মঙ্গলবার , ১৬ জানুয়ারী ২0১৮, Current Time : 2:12 am




রোহিঙ্গাদের জন্য এলপিজি গ্যাস ও বন্ধু চুলা!

সাপ্তাহিক আজকাল : 13/01/2018


ঢাকা অফিস: বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ১০ লাখের বেশি মিয়ানমারের নাগরিক অবস্থান করছে। এই বিপুল সংখ্যক নাগরিকের আবাসনের জন্য কক্সবাজার জেলায় উখিয়া আর টেকনাফ উপজেলায় প্রায় ৩ হাজার একর গেজেটভুক্ত বনভূমিতে অস্থায়ী বসতি স্থাপন করা হয়েছে। এদের দৈনন্দিন রান্নার জ্বালানির প্রয়োজনে বসতি স্থাপন করা জায়গাসহ আশপাশের বনের গাছ কাটা হচ্ছে বলে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের কাছে অভিযোগ এসেছে। গাছ কাটার কারণে একদিকে যেমন বন ও বনজ সম্পদ পাহাড় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তেমনি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে প্রতিবেশ ও জীববৈচিত্র্য। রান্নার জ্বালানির অব্যাহত চাহিদার কারণে এ সব এলাকায় গাছ শূন্য হয়ে পড়ার উপক্রম হয়েছে।
জানা গেছে, মিয়ানমার নাগরিকদের ক্যাম্পগুলোতে রান্নার জন্য কাঠের বিকল্প জ্বালানি নিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বিকল্প জ্বালানি নিয়ে তিনটি প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়। এ সব প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে- জোনভিত্তিক এলপিজি গ্যাস, রান্না করা খাবার সরবরাহ, প্রতিটি পরিবারকে বন্ধু চুলা ও জ্বালানি সরবরাহ ও পর্যাপ্ত সংখ্যক বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন। এর পাশাপাশি চারকোল ব্যবহারের প্রস্তাবও আসে। তবে বেশির ভাগ কর্মকর্তা মনে করেন, আপাতত এলপিজি গ্যাস সরবরাহ করাই ভালো। চারকোল তৈরির কারখানার ব্যাপারে উপস্থাপন করা হলে শ্রমিক নিয়োগের বিষয়টি আলোচনায় আসে। কোনো কোনো কর্মকর্তা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী থেকে শ্রমিক নিয়োগের ব্যাপারে মতামত দেন। আর ক্যাম্প এলাকায় বায়োগ্যাস প্লান্ট স্থাপন করা যায় কিনা এ নিয়ে মতদ্বৈততা দেখা দেয়। অনেকেই বন্ধু চুলা ব্যবহারের ওপর বেশ গুরুত্ব দেন। যে কারণে এ বিষয়ে অগ্রাধিকার দেয়া হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে আভাস পাওয়া গেছে।
তবে এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানান, আপাতত এলপিজি গ্যাস ব্যবহারের বিষয়টি গুরুত্ব দেয়া হবে। একই সঙ্গে বন্ধু চুলা সরবরাহের বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে। তবে ভিন্ন কথা অপর এক কর্মকর্তার।
তিনি জানান, জ্বালানি ব্যবহার নিয়ে একটি কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। ১০ সদস্যের এই কমিটির আহ্বায়ক হচ্ছেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার। এর সঙ্গে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ, পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্ত থাকছেন। কমিটি অবশ্য এলপিজি গ্যাসের পক্ষে মতামত দেবেন বলে আশা করছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়। একই সঙ্গে বন্ধু চুাও থাকবে বলে প্রত্যাশা করছি।



Chief Editor & Publisher: Zakaria Masud Jiko
Editor: Manzur Ahmed
37-07 74th Street, Suite: 8
Jackson Heights, NY 11372
Tel: 718-565-2100, Fax: 718-865-9130
E-mail: ajkalnews@gmail.com
� Copyright 2009 The Weekly Ajkal. All rights reserved.