সোমবার , ১৮ ডিসেম্বর ২0১৭, Current Time : 10:44 pm
  • হোম »আন্তর্জাতিক» ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে ভয়াবহ সংঘাতের আশংকা
    জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতি আগামী সপ্তাহেই!




ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের মধ্যে ভয়াবহ সংঘাতের আশংকা
জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতি আগামী সপ্তাহেই!

সাপ্তাহিক আজকাল : 03/12/2017

গত পঞ্চাশ বছর ধরে মার্কিন প্রেসিডেন্টরা ‌যে সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি তা হয়তো এবার নিতে চলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগামী সপ্তাহেই জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে মেনে নিতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ফলে ফের একদফা ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাতে ভয়ঙ্কর আকার নিতে পারে। এমনটাই জানা যাচ্ছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সূত্রে।

ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের এই অংশটি নিয়ে দুই পক্ষের লড়াই বহু দিনের। জেরুজালেমে রয়েছে মুসলিমদের একাধিক ‘পবিত্র স্থান’। রয়েছে আল আকসা মসজিদ। ফলে ওই এলাকার দখল সহজে ছাড়বে না ফিলিস্তিন, এমনটাই মনে করছে কূটনৈতিক মহল। এনিয়ে জর্ডান থেকে সৌদি অধিকাংশ মার্কিন মিত্রই ওয়াশিংটনকে সাবধান করেছে। পাশাপাশি ইহুদিদের কাছেও এই জায়গাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এখানেই রয়েছে ওয়েলিং ওয়াল, ডোম অব দ্যা রক-এর মতো স্থান।

গত পঞ্চাশ বছর ধরে, প্রেসিডেন্ট হ্যারি ট্রুম্যানের আমল থেকে মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্র এনিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। ট্রুম্যানের ‌যুক্তি ছিল ফিলিস্তিন ও ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টির নিস্পত্তি করতে হবে। প্রেসিডেন্ট বুশ(সিনিয়র) থেকে বারাক ওবামা, ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনকে দুটি দেশে পৃথক করার পক্ষপাতী ছিলেন। পরিকল্পনা ছিল, এক্ষেত্রে দুটি দেশেরই রাজধানী হবে জেরুজালেম। কিন্তু ট্রাম্প একেবারে উল্টোপথে হাঁটতে চলেছেন। এমনকি মার্কিন দুতাবাস ভবনটিও তেল আবিব থেকে জেরুজালমে নিয়ে আসতে পারে ট্রাম্প প্রশাসন।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের মুখপাত্র নাবিল আবু রুদেইনা এনিয়ে সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করাকে কেন্দ্র করেই সংঘাতের শুরু। ফলে এনিয়ে খুব সহজে সিদ্ধান্ত নেওয়া ‌যায় না।

পাশাপাশি ফিলিস্তিন সংসদের সদস্য আবদুল করিম সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, ট্রাম্প ওই ধরনের কোনও সিদ্ধান্ত নিলে মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্র আর ফিলিস্তিন সমস্যার মধ্যস্থতাকারী থাকবে না। বরং ইসরায়েলের পক্ষে হয়ে ‌গেছে বলেই ধরা হবে।

উল্লেখ্য, এর আগেও এনিয়ে জোরালো পদক্ষেপ নেওয়ার চেষ্টা করেছে মার্কিন ‌যুক্তরাষ্ট্র। তবে বিশ্বের অধিকাংশ দেশের আপত্তিতে তা করে উঠতে পারেনি ওয়াশিংটন।

সূত্র: রয়টার্স, জি নিউজ, মিডিলইষ্ট মনিটর।



Chief Editor & Publisher: Zakaria Masud Jiko
Editor: Manzur Ahmed
37-07 74th Street, Suite: 8
Jackson Heights, NY 11372
Tel: 718-565-2100, Fax: 718-865-9130
E-mail: ajkalnews@gmail.com
� Copyright 2009 The Weekly Ajkal. All rights reserved.