশি অক্টোবরের মধ্যেই ‘আন্দোলনের ফসল’ ঘরে তুলতে চায় বিএনপি শর্তসাপেক্ষে নিউইয়র্কে মসজিদে আজানের অনুমতি বাংলাদেশ থেকে বিনা খরচে মালয়েশিয়া গেলেন ৩১ কর্মী খেলাপি ঋণ কমাতে কঠোর নির্দেশ জার্মানে পাঁচ বছর বাস করলেই পাওয়া যাবে নাগরিকত্ব বিএনপি-জাপা বৈঠক সিঙ্গাপুরে বাইডেন প্রশাসনকে হাসিনার কড়া বার্তা এবার হাসিনার পাশে রাশিয়া বঙ্গ সম্মেলনের ইতিহাসে ন্যাক্কারজনক ঘটনা স্টুডেন্ট লোন মওকুফ প্রস্তাব বাতিল বাংলাদেশিদের ওপর উপর্যুপরি হামলা যুক্তরাষ্ট্রের উচিত আগে নিজ দেশে মানবাধিকার রক্ষা করা: শেখ হাসিনা তামিমের অবসর অভিযোগের তীর পাপনের দিকে নিউইয়র্কে এখন চোরের উপদ্রুব যুক্তরাষ্ট্রের ২৪৭তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে হাতিরঝিলের ক্ষতি হবেই ইসরায়েল-ফিলিস্তিন যুদ্ধবিরতি, পাঁচ দিনে নিহত ৩৫ যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটছে বাখমুত থেকে পিছু হটেছে সেনারা, স্বীকার করল রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণ ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’ সুপার সাইক্লোন হবে না, দাবি আবহাওয়া অধিদপ্তরের সুদানে যুদ্ধে সাড়ে ৪ লাখ শিশু বাস্তুচ্যুত : জাতিসংঘ পারস্য উপসাগরে সামরিক উপস্থিতি বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ এশিয়ায় খেলাপি ঋণে দ্বিতীয় বাংলাদেশ বিদ্যুৎ ও গ্যাস সংকটে সারা দেশে ভোগান্তি রুশ হামলা সামলে ফের বিদ্যুৎ রপ্তানি করতে যাচ্ছে ইউক্রেন রিজার্ভ সংকট, খাদ্যমূল্য বৃদ্ধির জন্য সরকারের দুর্বল নীতিও দায়ী পূজার ‘জিন’ একা দেখতে পারলেই মিলবে লাখ টাকা! সিরিয়ায় আর্টিলারি হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল বাইডেন না দাঁড়ালে প্রার্থী হবেন কে নাইজেরিয়ায় ৭৪ জনকে গুলি করে হত্যা ভারতে বাড়ছে করোনা, বিধিনিষেধ জারি তিন রাজ্যে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিলেন লুলা যে কোনো দিন খুলবে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল শীতে কাঁপছে উত্তরাঞ্চল দেশে করোনার নতুন ধরন, সতর্কতা বিএনপির সব পদ থেকে বহিষ্কার আব্দুস সাত্তার ভূঁইয়া নৌকার প্রার্থীর পক্ষে মাঠে কাজ করবো: মাহিয়া মাহি মর্মান্তিক, মেয়েটিকে ১২ কিলোমিটার টেনে নিয়ে গেল ঘাতক গাড়ি! স্ট্যামফোর্ড-আশাসহ ৪ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বর্ষবরণে বায়ু-শব্দদূষণ জনস্বাস্থ্যে ধাক্কা কোনো ভুল মানুষকে পাশে রাখতে চাই না বাসস্থানের চরম সংকটে নিউইয়র্কবাসী ট্রাকসেল লাইনে মধ্যবিত্ত-নিম্নবিত্ত একাকার! ছুটি ৬ মাসের বেশি হলে কুয়েতের ভিসা বাতিল ১০ হাজার বাড়িঘর ক্ষতিগ্রস্ত চুক্তিতে বিয়ে করে ইউরোপে পাড়ি আইফোন ১৪ প্রোর ক্যামেরায় নতুন দুই সমস্যা পায়ের কিছু অংশ কাটা হলো গায়ক আকবরের ১৫ দিনে রেমিট্যান্স এসেছে ১০০ কোটি ডলার নারী ফুটবলে দক্ষিণ এশিয়ার চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে আবার বাড়লো স্বর্ণের দাম
৩১৪০

অবিলম্বে খালেদা জিয়ার মুক্তি ৩৫ লাখ মামলা প্রত্যাহার

প্রকাশিত: ৩ জুন ২০২৩  

বরফ গলতে বিএনপি’র দুই শর্ত

   
বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকা থেকে
শেখ হাসিনার অধীনে কোনও নির্বাচনে যাবে না বিএনপি। এখন পর্যন্ত এই দাবিতে অনঢ় দলটি। তবে যে কোনও পরিস্থিতি দ্রুত পাল্টে যেতে পারে। নতুন পরিস্থিতিতে মানিয়ে নিতে পারে যে কোন রাজনৈতিক দল। এমন ক্ষেত্রে বিএনপি কী করবেÑপ্রশ্ন অনেকের মনে। বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলছেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং বিএনপি ও তার বিভিন্ন অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা ৩৫ লাখ রাজনৈতিক মামলা প্রত্যাহার করা হলে বরফ গলতে পারে। নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত হতে পারে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার সংবিধানের বাইরে নির্বাচন করতে মোটেও রাজি নয়। সংবিধানের আওতার মধ্যে থাকা মানে হলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রেখে নির্বাচনে যাওয়া। বর্তমান অবস্থায় বিএনপি আলোচনায় বসতেও রাজি নয়। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া কারাগারে এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বিদেশে নির্বাসিত জীবন-যাপন করছেন। এই পরিস্থিতিতে নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত দলের কোনও নেতাই নিতে পারছেন না। খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিলে এবং রাজনৈতিক মামলাগুলো প্রত্যাহার হলে আলোচনার পরিবেশ সৃষ্টি হবে। তখন মাঠ প্রশাসনে সমান ক্ষেত্র সৃষ্টি হলে শেখ হাসিনার অধীনেও বিএনপি’র নির্বাচনে যাওয়া অসম্ভব নয়।
যুক্তরাষ্ট্রের তরফে আগাম ভিসা নিষেধাজ্ঞা দেবার কারণে বিএনপি ও তার বিভিন্ন অঙ্গ-সংগঠনের মধ্যে চাঙ্গাভাব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যদিও মার্কিন সূত্রগুলো বলছে, বিএনপি’র প্রতিও ওয়াশিংটনের মনোভাব খুব একটা যুৎসই নয়। ২০১৮ সালে নির্বাচনে ভরাডুবির পর বিএনপি’র বড় নেতারা অনেকে যুক্তরাষ্ট্রের কড়া সমালোচনা করেছেন। তারা বিশে^র বৃহৎ অর্থনৈতিক ও সামরিক শক্তির দেশটিকে ‘হিপোক্রেট’ বলেও মন্তব্য করেছেন। ওইসব নেতারা বলে বেড়ান যে, আমেরিকা তাদেরকে মাঠে নামিয়ে শেষ পর্যন্ত সরে গেছে। এসব মন্তব্য আমেরিকার নীতি-নির্ধারণী মহলে সমালোচিত হয়। এসব কারণে যুক্তরাষ্ট্র এখন আর ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক’ কিংবা ‘সবার অংশগ্রহণে’ নির্বাচন বলে না। যুক্তরাষ্ট্র চায় ‘অবাধ ও সুষ্ঠু’ নির্বাচন।
ইউরোপীয় ইউনিয়ন বলেছে, নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক না হলে তারা পর্যবেক্ষক পাঠাবে না। জুলাই মাসে ইইউ’র প্রাক-পর্যবেক্ষণ মিশন বাংলাদেশে আসবে। তারা পর্যালোচনা করে গ্রীন সিগন্যাল দিলে ইউরোপের দেশগুলো বড় পর্যবেক্ষণ দল পাঠাবে।

 

সাপ্তাহিক আজকাল
সাপ্তাহিক আজকাল
এই বিভাগের আরো খবর